হারানো টাকা ফিরে পেয়ে বাংলাদেশি হাজিকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন
jugantor
হারানো টাকা ফিরে পেয়ে বাংলাদেশি হাজিকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন

  শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:৩০:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

হজে গিয়ে ৭ লাখ ফ্রাংক কুড়িয়ে পেয়ে মালিককে ফিরিয়ে দিলেন বাংলাদেশি হাজি আব্দুর রহমান।

আবদুর রহমান ঢাকার ডেমরার বাসিন্দা। আর টাকার মালিক পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর নাগরিক। তারা দুইজন বর্তমানে মদিনায় অবস্থান করছেন।

বাংলাদেমি এই হাজি গত সোমবার মদিনা শরীফে একটি বৈদেশিক মুদ্রার বান্ডিল কুড়িয়ে পান। যেগুলো ছিল পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর মুদ্রা ফ্রাংক। তিনি হিসাব করে দেখেন সেখানে ৭ লাখ ফ্রাংক রয়েছে।

অতঃপর আব্দুর রহমান "সাম আফ্রিকান ফ্রাংক ফাউন্ড" অর্থাৎ কিছু আফ্রিকান ফ্রাংক পাওয়া গেছে লেখা কাগজ হাতে মসজিদে নববীর আশপাশে কুড়িয়ে পাওয়া ফ্রাংকগুলোর প্রকৃত মালিককে খোঁজ করতে থাকেন।

এদিকে ফ্রাংকগুলো হারিয়ে হজ করতে আসা আফ্রিকান ব্যক্তিটিও তার হারানো অর্থের খোঁজ করতে থাকেন। গতকাল তিনি আব্দুর রহমানকে "সাম আফ্রিকান ফ্রাংক ফাউন্ড" লেখা কাগজ হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে প্রমাণ করেন যে তিনিই সেই ফ্রাংকগুলোর প্রকৃত মালিক।

আব্দুর রহমান প্রমাণ পেয়ে সেই ফ্রাংকের বান্ডিল তার প্রকৃত মালিকের হাতে তুলে দেন। নিজের হারিয়ে যাওয়া অর্থ ঠিকভাবে ফিরে পেয়ে সেই আফ্রিকান ব্যক্তি আনন্দের আতিশয্যে আব্দুর রহমানকে জড়িয়ে ধরেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

হারানো টাকা ফিরে পেয়ে বাংলাদেশি হাজিকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন

 শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:৩০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হজে গিয়ে ৭ লাখ ফ্রাংক কুড়িয়ে পেয়ে মালিককে ফিরিয়ে দিলেন বাংলাদেশি হাজি আব্দুর রহমান।

আবদুর রহমান ঢাকার ডেমরার বাসিন্দা। আর টাকার মালিক পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর নাগরিক। তারা দুইজন বর্তমানে মদিনায় অবস্থান করছেন।

বাংলাদেমি এই হাজি গত সোমবার মদিনা শরীফে একটি বৈদেশিক মুদ্রার বান্ডিল কুড়িয়ে পান। যেগুলো ছিল পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর মুদ্রা ফ্রাংক। তিনি হিসাব করে দেখেন সেখানে ৭ লাখ ফ্রাংক রয়েছে।

অতঃপর আব্দুর রহমান "সাম আফ্রিকান ফ্রাংক ফাউন্ড" অর্থাৎ কিছু আফ্রিকান ফ্রাংক পাওয়া গেছে লেখা কাগজ হাতে মসজিদে নববীর আশপাশে কুড়িয়ে পাওয়া ফ্রাংকগুলোর প্রকৃত মালিককে খোঁজ করতে থাকেন।

এদিকে ফ্রাংকগুলো হারিয়ে হজ করতে আসা আফ্রিকান ব্যক্তিটিও তার হারানো অর্থের খোঁজ করতে থাকেন। গতকাল তিনি আব্দুর রহমানকে "সাম আফ্রিকান ফ্রাংক ফাউন্ড" লেখা কাগজ হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে প্রমাণ করেন যে তিনিই সেই ফ্রাংকগুলোর প্রকৃত মালিক।

আব্দুর রহমান প্রমাণ পেয়ে সেই ফ্রাংকের বান্ডিল তার প্রকৃত মালিকের হাতে তুলে দেন। নিজের হারিয়ে যাওয়া অর্থ ঠিকভাবে ফিরে পেয়ে সেই আফ্রিকান ব্যক্তি আনন্দের আতিশয্যে আব্দুর রহমানকে জড়িয়ে ধরেন।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন