‘লাল-সবুজের পতাকা হাতে দৌড়াতে গিয়ে মারা গেলেও ধন্য হব’
jugantor
‘লাল-সবুজের পতাকা হাতে দৌড়াতে গিয়ে মারা গেলেও ধন্য হব’

  খান লিটন, জার্মানি থেকে  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২২:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

লাল-সবুজের পতাকা হাতে দৌড়াতে গিয়ে যদি মারাও যাই, ধন্য হব আমি- এমনটাই বললেন জার্মান প্রবাসী ম্যারাথন দৌড়বিদ শিব শংকর পাল।

ষাট ছুঁই ছুঁই এই নিরামিষভোজি যোগব্যায়ামের প্রশিক্ষক শিব শংকর পাল ২৫ সেপ্টেম্বর বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা আন্তর্জাতিক বার্লিন ম্যারাথনে অংশ নিলেন লাল-সবুজ পতাকা হাতে। এটা তার ১১৮তম বিশ্ব ম্যারাথন।

এ ম্যারাথনে অংশ নেন বিশ্বের ৪৫ হাজার ৫৫২ জন দৌড়বিদ। ৪২ কিলোমিটার দৌড় শুরু হয় স্ট্রেস ডেস ১৭ এর মধ্য দিয়ে জুনি এবং আর্নস্ট-রয়টার-প্ল্যাটজ অল্ট-মোয়াবিটের দিকে।

তারপর অটো-ভন-বিসমার্ক-অ্যালি, রেইনহার্ডস্ট্রাসে, টরস্ট্রাসে এবং কার্ল-মার্কস-অ্যালি হয়ে স্ট্রসবার্গার প্লাটজের দিকে ।Lichtenberger Strasse, Heinrich-Heine-Strasse, Moritzplatz, Kottbusser Tor এবং Kottbusser Damm বরাবর Neukölln-এর Hermannplatz-এর দক্ষিণ দিকে যায়, Hasenheide পেরিয়ে পশ্চিম দিকে Yorckstrasse, Grunewaldstrasse এবং Martin-Luther-Strasse Trasse-Trasse-দিয়ে ফিনিশিং লাইনে পৌঁছায়।

বার্লিন প্রবাসী ভাইবোনরা দৌড়ের পথে দাঁড়িয়ে শিব শংকরকে উৎসাহ জোগান। সাথে ম্যারাথন এনজয় করলেন আর বললেন- দাদা, দৌড়ান! দৌড়ান! দৌড়ান! হোপ! হোপ! হোপ!

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

‘লাল-সবুজের পতাকা হাতে দৌড়াতে গিয়ে মারা গেলেও ধন্য হব’

 খান লিটন, জার্মানি থেকে 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লাল-সবুজের পতাকা হাতে দৌড়াতে গিয়ে যদি মারাও যাই, ধন্য হব আমি- এমনটাই বললেন জার্মান প্রবাসী ম্যারাথন দৌড়বিদ শিব শংকর পাল।

ষাট ছুঁই ছুঁই এই নিরামিষভোজি যোগব্যায়ামের প্রশিক্ষক শিব শংকর পাল ২৫ সেপ্টেম্বর বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা আন্তর্জাতিক বার্লিন ম্যারাথনে অংশ নিলেন লাল-সবুজ পতাকা হাতে। এটা তার ১১৮তম বিশ্ব ম্যারাথন।

এ ম্যারাথনে অংশ নেন বিশ্বের ৪৫ হাজার ৫৫২ জন দৌড়বিদ। ৪২ কিলোমিটার দৌড় শুরু হয় স্ট্রেস ডেস ১৭ এর মধ্য দিয়ে জুনি এবং আর্নস্ট-রয়টার-প্ল্যাটজ অল্ট-মোয়াবিটের দিকে।

তারপর অটো-ভন-বিসমার্ক-অ্যালি, রেইনহার্ডস্ট্রাসে, টরস্ট্রাসে এবং কার্ল-মার্কস-অ্যালি হয়ে স্ট্রসবার্গার প্লাটজের দিকে ।Lichtenberger Strasse, Heinrich-Heine-Strasse, Moritzplatz, Kottbusser Tor এবং Kottbusser Damm বরাবর Neukölln-এর Hermannplatz-এর দক্ষিণ দিকে যায়, Hasenheide পেরিয়ে পশ্চিম দিকে Yorckstrasse, Grunewaldstrasse এবং Martin-Luther-Strasse Trasse-Trasse-দিয়ে ফিনিশিং লাইনে পৌঁছায়।

বার্লিন প্রবাসী ভাইবোনরা দৌড়ের পথে দাঁড়িয়ে শিব শংকরকে উৎসাহ জোগান। সাথে ম্যারাথন এনজয় করলেন আর বললেন- দাদা, দৌড়ান! দৌড়ান! দৌড়ান! হোপ! হোপ! হোপ!

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর