ছন্দহীন প্রবাসের কুরবানী ঈদ

  ফারুক হিমেল, কোরিয়া থেকে ২৩ অগাস্ট ২০১৮, ১০:০৫:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

ঈদের আনন্দ আপামর মানুষের জন্য খুশির আহ্লাদের, এ আনন্দে রয়েছে আলাদা সুখানুভূতি, আলাদা আমেজ, বিশেষ করে তাদের জন্য যারা দেশেপরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করেন বা পরিবার নিয়ে প্রবাসে থাকেন।

কিন্তু বিপরীতে যারা পিতা মাতা, ভাই বোন, স্ত্রী, সন্তান, আত্মীয় স্বজনছাড়া দেশের বাইরে থাকেন তাদের গল্পটা ভিন্ন। আমরা জানি একজন সাধারণ মানুষ ব্যাথা সহ্য করেনসর্বোচ্চ ৪৫ ইউনিট।

পাশাপাশি একজন মা প্রসবব্যাথা সহ্য করেন ৫৭ ইউনিট পর্যন্ত। সন্তান প্রসবের জন্য মায়েদের এ কোরবানীঅসহনীয়। একজন মা ছাড়া এ ব্যাথারঅনুভূতি সাধারণ মানুষ অনুধাবন করতে পারবে না।

যেমনটি বলছিলাম মায়েদের প্রসববেদনার কষ্টের উপাখ্যান একজন মা ছাড়া যেমন কেউ বোঝে নাতেমনিভাবে

একজন প্রবাসীর পরবাসের অনুভূতি কেমন হয়, যে কখনো প্রবাসে কঠোর শৃঙ্খল দেখেনি তার পক্ষে অনুধাবন বহুদূর।

দেশে বসে প্রবাসের অনুভূতি নেয়া যায় না। প্রত্যেক প্রবাসীর রয়েছে নীল কষ্ট। এ জীবনযুদ্ধের উপাখ্যান

এভাবেই চাপা পড়ে যায় নানা কারণে। পরিবারের সুখের জন্য, ভবিষ্যৎজীবন উজ্জ্বল করার আশায়, নিজের জীবনের ছন্দময়, বর্ণময়, আনন্দময় দিনগুলোকে কবর দিতে হয়।

আজব এক ঈদানুভূতি রয়েছে কোরিয়া প্রবাসীদের। আরব দেশগুলোতে ঈদের ছুটি থাকে কিন্তু কোরিয়ায় কোম্পানি থেকে ছুটি নেয়া দুস্কর।

ঈদুল আযহার নামাজের জন্য অনেকেই কোম্পানি থেকে ছুটি পায়না, পরিবারের অনুভূতিই যেন তাদের অনুভূতি।

ঠিক সময়ে মা বাবার হাতে কুরবানীর ঈদের টাকা পাঠাতে পারলেই প্রবাসীরা আনন্দ উচ্ছাসের মেতে ওঠেন। ঈদে পরিবারের মুখে হাসি দেখলে এরা আনন্দে বিভোর হয়ে যান। ঈদের সারাটাদিন প্রবাসীর মনটা পড়ে থাকে পরিবারের কাছে।

যার মা নেই, যার বাবা নেই তার ঈদটা আরো বর্ণহীন, ছন্দহীন, আনন্দবিহীন ধূসর। অধিকাংশ প্রবাসীর ঈদ কাটে প্রবাসের কর্মব্যস্ততায়।দক্ষিণ কোরিয়ায় কর্মব্যস্ততার মাঝে কুরবানী দেয়া কষ্টসাধ্য।

সবকিছুর পরেই প্রবাসীদের জীবন চলে নিরন্তর।লক্ষ্যের পেছনে অক্লান্ত পরিশ্রম করে এ যোদ্ধারা। এ জীবনে যখন তারা ব্যর্থতার তিক্ত স্বাদ পায়, তখন চোখ বুজে সয়ে যায়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত