নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূসের সঙ্গে বিডিপিএফের ভার্চুয়াল আলোচনা
jugantor
নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূসের সঙ্গে বিডিপিএফের ভার্চুয়াল আলোচনা

  ড. মো. মঞ্জুরে মওলা, ফিনল্যান্ড থেকে    

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৯:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

‘নিজেকে আবিষ্কার কর, পৃথিবীকে আবিষ্কার কর এবং নিজেদের পৃথিবী তৈরি কর‘ বিষয় নিয়ে বাংলাদেশ ডক্টরেটস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড (বিডিপিএফ) আয়োজন করে ভার্চুয়াল আলোচনা।

১২ সেপ্টেম্বর ফিনল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকাল ৩টায় বিডিপিএফের অনলাইন আলোচনায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস।

সবাইকে স্বাগতম জানিয়ে বিডিপিএফের নান্দনিক আড্ডায় ভার্চুয়াল আলোচনা শুরু করেন বিডিপিএফ ফাউন্ডিং সভাপতি, সঞ্চালক ড. মো. মঞ্জুরে মওলা (মুঞ্জুর)।

সহজ-সরল বাংলাভাষায় উপস্থাপিত এবং বাস্তব জীবনে ঘটে যাওয়া সত্য উদাহরণে ভরপুর আজকের আলোচনায় ‘নিজেদের আবিষ্কার কর, পৃথিবীকে আবিষ্কার কর এবং নিজেদের পৃথিবী তৈরি কর’ বিষয় নিয়ে অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূস আলোকপাত করেন।
তিনি আলোকপাত করেন- করোনকালীন বাংলাদেশে টেকসই অর্থনীতির ক্ষেত্রে মানুষের মূল্যায়ন ও ব্যক্তিগত উন্নয়নকে কীভাবে দেখার চেষ্টা করা উচিত। করোনা পরবর্তী নতুন পৃথিবী গড়ার ক্ষেত্রে আমাদের চারপাশের সিরিয়াস সমস্যাকে কীভাবে এড্রেস করলে ভালো হতে পারে। বাংলাদেশ তথা পৃথিবীকে ধনী হিসেবে দেখার ক্ষেত্রে নতুন প্রজন্মের কীভাবে জ্ঞান, বুদ্ধিমত্তা এবং যোগ্যতা নিরুপণ করা উচিত।

অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, বর্তমান করোনাকালীন রাষ্ট্রনীতির সঙ্গে অর্থনীতি এক গভীর সংকটের দিকে ধাবমান। এর নেপথ্যে কাজ করেছে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক মুনাফা, সমস্যা সমাধানে সমন্বয়ে দুর্বলতা, রাজনৈতিক আদর্শের দ্বন্দ্ব, সিভিল সোসাইটির অনুপস্থিত এবং সমাজ গঠনে গণমানুষের একাগ্রতা; কারণ মানুষ অনিশ্চয়তায় ভুগছে। এসব সমস্যার সমাধান করা জরুরি, তা বের করতে হবে আমাদের, সিভিল সোসাইটির এবং নতুন প্রজন্মের ঠিক করতে হবে, তারা কী ধরনের পৃথিবীকে দেখতে চায়।

এছাড়াও অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূস আলোচনায় খুব পরিষ্কারভাবে বুঝাতে চেয়েছেন যে, সুযোগের অভাবে পৃথিবীর বেশির ভাগ মানুষ তাদের জন্মগত পটেনশিয়ালিটি নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তাই মানুষের জ্ঞান, বুদ্ধিমত্তা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে সমাজের সকল নাগরিকদের সমান সুযোগ সৃষ্টি করার মাধ্যমেই বাংলাদেশকে ধনী হিসেবে দেখা তথা টেকসই অর্থনীতির চাকা সচল রাখা যেতে পারে।

এছাড়া তার আলোচনায় উঠে এসেছে- আমাদের সমাজ, সংস্কৃতি এবং প্রত্যহ জীবন গঠনে ভিশনারী নেতৃত্ব কেমন ভূমিকা পালন করে থাকে। ভার্চুয়াল আলোচনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে জুমের মাধ্যমে বাংলাদেশি বিজ্ঞানী যারা সরাসরি অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে প্রশ্নপর্বে উপস্থিত হতে পেরেছিলেন- ড.তাহমিয়া খানম, ড. একেএম সাইফুল্লাহ, ড. জহিরুল হক, ড.কামরুল হোসেন, ড.খন্দকার আকতারুজ্জামান তাপস, ড. শের-ই- খোদা, ড. রফিকুল হায়দার, ড. আনিসুর রহমান ফারুক, মো. আব্দুল হাই, ড. মো. সালাউদ্দিন আহমেদ, ড.মুফতী মাহমুদ, ড. ইব্রাহিম খলিল, ড. আরিফুর রহমান, ড. মুহিদুল ইসলাম খান, ড. মো. হাফিজুল ইসলাম রবিন, ড. মোহাম্মদ আজিমুদ্দিন, ড. মুনজুর আলম, ড. জিএম আতিকুর রহমান, ড. এএইচএম সামসুজ্জোহা, ড. ফিরোজ খান, ড. রকন উদ্দিন, ড. রবিউল ইসলাম, ড. সাইদ মাহমুদ খান, ড.সাকির হোসেন, ড. এএইচএম সামসুজ্জোহা, ড. গোলাম মো. সারোয়ার, ড. কামরুল হাসান, ড. এসএম হারুন-অর-রশিদ, ড. লেমন শরীফ, ড. সৈয়দা সাকিরা হাসান, ড. অসীম কর, ড. এসএম সফিকুল আলম, ড. আশরাফুল আলম, ড. মো. সানাউল হক, ড. মো. করিম উল্লাহ, ড. কাজি শামিম, ড. ইয়াছিনুর রহমান, ড. নাজমুল ইসলাম এবং ড. মো. মঞ্জুরে মওলা (মুঞ্জুর)।

অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূসের সার্বিক সুস্থ, সুন্দর ও দীর্ঘায়ু জীবন কামনা করে ৫৫ মিনিট ব্যাপ্তি ভার্চুয়াল আলোচনা সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূসের সঙ্গে বিডিপিএফের ভার্চুয়াল আলোচনা

 ড. মো. মঞ্জুরে মওলা, ফিনল্যান্ড থেকে   
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘নিজেকে আবিষ্কার কর, পৃথিবীকে আবিষ্কার কর এবং নিজেদের পৃথিবী তৈরি কর‘ বিষয় নিয়ে বাংলাদেশ ডক্টরেটস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড (বিডিপিএফ) আয়োজন করে ভার্চুয়াল আলোচনা।

১২ সেপ্টেম্বর ফিনল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকাল ৩টায় বিডিপিএফের  অনলাইন আলোচনায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস। 

সবাইকে স্বাগতম জানিয়ে বিডিপিএফের নান্দনিক আড্ডায়  ভার্চুয়াল আলোচনা শুরু করেন বিডিপিএফ ফাউন্ডিং সভাপতি, সঞ্চালক ড.  মো. মঞ্জুরে মওলা (মুঞ্জুর)। 

সহজ-সরল বাংলাভাষায় উপস্থাপিত এবং বাস্তব জীবনে ঘটে যাওয়া সত্য উদাহরণে ভরপুর আজকের আলোচনায় ‘নিজেদের আবিষ্কার কর, পৃথিবীকে আবিষ্কার কর এবং নিজেদের পৃথিবী তৈরি কর’ বিষয় নিয়ে অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূস আলোকপাত করেন।  
তিনি আলোকপাত করেন- করোনকালীন বাংলাদেশে টেকসই অর্থনীতির ক্ষেত্রে মানুষের মূল্যায়ন ও ব্যক্তিগত উন্নয়নকে কীভাবে দেখার চেষ্টা করা উচিত। করোনা পরবর্তী নতুন পৃথিবী গড়ার ক্ষেত্রে আমাদের চারপাশের  সিরিয়াস সমস্যাকে কীভাবে এড্রেস করলে ভালো হতে পারে। বাংলাদেশ  তথা পৃথিবীকে ধনী হিসেবে দেখার ক্ষেত্রে নতুন প্রজন্মের কীভাবে জ্ঞান, বুদ্ধিমত্তা এবং যোগ্যতা নিরুপণ করা উচিত। 

অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, বর্তমান করোনাকালীন রাষ্ট্রনীতির সঙ্গে অর্থনীতি এক গভীর সংকটের দিকে ধাবমান। এর নেপথ্যে কাজ করেছে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক মুনাফা, সমস্যা সমাধানে সমন্বয়ে দুর্বলতা, রাজনৈতিক আদর্শের দ্বন্দ্ব, সিভিল সোসাইটির অনুপস্থিত এবং সমাজ গঠনে গণমানুষের একাগ্রতা; কারণ মানুষ অনিশ্চয়তায় ভুগছে। এসব সমস্যার সমাধান করা জরুরি, তা বের করতে হবে আমাদের, সিভিল সোসাইটির এবং নতুন প্রজন্মের ঠিক করতে হবে, তারা কী ধরনের পৃথিবীকে দেখতে চায়।
 
এছাড়াও অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূস আলোচনায় খুব পরিষ্কারভাবে বুঝাতে চেয়েছেন যে, সুযোগের অভাবে পৃথিবীর বেশির ভাগ মানুষ তাদের জন্মগত পটেনশিয়ালিটি নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তাই মানুষের জ্ঞান, বুদ্ধিমত্তা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে সমাজের সকল নাগরিকদের সমান সুযোগ সৃষ্টি করার মাধ্যমেই বাংলাদেশকে ধনী হিসেবে দেখা তথা টেকসই অর্থনীতির চাকা সচল রাখা যেতে পারে। 

এছাড়া তার আলোচনায়  উঠে এসেছে- আমাদের সমাজ, সংস্কৃতি এবং প্রত্যহ জীবন গঠনে ভিশনারী নেতৃত্ব কেমন ভূমিকা পালন করে থাকে। ভার্চুয়াল আলোচনায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে জুমের মাধ্যমে বাংলাদেশি বিজ্ঞানী যারা সরাসরি অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে প্রশ্নপর্বে উপস্থিত হতে পেরেছিলেন- ড.তাহমিয়া খানম,  ড. একেএম সাইফুল্লাহ, ড. জহিরুল হক, ড.কামরুল হোসেন, ড.খন্দকার আকতারুজ্জামান তাপস, ড. শের-ই- খোদা, ড. রফিকুল হায়দার, ড. আনিসুর রহমান ফারুক, মো. আব্দুল হাই, ড. মো. সালাউদ্দিন আহমেদ, ড.মুফতী মাহমুদ, ড. ইব্রাহিম খলিল, ড. আরিফুর রহমান, ড. মুহিদুল ইসলাম খান, ড. মো. হাফিজুল ইসলাম রবিন, ড. মোহাম্মদ আজিমুদ্দিন, ড. মুনজুর আলম, ড. জিএম আতিকুর রহমান, ড. এএইচএম সামসুজ্জোহা, ড. ফিরোজ খান, ড. রকন উদ্দিন, ড. রবিউল ইসলাম, ড. সাইদ মাহমুদ খান, ড.সাকির হোসেন, ড. এএইচএম সামসুজ্জোহা, ড. গোলাম মো. সারোয়ার, ড. কামরুল হাসান, ড. এসএম হারুন-অর-রশিদ, ড. লেমন শরীফ, ড. সৈয়দা সাকিরা হাসান, ড. অসীম কর, ড. এসএম সফিকুল আলম, ড. আশরাফুল আলম, ড. মো.  সানাউল হক, ড. মো. করিম উল্লাহ, ড. কাজি শামিম, ড. ইয়াছিনুর রহমান, ড. নাজমুল ইসলাম এবং  ড. মো. মঞ্জুরে মওলা (মুঞ্জুর)। 

অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনূসের সার্বিক সুস্থ, সুন্দর ও দীর্ঘায়ু জীবন কামনা করে ৫৫ মিনিট ব্যাপ্তি ভার্চুয়াল আলোচনা সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন