নাগরিক শান্তি
jugantor
নাগরিক শান্তি

  শরীফুল আলম, নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে  

০৭ আগস্ট ২০২২, ০১:৩৮:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

আভিজাত্য আর আলোর বিচ্ছুরণ এক কথা নয়
এই যেমন ধরুন
এই শীতপ্রধান দেশে এখন শীত নেই
শিশির নেই, তাই তুলনাও নেই
যুগল প্রেমের কথাই যদি বলি
যৌবন শেষ হবার আগেই
একঝাঁক পায়রা উড়ে যায় এখন সমান্তরাল
ঐচ্ছিক ভুলগুলো রেখে যায় তারা গোপন দুপুরে
এই এক বিতর্কিত প্রেম
নীলচোখা আইরিশ মেয়ের পরনে বনেদী সভ্যতা
তারও মনেতে হলুদ স্বপ্ন
সমুদ্রে তীর ভাঙ্গা দ্বীপ
অথচ মনেতে হীরক রাজ্যের আনন্দধারা।
ভালোবাসায় এখন আর সেই আগের মতো পরিধি নেই
সবুজ অরণ্য নেই
স্নায়ুতন্ত্রে পিঙ্গল ঋতু নেই
নিথর কোষে বিস্মৃতির ভিউ নেই
এ যেন সব টালমাটাল ভিসুভিয়াস
মুরালকে তারা মিউজিয়াম ভাবে
খোঁপা খোলা পরানে এ যেন এক অশান্তনগর,
স্রোতস্বিনী নদীতে ঝিরিঝিরি বাতাস
হিমেল হাওয়া নেই এখন
কোমল রোদও ওতপেতে থাকে
বিধ্বস্ত নগরীর উপকথায়,
পরজন্মে কিছু মানুষের এখনও বিশ্বাস আছে বলেই
সূর্যাস্ত গায়ে মেখে এখনও তাঁরা নিজ ঠিকানায় ফিরে
অন্ধকারে শরীর ডুবিয়ে এখনও বসে থাকে প্রিয় মানুষের জন্য
আগুণ ধরা শুকনো বাতাস থেকে ভেসে আসে
স্যাঁত স্যাঁত উদ্ভিদ ঘ্রাণ

তবুও রাস্ট ধরা শরীর খুঁজে আরব্যরজনীর হেরেম
রোস্টেড বারবেকিউ হাতে নিয়ে বলে
সব আছে, সব আছে ঠিক আগের মতো,
ঢেউয়ের কাহন, ছায়া ভরা নীল জোছনা
এ কোন গুপ্ত প্রাসাদ নয় কিম্বা
লোকালয়হীন তোমার শাড়ির আঁচল
এ যেন শতভাগ স্বত্ব ছেড়ে দেয়া তোমার স্বাধীনতা
জং ধরা ফাটলে আমার অক্সাইড প্রলাপ
এ যেন আমাদের একক মঞ্চ নাট্যে মুহুর্মুহু করতালি
মনে হচ্ছে তুমি আমি ইলেক্ট্রন জোড় সংখ্যার সমযোগী
দুই ঠোঁটের আড়ালে থাকা আমাদের নাগরিক শান্তি ।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

নাগরিক শান্তি

 শরীফুল আলম, নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে 
০৭ আগস্ট ২০২২, ০১:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আভিজাত্য আর আলোর বিচ্ছুরণ এক কথা নয় 
এই যেমন ধরুন 
এই শীতপ্রধান দেশে এখন শীত নেই 
শিশির নেই, তাই তুলনাও নেই 
যুগল প্রেমের কথাই যদি বলি 
যৌবন শেষ হবার আগেই 
একঝাঁক পায়রা উড়ে যায় এখন সমান্তরাল 
ঐচ্ছিক ভুলগুলো রেখে যায় তারা গোপন দুপুরে 
এই এক বিতর্কিত প্রেম 
নীলচোখা আইরিশ মেয়ের পরনে বনেদী সভ্যতা 
তারও মনেতে হলুদ স্বপ্ন 
সমুদ্রে তীর ভাঙ্গা দ্বীপ
অথচ মনেতে  হীরক রাজ্যের আনন্দধারা। 
ভালোবাসায় এখন আর সেই আগের মতো পরিধি নেই 
সবুজ অরণ্য নেই 
স্নায়ুতন্ত্রে পিঙ্গল ঋতু নেই 
নিথর কোষে বিস্মৃতির ভিউ নেই 
এ যেন সব টালমাটাল ভিসুভিয়াস 
মুরালকে তারা মিউজিয়াম  ভাবে
খোঁপা খোলা পরানে এ যেন এক অশান্তনগর,  
স্রোতস্বিনী নদীতে ঝিরিঝিরি বাতাস 
হিমেল হাওয়া নেই এখন 
কোমল রোদও ওতপেতে থাকে 
বিধ্বস্ত নগরীর উপকথায়, 
পরজন্মে কিছু মানুষের এখনও বিশ্বাস আছে বলেই
সূর্যাস্ত গায়ে মেখে এখনও তাঁরা নিজ ঠিকানায় ফিরে 
অন্ধকারে শরীর ডুবিয়ে এখনও বসে থাকে প্রিয় মানুষের জন্য 
আগুণ ধরা শুকনো বাতাস থেকে ভেসে আসে
স্যাঁত স্যাঁত উদ্ভিদ ঘ্রাণ 

তবুও রাস্ট ধরা শরীর খুঁজে আরব্যরজনীর হেরেম 
রোস্টেড বারবেকিউ হাতে নিয়ে বলে 
সব আছে,  সব আছে ঠিক আগের মতো,  
ঢেউয়ের কাহন, ছায়া ভরা নীল জোছনা  
এ কোন  গুপ্ত প্রাসাদ নয় কিম্বা 
লোকালয়হীন তোমার শাড়ির আঁচল 
এ যেন শতভাগ স্বত্ব ছেড়ে দেয়া তোমার স্বাধীনতা 
জং ধরা ফাটলে আমার অক্সাইড প্রলাপ 
এ যেন আমাদের একক মঞ্চ নাট্যে মুহুর্মুহু করতালি 
মনে হচ্ছে তুমি আমি ইলেক্ট্রন জোড় সংখ্যার সমযোগী 
দুই ঠোঁটের আড়ালে থাকা আমাদের নাগরিক শান্তি ।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন