ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি
jugantor
ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি

  রাজীব আহসান, কানাডা থেকে  

২০ নভেম্বর ২০২১, ০০:৩৪:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বড় ধরনের বন্যা ও ভূমিধসের জেরে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার সেখানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। ইতোমধ্যে ফেডারেল সরকার ঘোষণা দিয়েছে, সেখানে বড় ধরনের সহায়তা দেবে।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত একজনের প্রাণহানির ঘটনা জানা যায়, বানের পানিতে রাস্তাঘাট ভেঙে গেছে এবং পার্বত্য অঞ্চলের লোকজন আটকে পড়েছে। অন্তত তিনজন নিখোঁজ রয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম। কানাডার পাবলিক সেফটি মিনিস্টার মার্কো মেনডিসিনোর বরাত দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়।

ব্রিটিশ কলম্বিয়া প্রিমিয়ার জন হরগান বলেছেন, ৫০০ বছরে এ ধরনের ঘটনা একবার ঘটে। সামনের দিনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেছেন, আমরা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি। তবে খাদ্য ও ওষুধ স্বাস্থ্য ও জরুরি কর্মীরা পৌঁছাবেন। কাউকে খাদ্য মজুদ না করার অনুরোধ করেছেন জন হরগান।
এরই মধ্যে হেলিকপ্টার ব্যবহার করে খাদ্য ও ওষুধ প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় জরুরি অবস্থা জারি

 রাজীব আহসান, কানাডা থেকে 
২০ নভেম্বর ২০২১, ১২:৩৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বড় ধরনের বন্যা ও ভূমিধসের জেরে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার সেখানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। ইতোমধ্যে ফেডারেল সরকার ঘোষণা দিয়েছে, সেখানে বড় ধরনের সহায়তা দেবে।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত একজনের প্রাণহানির ঘটনা জানা যায়, বানের পানিতে রাস্তাঘাট ভেঙে গেছে এবং পার্বত্য অঞ্চলের লোকজন আটকে পড়েছে। অন্তত তিনজন নিখোঁজ রয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম। কানাডার পাবলিক সেফটি মিনিস্টার মার্কো মেনডিসিনোর বরাত দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়।

ব্রিটিশ কলম্বিয়া প্রিমিয়ার জন হরগান বলেছেন, ৫০০ বছরে এ ধরনের ঘটনা একবার ঘটে। সামনের দিনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেছেন, আমরা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি। তবে খাদ্য ও ওষুধ স্বাস্থ্য ও জরুরি কর্মীরা পৌঁছাবেন। কাউকে খাদ্য মজুদ না করার অনুরোধ করেছেন জন হরগান।
এরই মধ্যে হেলিকপ্টার ব্যবহার করে খাদ্য ও ওষুধ প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন