কোরিয়ায় ইপিএস বাংলার অ্যাওয়ার্ড ও উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম
jugantor
কোরিয়ায় ইপিএস বাংলার অ্যাওয়ার্ড ও উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম

  অসীম বিকাশ বড়ুয়া, দক্ষিণ কোরিয়া থেকে  

২৫ নভেম্বর ২০২১, ০১:১১:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ কোরিয়াতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের জনপ্রিয় সংগঠন ইপিএস বাংলা কমিউনিটির উদ্যোগে রাজধানী সিউলের অন্তর্গত কোরিয়া ফরেন ওয়ার্কার্স সাপোর্ট সেন্টারে ইপিএস অ্যাওয়ার্ড ও উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম ২০২১ অনুষ্ঠিত হয় ২১ নভেম্বর রোববার।
স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে আগত অতিথিদের করোনাকালীন সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। পরে বাংলাদেশ এবং কোরিয়ার জাতীয় সংগীত গাওয়ার মাধ্যমে দুই দেশের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রথম পর্বের সঞ্চালনা করেন মো. নুর আলম মোল্লা ও জয় জাহাঙ্গীর। ইপিএস বাংলা কমিউনিটি ইন কোরিয়ার সভাপতি ফারুক আহমেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- উপদেষ্টা আমিনুল ইসলাম, ফরহাদ হোসেন এবং সিউল ফরেন সাপোর্ট সেন্টারের প্রতিনিধি লি ইয়ং হুন খোয়াজাং।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে অ্যাওয়ার্ড প্রদান প্রোগ্রাম পরিচালনা করেন নয়ন কুমার দে। ইপিএস বাংলা কমিউনিটির পক্ষ থেকে এবারের অনুষ্ঠানে বেস্ট ইপিএস পারসন, বেস্ট রেমিটেন্স সেন্ডার, উদ্যোক্তাসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মোট ১১ জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

২০২১-এর সেরা ইপিএস কর্মী ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, মো. রাসেল, মো. দেলোয়ার হোসেন বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন। সর্বোচ্চ পরিমাণে রেমিটেন্স প্রেরণের জন্য ২০২১-এর বেস্ট রেমিটেন্স সেন্ডার ক্যাটাগরিতে আমির হামজা, শেখ টিটুল ও মো. মেহেরাব হোসেন বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

সব আবেদনকারীর মধ্য থেকে ব্যবসায়ের আওতা ও পরিধি বিবেচনা করে ২০২১-এর বেস্ট ইপিএস উদ্যোক্তা ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, মো. মাজহারুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

এছাড়াও ২০২১-এর বিশেষ সম্মাননায় কোরিয়ান নাগরিকত্ব অর্জনকারী হিসেবে কামরুল হাসান রাজ এবং সেরা সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিডি হাউজের স্বত্বাধিকারী রাসেল বিন সোলায়মান বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রতিনিধি ফাহাদ আব্দুল্লাহ, আনসান ফরেন সাপোর্ট সেন্টারের বাংলাদেশি প্রতিনিধি সুমি বড়ুয়াসহ কোরিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতা এবং কোরিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে নিবন্ধনকৃত সর্বমোট ১১০ জন বাংলাদেশি তরুণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা নতুন উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে এজেন্ট ব্যাংকিং সম্পর্কিত প্রেজেন্টেশন, অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কিত প্রেজেন্টেশন, সেই সঙ্গে কোরিয়ায় বিজনেস ভিসা অর্জনের যোগ্যতা ও নিয়ম-নীতি সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে ইপিএস বাংলা কমিউনিটি ইন কোরিয়ার উদ্যোগে উদ্যোক্তা বিষয়ক ট্রেনিং কার্যক্রম চালু করার বিষয়ে তথ্য ও উপাত্ত তুলে ধরা হয়। পরে উপস্থিত সবাইকে ইপিএস বাংলার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠান আয়োজনের স্পন্সর হিসেবে সহযোগিতায় ছিল জি-মানি ট্রান্স, বিডি হাউস, এস এন ফুড, মাই ট্রিপ কে আর, অলটপ শিপিং ও কোরিয়া ফরেন ওয়ার্কার্স সাপোর্ট সেন্টার। এরপর কমিউনিটির সভাপতি ফারুক আহমেদের সমাপনী বক্তব্য এবং সব অতিথিকে দেশীয় স্বাদের সুস্বাদু মধ্যাহ্নভোজন পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

কোরিয়ায় ইপিএস বাংলার অ্যাওয়ার্ড ও উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম

 অসীম বিকাশ বড়ুয়া, দক্ষিণ কোরিয়া থেকে 
২৫ নভেম্বর ২০২১, ০১:১১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ কোরিয়াতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের জনপ্রিয় সংগঠন ইপিএস বাংলা কমিউনিটির উদ্যোগে রাজধানী সিউলের অন্তর্গত কোরিয়া ফরেন ওয়ার্কার্স সাপোর্ট সেন্টারে ইপিএস অ্যাওয়ার্ড ও উদ্যোক্তা প্রোগ্রাম ২০২১ অনুষ্ঠিত হয় ২১ নভেম্বর রোববার।
স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে আগত অতিথিদের করোনাকালীন সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। পরে বাংলাদেশ এবং কোরিয়ার জাতীয় সংগীত গাওয়ার মাধ্যমে দুই দেশের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রথম পর্বের সঞ্চালনা করেন মো. নুর আলম মোল্লা ও জয় জাহাঙ্গীর। ইপিএস বাংলা কমিউনিটি ইন কোরিয়ার সভাপতি ফারুক আহমেদের  সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- উপদেষ্টা আমিনুল ইসলাম, ফরহাদ হোসেন এবং সিউল ফরেন সাপোর্ট সেন্টারের প্রতিনিধি লি ইয়ং হুন খোয়াজাং। 

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে অ্যাওয়ার্ড প্রদান প্রোগ্রাম পরিচালনা করেন নয়ন কুমার দে। ইপিএস বাংলা কমিউনিটির পক্ষ থেকে এবারের অনুষ্ঠানে বেস্ট ইপিএস পারসন, বেস্ট রেমিটেন্স সেন্ডার, উদ্যোক্তাসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মোট ১১ জনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

২০২১-এর সেরা ইপিএস কর্মী ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, মো. রাসেল, মো. দেলোয়ার হোসেন বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন। সর্বোচ্চ পরিমাণে রেমিটেন্স প্রেরণের জন্য ২০২১-এর বেস্ট রেমিটেন্স সেন্ডার ক্যাটাগরিতে আমির হামজা, শেখ টিটুল ও মো. মেহেরাব হোসেন বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

সব আবেদনকারীর মধ্য থেকে ব্যবসায়ের আওতা ও পরিধি বিবেচনা করে ২০২১-এর বেস্ট ইপিএস উদ্যোক্তা ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, মো. মাজহারুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

এছাড়াও ২০২১-এর বিশেষ সম্মাননায় কোরিয়ান নাগরিকত্ব অর্জনকারী হিসেবে কামরুল হাসান রাজ এবং সেরা সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিডি হাউজের স্বত্বাধিকারী রাসেল বিন সোলায়মান বিজয়ী হিসেবে সম্মাননা গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রতিনিধি ফাহাদ আব্দুল্লাহ,  আনসান ফরেন সাপোর্ট সেন্টারের বাংলাদেশি প্রতিনিধি সুমি বড়ুয়াসহ কোরিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতা এবং কোরিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে নিবন্ধনকৃত সর্বমোট ১১০ জন বাংলাদেশি তরুণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
 
অনুষ্ঠানে বক্তারা নতুন উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে এজেন্ট ব্যাংকিং সম্পর্কিত প্রেজেন্টেশন, অনলাইন ব্যবসা সম্পর্কিত প্রেজেন্টেশন, সেই সঙ্গে কোরিয়ায় বিজনেস ভিসা অর্জনের যোগ্যতা ও নিয়ম-নীতি সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে ইপিএস বাংলা কমিউনিটি ইন কোরিয়ার উদ্যোগে উদ্যোক্তা বিষয়ক ট্রেনিং কার্যক্রম চালু করার বিষয়ে তথ্য ও উপাত্ত তুলে ধরা হয়। পরে উপস্থিত সবাইকে ইপিএস বাংলার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়। 

উক্ত অনুষ্ঠান আয়োজনের স্পন্সর হিসেবে সহযোগিতায় ছিল জি-মানি ট্রান্স, বিডি হাউস, এস এন ফুড, মাই ট্রিপ কে আর, অলটপ শিপিং ও কোরিয়া ফরেন ওয়ার্কার্স সাপোর্ট সেন্টার। এরপর কমিউনিটির সভাপতি ফারুক আহমেদের সমাপনী বক্তব্য এবং সব অতিথিকে দেশীয় স্বাদের সুস্বাদু মধ্যাহ্নভোজন পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন