Nagad-Fifa-WorldCup
ব্রাজিল ম্যাচ শেষে ভেঙে ফেলা হবে যে স্টেডিয়াম
jugantor
ব্রাজিল ম্যাচ শেষে ভেঙে ফেলা হবে যে স্টেডিয়াম

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:৩৫:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে আজ ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়া। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় দুবাইয়ের স্টেডিয়াম ৯৭৪ এ খেলাটি শুরু হবে।

ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যকার ম্যাচটিই এই স্টেডিয়ামের শেষ ম্যাচ। এরপর আর কখনো এই স্টেডিয়ামে খেলা হবে না। আজকের এই ম্যাচের পর ভেঙে ফেলা হবে স্টেডিয়াম ৯৭৪।

বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য ৮টি ভেন্যু তৈরি করেছে কাতার। তার মধ্যে অন্যতম ‘স্টেডিয়াম নাইন সেভেন ফোর’। কাতারের ডায়ালিং কোড নম্বর অনুসারে এই স্টেডিয়ামের নাম রাখা হয়।

ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার ম্যাচের আগে এই ভেন্যুতে ৬টি খেলা হয়েছে। কাতারের সামুদ্রিক এলাকার পাশেই অবস্থিত এই স্টেডিয়ামে দর্শকাসন ৪০ হাজার। ৯৭৪টা কনটেইনার দিয়ে অস্থায়ীভাবে তৈরি করা হয়েছে এ স্টেডিয়ামটি। ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটিই প্রথম অস্থায়ী স্টেডিয়াম।

মডিউলার স্টিল ও শিপিং কন্টেনার দিয়ে তৈরির কারণেই বিশ্বকাপের শেষে সহজেই ভেঙে ফেলা যাবে এই স্টেডিয়াম।

স্টেডিয়াম ভাঙার সময় যাতে দূষণ না হয়, তা আলাদা ভাবনাও নিয়েছে কাতার প্রশাসন। এমনকি প্রয়োজনে ওই কন্টেনার পুনরায় ব্যবহারও করা যাবে। এমনকি চাইলে অন্য দেশেও স্থানান্তর করা যাবে।

সূত্র: ভিওএ নিউজ

Nagad-Fifa-WorldCup

ব্রাজিল ম্যাচ শেষে ভেঙে ফেলা হবে যে স্টেডিয়াম

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে আজ ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়া। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় দুবাইয়ের স্টেডিয়াম ৯৭৪ এ খেলাটি শুরু হবে।

ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যকার ম্যাচটিই এই স্টেডিয়ামের শেষ ম্যাচ। এরপর আর কখনো এই স্টেডিয়ামে  খেলা হবে না। আজকের এই ম্যাচের পর ভেঙে ফেলা হবে স্টেডিয়াম ৯৭৪ ।

বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য ৮টি ভেন্যু তৈরি করেছে কাতার। তার মধ্যে অন্যতম ‘স্টেডিয়াম নাইন সেভেন ফোর’। কাতারের ডায়ালিং কোড নম্বর অনুসারে এই স্টেডিয়ামের নাম রাখা হয়।

ব্রাজিল-দক্ষিণ কোরিয়ার ম্যাচের আগে এই ভেন্যুতে ৬টি খেলা হয়েছে। কাতারের সামুদ্রিক এলাকার পাশেই অবস্থিত এই স্টেডিয়ামে দর্শকাসন ৪০ হাজার। ৯৭৪টা কনটেইনার দিয়ে অস্থায়ীভাবে তৈরি করা হয়েছে এ স্টেডিয়ামটি। ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটিই প্রথম অস্থায়ী স্টেডিয়াম।

মডিউলার স্টিল ও শিপিং কন্টেনার দিয়ে তৈরির কারণেই বিশ্বকাপের শেষে সহজেই ভেঙে ফেলা যাবে এই স্টেডিয়াম।

স্টেডিয়াম ভাঙার সময় যাতে দূষণ না হয়, তা আলাদা ভাবনাও নিয়েছে কাতার প্রশাসন। এমনকি প্রয়োজনে ওই কন্টেনার পুনরায় ব্যবহারও করা যাবে। এমনকি চাইলে অন্য দেশেও স্থানান্তর করা যাবে।

সূত্র: ভিওএ নিউজ

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ফুটবল বিশ্বকাপ ২০২২

২৮ ডিসেম্বর, ২০২২