মাদ্রিদে শারদীয় দুর্গোৎসবে প্রবাসীদের মিলনমেলা
jugantor
মাদ্রিদে শারদীয় দুর্গোৎসবে প্রবাসীদের মিলনমেলা

  কবির আল মাহমুদ, স্পেন থেকে  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৪:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে পালিত হলো বাঙালি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গাপূজা। বাঙালি অধ্যুষিত লাভাপিয়েসে আলাদা দুটি অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পাঁচ দিনব্যাপী এ দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ এ ধর্মীয় উৎসবে বাংলাদেশি ছাড়াও নেপাল ও ভারতের পশ্চিম বাংলার অনেক প্রবাসী অংশ নিচ্ছেন। এবার দুর্গাপূজা উপলক্ষে মাদ্রিদের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকা লাভাপিয়েসের পাশে খেসুস-ই মারিয়া রোডের বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন হলরুমে ও কায়ে লাফে রোডের দুটি হলে আলাদা দুটি পূজামণ্ডপ তৈরি করা হয়। বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে এ পূজামণ্ডপ আরাধনার পাশাপাশি ছিল মিলনমেলার ক্ষেত্রও। আরও দুটি স্থানে অস্থায়ী পূজামণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজার আয়োজন করেন মাদ্রিদে বসবাসরত বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায়।

মাদ্রিদ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী উৎসবমুখর পরিবেশে প্রবাসে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন করতে পেরে খুবই উৎফুল্ল প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

১৪ অক্টোবর বিকালে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ। পরিদর্শনকালে তিনি সবাইকে শারদীয় শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, “বাংলাদেশকে একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠিত করতে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে থাকায় এ বছর পূজামণ্ডপের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে।”

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন- বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয়প্রধান এটিএম আব্দুর রউফ মণ্ডল। সার্বজনীন দুর্গাপূজা পরিষদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূতকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়। এ সময় বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতাদের মধ্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি ও স্পেন আওয়ামী লীগের সভাপতি এসআরআইএস রবিন, সাধারণ সম্পাদক রিজভী আলম, সহ-সভাপতি একরামুজ্জামান কিরণ, তোতা কাজী, নারায়ণগঞ্জ জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সহ-সভাপতি আবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক খসরু হাসান প্রমুখ।

স্পেনে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত শ্রী সঞ্জয় ভর্মাও ১৩ অক্টোবর সকালে মাদ্রিদের সবচেয়ে বড় সার্বজনীন দুর্গাপূজা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, দশমীই মূলত দুর্গাপূজার প্রধান অনুষঙ্গ। তবে দেবীদুর্গার বিদায় অর্থাৎ স্বামীগৃহে গমনের পাঁচ দিন পরেই লক্ষ্মীপূজার মধ্য দিয়ে আবার পিতৃগৃহে ফিরে আসবেন। মানুষের মনের আসুরিক প্রবৃত্তি যেমন- কাম, ক্রোধ, হিংসা, লালসা বিসর্জন দেওয়াই বিজয়া দশমীর মূল তাৎপর্য। ভারতের রাষ্ট্রদূত, বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতা ও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা আয়োজনের প্রশংসা করেন।

এ সময় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি ও স্পেন আওয়ামী লীগের সভাপতি এসআরআইএস রবিন, সহ-সভাপতি একরামুজ্জামান কিরণ, সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী, উত্তম মিত্র, মান্না চক্রবর্তী, শ্যামল তালুকদার, গৌরিক প্রভাত চক্রবর্তী, শ্যামল দেব নাথ, শংকর রায়, আপন মণ্ডল, সুমন শীল, শংকর পোদ্দার, জুয়েল বদ্ধ, জয় সাহা, দিলীপ সূত্র ধর উপস্থিত ছিলেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়।

মাদ্রিদ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী বলেন, দেশের মতো আনন্দঘন পরিবেশ না থাকলেও এখানে আমরা নিজেদের মধ্যেই এ উৎসবকে ভাগাভাগি করে নিয়েছি।

পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের হলরুমে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের জন্য গান পরিবেশন করেন প্রবাসী শিল্পীরা।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

মাদ্রিদে শারদীয় দুর্গোৎসবে প্রবাসীদের মিলনমেলা

 কবির আল মাহমুদ, স্পেন থেকে 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে পালিত হলো বাঙালি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গাপূজা। বাঙালি অধ্যুষিত লাভাপিয়েসে আলাদা দুটি অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পাঁচ দিনব্যাপী এ দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়।
 
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ এ ধর্মীয় উৎসবে বাংলাদেশি ছাড়াও নেপাল ও ভারতের পশ্চিম বাংলার অনেক প্রবাসী অংশ নিচ্ছেন। এবার দুর্গাপূজা উপলক্ষে মাদ্রিদের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকা লাভাপিয়েসের পাশে খেসুস-ই মারিয়া রোডের বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন হলরুমে ও কায়ে লাফে রোডের দুটি হলে আলাদা দুটি পূজামণ্ডপ তৈরি করা হয়। বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে এ পূজামণ্ডপ আরাধনার পাশাপাশি ছিল মিলনমেলার ক্ষেত্রও। আরও দুটি স্থানে অস্থায়ী পূজামণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজার আয়োজন করেন মাদ্রিদে বসবাসরত বাংলাদেশি হিন্দু সম্প্রদায়। 

মাদ্রিদ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী উৎসবমুখর পরিবেশে প্রবাসে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন করতে পেরে খুবই উৎফুল্ল প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

১৪ অক্টোবর বিকালে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারওয়ার মাহমুদ। পরিদর্শনকালে তিনি সবাইকে শারদীয় শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, “বাংলাদেশকে একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠিত করতে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে থাকায় এ বছর পূজামণ্ডপের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে।” 

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন- বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয়প্রধান এটিএম আব্দুর রউফ মণ্ডল। সার্বজনীন দুর্গাপূজা পরিষদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূতকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়। এ সময় বাংলাদেশ কমিউনিটি নেতাদের মধ্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি ও স্পেন আওয়ামী লীগের সভাপতি এসআরআইএস রবিন, সাধারণ সম্পাদক রিজভী আলম, সহ-সভাপতি একরামুজ্জামান কিরণ, তোতা কাজী, নারায়ণগঞ্জ জেলা অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সহ-সভাপতি আবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক খসরু হাসান প্রমুখ।

স্পেনে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত শ্রী সঞ্জয় ভর্মাও ১৩ অক্টোবর সকালে মাদ্রিদের সবচেয়ে বড় সার্বজনীন দুর্গাপূজা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, দশমীই মূলত দুর্গাপূজার প্রধান অনুষঙ্গ। তবে দেবীদুর্গার বিদায় অর্থাৎ স্বামীগৃহে গমনের পাঁচ দিন পরেই লক্ষ্মীপূজার মধ্য দিয়ে আবার পিতৃগৃহে ফিরে আসবেন। মানুষের মনের আসুরিক প্রবৃত্তি যেমন- কাম, ক্রোধ, হিংসা, লালসা বিসর্জন দেওয়াই বিজয়া দশমীর মূল তাৎপর্য। ভারতের রাষ্ট্রদূত, বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতা ও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা আয়োজনের প্রশংসা করেন।

এ সময় বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সাবেক সভাপতি ও স্পেন আওয়ামী লীগের সভাপতি এসআরআইএস রবিন, সহ-সভাপতি একরামুজ্জামান কিরণ, সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী, উত্তম মিত্র, মান্না চক্রবর্তী, শ্যামল তালুকদার, গৌরিক প্রভাত চক্রবর্তী, শ্যামল দেব নাথ, শংকর রায়, আপন মণ্ডল, সুমন শীল, শংকর পোদ্দার, জুয়েল বদ্ধ, জয় সাহা, দিলীপ সূত্র ধর উপস্থিত ছিলেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয়।

মাদ্রিদ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি  স্বপন কুমার সাহা ও সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চক্রবর্তী বলেন, দেশের মতো আনন্দঘন পরিবেশ না থাকলেও এখানে আমরা নিজেদের মধ্যেই এ উৎসবকে ভাগাভাগি করে নিয়েছি।

পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের হলরুমে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের জন্য গান পরিবেশন করেন প্রবাসী শিল্পীরা।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন