মালয়েশিয়ায় ২০২৫ সালের মধ্যে ৩ লাখ দক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ
jugantor
মালয়েশিয়ায় ২০২৫ সালের মধ্যে ৩ লাখ দক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে  

১৭ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৪:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

২০২৫ সালের মধ্যে ৩ লাখ উচ্চ-দক্ষ কাজের সুযোগ তৈরি করবে মালয়েশিয়া। ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক্স (E&E), স্বয়ংচালিত, রাসায়নিক এবং উন্নত উপকরণের পাশাপাশি জীবন বিজ্ঞান এবং চিকিৎসা প্রযুক্তির মতো উচ্চ-প্রভাবিত খাতে এ চাকরির সুযোগ তৈরি হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

দেশটির আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্পের সিনিয়র মন্ত্রী দাতুক সেরি মোহাম্মদ আজমিন আলী বলেছেন, একাডেমি ইন ফ্যাক্টরি (এআইএফ) প্রোগ্রামের মাধ্যমে চলতি বছরেই এসব খাতে ২০ হাজার কাজের সুযোগ তৈরি করা হবে।

সিনিয়র মন্ত্রী বলছেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যাতে মালয়েশিয়াকে বিনিয়োগের গন্তব্যে নিশ্চিত করার জন্য, অত্যন্ত দক্ষ এবং প্রযুক্তিগত প্রতিভা প্রদান করা আমাদের দায়িত্ব। এটি ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সাথে সামঞ্জস্য রেখে দেশের কর্মীবাহিনীর দক্ষতা এবং পুনঃদক্ষতা বা উচ্চতর দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর
দেওয়ার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ; যা ২০৩০ সালের মধ্যে সমস্ত সেক্টরে ৩০ শতাংশ উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করবে। ১৩ আগষ্ট ইয়ুথ কার্নিভাল এবং এআইএফ অনুষ্ঠানে এ আশা ব্যক্ত করেন সিনিয়র মন্ত্রী।

এআইএফ মালয়েশিয়ান প্রোডাক্টিভিটি কর্পোরেশনের (MPC) একটি উদ্যোগ যাতে শ্রমিকের ঘাটতি মেটানো এবং ভবিষ্যৎ-প্রস্তুত কর্মীবাহিনী গড়ে তোলার জন্য স্থানীয় যুবকদের মধ্যে উচ্চ-দক্ষ প্রতিভা বিকাশ করা।

আজমিন বলেন, মালয়েশিয়া একটি উৎপাদনশীল উন্নত দেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং শিল্পের উপযুক্ত চাহিদা মেটাতে স্থানীয় কর্মীবাহিনীকে উচ্চ দক্ষতার সাথে প্রস্তুত করতে হবে; যা দীর্ঘমেয়াদি প্রতিযোগিতা বাড়ানোর জন্য দেশকে দক্ষ, উৎপাদনশীল, সৃজনশীল এবং উদ্ভাবনী মানব পুঁজির বিকাশ ঘটাতে এরই মধ্যে গ্রামীণ এলাকা, গ্রাম এবং ওরাং আসলি শিশুসহ যুব গোষ্ঠীর জন্য নতুন উচ্চ-দক্ষ চাকরির সুযোগ তৈরি করা হয়েছে।

এদিকে এমপিসি উৎপাদনশীলতা এবং প্রতিযোগিতামূলকতা বৃদ্ধির জন্য এই কর্মসূচির নেতৃত্ব দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

মহাপরিচালক দাতুক আব্দুল লতিফ আবু সেমান বলেছেন, যখন দক্ষতা উন্নত হয়, উৎপাদনশীলতাও বৃদ্ধি পায় এবং লাভের দিকে পরিচালিত করতে পারে। দীর্ঘ মেয়াদে এটি ১২তম মালয়েশিয়া পরিকল্পনার অধীনে নির্ধারিত ৪০ শতাংশ শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের লক্ষ্য অর্জনে অবদান রাখবে।

দেশের উৎপাদনশীলতা কর্মক্ষমতা ২০২১ সালে ১.৮ শতাংশ হারে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধিতে ফিরে এসেছে এবং ২৩,১২৯ রিঙ্গিতের মূল্য সংযোজনসহ শ্রমিক প্রতি শ্রম উৎপাদনশীলতা ২.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন এমপিসিরি মহাপরিচালক আবদুল লতিফ।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

মালয়েশিয়ায় ২০২৫ সালের মধ্যে ৩ লাখ দক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ

 আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে 
১৭ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

২০২৫ সালের মধ্যে ৩ লাখ উচ্চ-দক্ষ কাজের সুযোগ তৈরি করবে মালয়েশিয়া। ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক্স (E&E), স্বয়ংচালিত, রাসায়নিক এবং উন্নত উপকরণের পাশাপাশি জীবন বিজ্ঞান এবং চিকিৎসা প্রযুক্তির মতো উচ্চ-প্রভাবিত খাতে এ চাকরির সুযোগ তৈরি হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

দেশটির আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও শিল্পের সিনিয়র মন্ত্রী দাতুক সেরি মোহাম্মদ আজমিন আলী বলেছেন, একাডেমি ইন ফ্যাক্টরি (এআইএফ) প্রোগ্রামের মাধ্যমে চলতি বছরেই এসব খাতে ২০ হাজার কাজের সুযোগ তৈরি করা হবে।

সিনিয়র মন্ত্রী বলছেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা যাতে মালয়েশিয়াকে বিনিয়োগের গন্তব্যে নিশ্চিত করার জন্য, অত্যন্ত দক্ষ এবং প্রযুক্তিগত প্রতিভা প্রদান করা আমাদের দায়িত্ব। এটি ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সাথে সামঞ্জস্য রেখে দেশের কর্মীবাহিনীর দক্ষতা এবং পুনঃদক্ষতা বা উচ্চতর দক্ষতা বৃদ্ধির ওপর জোর
দেওয়ার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ; যা ২০৩০ সালের মধ্যে সমস্ত সেক্টরে ৩০ শতাংশ উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করবে। ১৩ আগষ্ট ইয়ুথ কার্নিভাল এবং এআইএফ অনুষ্ঠানে এ আশা ব্যক্ত করেন সিনিয়র মন্ত্রী।

এআইএফ মালয়েশিয়ান প্রোডাক্টিভিটি কর্পোরেশনের (MPC) একটি উদ্যোগ যাতে শ্রমিকের ঘাটতি মেটানো এবং ভবিষ্যৎ-প্রস্তুত কর্মীবাহিনী গড়ে তোলার জন্য স্থানীয় যুবকদের মধ্যে উচ্চ-দক্ষ প্রতিভা বিকাশ করা।

আজমিন বলেন, মালয়েশিয়া একটি উৎপাদনশীল উন্নত দেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এবং শিল্পের উপযুক্ত চাহিদা মেটাতে স্থানীয় কর্মীবাহিনীকে উচ্চ দক্ষতার সাথে প্রস্তুত করতে হবে; যা দীর্ঘমেয়াদি প্রতিযোগিতা বাড়ানোর জন্য দেশকে দক্ষ, উৎপাদনশীল, সৃজনশীল এবং উদ্ভাবনী মানব পুঁজির বিকাশ ঘটাতে এরই মধ্যে গ্রামীণ এলাকা, গ্রাম এবং ওরাং আসলি শিশুসহ যুব গোষ্ঠীর জন্য নতুন উচ্চ-দক্ষ চাকরির সুযোগ তৈরি করা হয়েছে।

এদিকে এমপিসি উৎপাদনশীলতা এবং প্রতিযোগিতামূলকতা বৃদ্ধির জন্য এই কর্মসূচির নেতৃত্ব দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

মহাপরিচালক দাতুক আব্দুল লতিফ আবু সেমান বলেছেন, যখন দক্ষতা উন্নত হয়, উৎপাদনশীলতাও বৃদ্ধি পায় এবং লাভের দিকে পরিচালিত করতে পারে। দীর্ঘ মেয়াদে এটি ১২তম মালয়েশিয়া পরিকল্পনার অধীনে নির্ধারিত ৪০ শতাংশ শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের লক্ষ্য অর্জনে অবদান রাখবে।

দেশের উৎপাদনশীলতা কর্মক্ষমতা ২০২১ সালে ১.৮ শতাংশ হারে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধিতে ফিরে এসেছে এবং ২৩,১২৯ রিঙ্গিতের মূল্য সংযোজনসহ শ্রমিক প্রতি শ্রম উৎপাদনশীলতা ২.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন এমপিসিরি মহাপরিচালক আবদুল লতিফ।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন