নিউইয়র্কে কাউন্সিলওম্যান প্রার্থী শাহানা হানিফ গ্রেফতার
jugantor
নিউইয়র্কে কাউন্সিলওম্যান প্রার্থী শাহানা হানিফ গ্রেফতার

  কৌশলী ইমা, যুক্তরাষ্ট্র থেকে  

২৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫৬:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির বাংলাদেশি কাউন্সিলওম্যান প্রার্থী শাহানা হানিফসহ তিনজন রাজনৈতিক কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্থানীয় সময় সোমবার (২৫ অক্টোবর) সিটি হলের বাইরে রাস্তা অবরুদ্ধ করে ট্যাক্সি ড্রাইভারদের ঋণ বেলআউট পরিকল্পনার প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন তারা। ব্রডওয়েতে ক্ষুব্ধ ট্যাক্সি ড্রাইভারদের আন্দোলন ও উত্তেজনাপূর্ণ সমাবেশে সময় কফের মধ্যে থাপ্পড় মারার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন ট্যাক্সি ড্রাইভারও রয়েছেন।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রয়েছেন- ব্রুকলিন কাউন্সিলম্যান কার্লোস মেনচাকা, ম্যানহাটনের অ্যাসেম্বলিম্যান হার্ভে এপস্টেইন এবং সিটির ৩৯ ডিস্ট্রিকের কাউন্সিলর প্রার্থী শাহানা হানিফ এবং কয়েকজন ট্যাক্সি ট্রাইভার। নিউইয়র্ক পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতারের বিষয় উল্লেখ করেননি।

মেনচাকার ডেপুটি চিফ অব স্টাফ সেজার ভার্গাস বলেন, ক্ষুব্ধ ট্যাক্সি ড্রাইভারদের উত্তেজনাপূর্ণ সমাবেশটি ব্রডওয়েতে ছড়িয়ে পড়ে। সমাবেশের সময় কফের মধ্যে থাপ্পড় মারা হয়েছে। ট্যাক্সি মেডেলিয়নের ঋণে দায়ে অনেকেই আত্মহত্যা করেছেন বলে সমাবেশ থেকে দাবি করেন আন্দোলনরীরা। তাদের এ দাবিকে মিথ্যা বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। নিউইয়র্ক ট্যাক্সি ওয়ার্কার্স অ্যালায়েন্সের মতে একজন ক্যাব চালকের গড় ঋণ সাড়ে ৫ লাখ ডলার।

সাত মাস আগে ডি ব্লাসিও ঋণে থাকা ট্যাক্সি মেডেলিয়ন মালিকদের জন্য ৬৫ মিলিয়ন ডলারের ত্রাণ তহবিল ঘোষণা করেছিলেন। উবার এবং লিফটের মতো রাইডশেয়ার কোম্পানিগুলো নিউইয়র্ক সিটি এবং সারা দেশের অন্যান্য শহরে পরিবহন ব্যবসার মডেল পরিবর্তন করার পরেও ট্যাক্সি মেডেলিয়নের মূল্য বৃদ্ধিতে ভূমিকার জন্য নিউইয়র্ক বেশ আলোচিত হয়েছে।

মেয়র ডি ব্লাসিও বলেছেন- তিনি ড্রাইভারদের প্রতি সহানুভূতি হবেন। তারা একটি কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছেন। তবে তার প্রশাসনের ত্রাণ কর্মসূচিকে রক্ষা করেছেন।

শহর কর্তৃপক্ষ বলেছেন যে, ১৪৪ মেডেলিয়ন মালিকরা মোট ১৮ দশমিক ৭ মিলিয়ন ঋণ মওকুফ পেয়েছেন। মেয়র অনুমান করেছেন যে এ উদ্যোগ থেকে স্বল্পমেয়াদে প্রায় ১ হাজার চালক উপকৃত হতে পারেন। ডি ব্লাসিও বলেন, চালকদের ওপর সেই চাপ কমানোর জন্য এটি এখনই সত্যিকারের প্রভাব ফেলছে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

নিউইয়র্কে কাউন্সিলওম্যান প্রার্থী শাহানা হানিফ গ্রেফতার

 কৌশলী ইমা, যুক্তরাষ্ট্র থেকে 
২৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির বাংলাদেশি কাউন্সিলওম্যান প্রার্থী শাহানা হানিফসহ তিনজন রাজনৈতিক কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্থানীয় সময় সোমবার (২৫ অক্টোবর) সিটি হলের বাইরে রাস্তা অবরুদ্ধ করে ট্যাক্সি ড্রাইভারদের ঋণ বেলআউট পরিকল্পনার প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন তারা। ব্রডওয়েতে ক্ষুব্ধ ট্যাক্সি ড্রাইভারদের আন্দোলন ও উত্তেজনাপূর্ণ সমাবেশে সময় কফের মধ্যে থাপ্পড় মারার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন ট্যাক্সি ড্রাইভারও রয়েছেন।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রয়েছেন- ব্রুকলিন কাউন্সিলম্যান কার্লোস মেনচাকা, ম্যানহাটনের অ্যাসেম্বলিম্যান হার্ভে এপস্টেইন এবং সিটির ৩৯ ডিস্ট্রিকের কাউন্সিলর প্রার্থী শাহানা হানিফ এবং কয়েকজন ট্যাক্সি ট্রাইভার। নিউইয়র্ক পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতারের বিষয় উল্লেখ করেননি।

মেনচাকার ডেপুটি চিফ অব স্টাফ সেজার ভার্গাস বলেন, ক্ষুব্ধ ট্যাক্সি ড্রাইভারদের উত্তেজনাপূর্ণ সমাবেশটি ব্রডওয়েতে ছড়িয়ে পড়ে। সমাবেশের সময় কফের মধ্যে থাপ্পড় মারা হয়েছে। ট্যাক্সি মেডেলিয়নের ঋণে দায়ে অনেকেই আত্মহত্যা করেছেন বলে সমাবেশ থেকে দাবি করেন আন্দোলনরীরা। তাদের এ দাবিকে মিথ্যা বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। নিউইয়র্ক ট্যাক্সি ওয়ার্কার্স অ্যালায়েন্সের মতে একজন ক্যাব চালকের গড় ঋণ সাড়ে ৫ লাখ ডলার।

সাত মাস আগে ডি ব্লাসিও ঋণে থাকা ট্যাক্সি মেডেলিয়ন মালিকদের জন্য ৬৫ মিলিয়ন ডলারের ত্রাণ তহবিল ঘোষণা করেছিলেন। উবার এবং লিফটের মতো রাইডশেয়ার কোম্পানিগুলো নিউইয়র্ক সিটি এবং সারা দেশের অন্যান্য শহরে পরিবহন ব্যবসার মডেল পরিবর্তন করার পরেও ট্যাক্সি মেডেলিয়নের মূল্য বৃদ্ধিতে ভূমিকার জন্য নিউইয়র্ক বেশ আলোচিত হয়েছে। 

মেয়র ডি ব্লাসিও বলেছেন- তিনি ড্রাইভারদের প্রতি সহানুভূতি হবেন। তারা একটি কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছেন। তবে তার প্রশাসনের ত্রাণ কর্মসূচিকে রক্ষা করেছেন। 

শহর কর্তৃপক্ষ বলেছেন যে, ১৪৪ মেডেলিয়ন মালিকরা মোট ১৮ দশমিক ৭ মিলিয়ন ঋণ মওকুফ পেয়েছেন। মেয়র অনুমান করেছেন যে এ উদ্যোগ থেকে স্বল্পমেয়াদে প্রায় ১ হাজার চালক উপকৃত হতে পারেন। ডি ব্লাসিও বলেন, চালকদের ওপর সেই চাপ কমানোর জন্য এটি এখনই সত্যিকারের প্রভাব ফেলছে।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন