গুজরাটে লুঙ্গি পরায় হিন্দিভাষীদের ওপর হামলা

  যুগান্তর ডেস্ক ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০২ | অনলাইন সংস্করণ

গুজরাটে লুঙ্গি পরায় হিন্দিভাষীদের ওপর হামলা
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের গুজরাটে লুঙ্গি পরায় স্থানীয় বাসিন্দাদের হামলার শিকার হলেন বিহারের এক সিভিল ইঞ্জিনিয়ার ও ছয় মিস্ত্রি।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্যে যাওয়া হিন্দিভাষীদের ওপর অহরহ হামলার ঘটনা ঘটছে। পুলিশ ও প্রশাসনের আশ্বাস সত্ত্বেও সোমবার ফের একই ঘটনা ঘটল গুজরাটের বড়োদরায়।

পুলিশ জানিয়েছে, আক্রান্ত সাতজনই বিহারের মধুবনী জেলার বাসিন্দা। বডোদরা পৌরসভা এলাকায় সমা শহরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণকাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তারা।

ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিন অভিযুক্তের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, আটক ব্যক্তির নাম কেয়ুর পারমার। বাকিদের খোঁজ চলছে। যদিও এ হামলার সঙ্গে লুঙ্গি পরার বা হিন্দিভাষীদের প্রতি ঘৃণার কোনো সম্পর্ক নেই বলে দাবি পুলিশের।

সোমবার সন্ধ্যায় ওই নির্মীয়মান ভবনের বাইরে লুঙ্গি পরে বসেছিলেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ার শত্রুঘ্ন যাদব ও ছয় মিস্ত্রি। হঠাৎ সেখানে দুই সঙ্গীকে নিয়ে উপস্থিত হন এলাকার বাসিন্দা কেয়ুর। শত্রুঘ্ন এবং ওই ছয়জনের পোশাক নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তারা।

এর পর দুপক্ষের মধ্যে বচসা শুরু হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে তা হাতাহাতিতে পরিণত হয়। ধস্তাধস্তিতে সামান্য আঘাত লাগে ওই সাতজনের। এরই মধ্যে পুলিশকে ফোন করেন শত্রুঘ্ন। সঙ্গে সঙ্গে সেখানে উপস্থিত হয় পুলিশের টহলদারি ভ্যান।

তা দেখে সেখান থেকে চম্পট দেন কেয়ুররা। তবে পালানোর আগে শত্রুঘ্নদের গুজরাট থেকে তাড়ানোর হুশিয়ারিও দিয়ে যান তিনি। এর পর গোটা ঘটনার অভিযোগ জানাতে সমা থানায় যান শত্রুঘ্নরা। রাতে ফিরে এসে দেখেন, তাদের একটি মোটরবাইকসহ দুটি প্লাস্টিকের চেয়ারে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে।

ভবনটির ঠিকাদার ময়ূর পটেল বলেন, ঠিক কী কারণে হামলা হয়েছে তা বোঝা মুশকিল। ইঞ্জিনিয়ারদের কেয়ুররা জানিয়েছেন, লুঙ্গি পরে থাকলে তাদের সমস্যা হবে, এটি ভারী অদ্ভুত!

ময়ূরের দাবি, শুধু ওই সাতজনই নন, কেয়ুরদের হুমকির মুখে পড়তে হয়েছে তার ৩০-৪০ নির্মাণকর্মীকেও। ঘটনার সময় ওই নির্মাণকর্মীরা বিল্ডিংয়ের দোতলায় ঘুমোচ্ছিলেন। ময়ূরের কথায়, মুখ বন্ধ না রাখলে তাদের বাইকও জ্বালিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে যায় অভিযুক্তরা।

লুঙ্গি পরার জন্যই এ হামলা চালানো হয়েছে বলে মানতে নারাজ দেশটির প্রশাসনের কর্মকর্তারা। হামলার কথা স্বাকীর করে নিয়ে সমা থানার পরিদর্শক পিডি পারমারের দাবি, অন্য রাজ্যের বাসিন্দাদের ওপর ঘৃণাবশত এ হামলা চালানো হয়নি। এর পেছনে আসল কারণ খুঁজে বার করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

যদিও পুলিশ কমিশনার অনুপম সিংহ গহলৌত বলেন, বেশ কিছু দিন ধরেই স্থানীয় বাসিন্দারা ওই সাতজনকে লুঙ্গি পরে অশালীনভাবে বসে থাকার বিষয়ে সতর্ক করছিলেন। তবে তারা কোনো কথায় কান দেননি। সোমবার দুপক্ষের মধ্যে তা নিয়েই ঝামেলা বাধে। এর পেছনে হিংসার রাজনীতি নেই।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter