আগরতলায় জমে উঠেছে দুর্গাপূজা (ভিডিও)

  শিপন হাবীব, আগরতলা থেকে(ত্রিপুরা): ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ২০:২৯ | অনলাইন সংস্করণ

আগরতলায় জমে উঠেছে দুর্গাপূজা। ছবি সংগৃহীত
আগরতলায় জমে উঠেছে দুর্গাপূজা। ছবি সংগৃহীত

আগরতলা শহরসহ ত্রিপুরা রাজ্যের ৮টি জেলাজুড়ে ২ হাজার ৫২৭ পূজামণ্ডবে টানা উৎসব চলছে। এছাড়া ব্যক্তি উদ্যোগে শত শত পূজা পারিবারিকভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার নবমী অনুষ্ঠানে পুরো রাজ্যজুড়ে উৎসব আর ভাবমূলক গানে মুখরিত হয়ে উঠে। সকাল থেকে ভোররাত পর্যন্ত উৎসবে শিশু থেকে শুরু করে নানা বয়সী মানুষের ঢল নামে মণ্ডপে মণ্ডপে। ট্রাফিকের জ্যামও আছে, আছে শেষ লগ্নের ভিড়। সন্ধ্যার সাড়ে ৭টার মধ্যে রাজ্যের হাওর, গোমতী, মনু, মোহড়ী আর দেউ নদীতে প্রতিমাগুলো বিসর্জন করা হবে।

এ উৎসবে পুরো রাজ্যের রংটাই যেন বদলে গেছে। ভিন্নধর্মী থিম নিয়ে প্যান্ডেল গড়েছে শহরের শিবনগর ক্লাব ও আমরা তরুণ দল। শিবনগর কলেজ রোডের এই পূজার আয়োজনে প্রতিবারই অভিনবত্বের ছোয়া থাকে। টাইটানিকের আদলে নির্মাণ করা এ মণ্ডপটিতে শত শত মানুষের ভিড়ে মেতে উঠছিল লোকজন।

প্যারিসের অপেরা হাউসের মতো তৈরি করা এ মণ্ডপে ভিড় যেন আরও বেশি। কোমলমতি শিশুদের প্রিয় চকোলেটের কালার ও পণ্য দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আরেকটি মণ্ডপ। রাধানগর এলাকায় তৈরি হওয়া এ মণ্ডপে নানা রঙের এবং নানা আকারের কয়েক লাখ চকোলেট দিয়ে। দেবী দুর্গার পাশাপাশি প্যান্ডেলের ভেতরের ইন্টেরিয়র ডেকোরেশনও করা হয়েছে নানা রঙের চকোলেট এবং বাঁশের টুকরো দিয়ে।

তাছাড়া প্যান্ডেলের বাইরের দিকে সাজানো হচ্ছে হাওয়া দিয়ে ফোলানো পুতুল (পাম্প টয়েস) এবং স্মাইল বল দিয়ে। শহরের প্রাণকেন্দ্র রাজবাড়ী এলাকায় শিশুদের নানা রকম খেলনা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আরেকটি মণ্ডপ। হাজার হাজার খেলনা দিয়ে এ মণ্ডপটি ঘিরে বিশেষ করে শিশুরা সবচেয়ে বেশি মেতে উঠছিল।

শহরের উষাবাজার এলাকায় প্রায় ২ কোটি টাকা খরচ করে তৈরি করা সোমনাথ মন্দিরের আদলে মণ্ডপে মানুষ আর মানুষ। ভারত রত্ম ক্লাবের আহ্বায়ক দেবী ভট্টাচার্য জানান, তারা ভারতের গুজরাটের সোমনাথ মন্দিরের আদলে মণ্ডপটি তৈরি করেছেন। হাজার হাজার লোকের ভিড় হচ্ছে এ মণ্ডপে, এটাই আমাদের আনন্দ।

শহরের চিত্ত রঞ্জন ও নেতাজী প্রেস সেন্টার ক্লাবের উদ্যোহে বাহুবলী ছবির দৃশ্যাবলী আদলে দুটি মণ্ডপ তৈরি করা হয়েছে। ছবির অসাধারণ স্থাপনাগুলো ফুটিয়ে তুলা হয়েছে। দর্শনাথীরা সেলফি আর ছবি তুলছে একের পর এক।

ত্রিপুরা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পূজা উপলক্ষে প্রতিদিন বাংলাদেশ থেকে হাজার দর্শনার্থী আসছে। বিশেষ করে ত্রিপুরা রাজ্যঘেঁষা কুমিল্লা, ফেনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ এলাকা থেকে সবচেয়ে বেশি লোক আসছে।

এছাড়া আগরতলাবাসীদেরও আত্মীয়স্বজনরা রয়েছেন বাংলাদেলে। দুর্গাপূজা উপলক্ষে মিলিত হচ্ছে স্বজনরা একে অপরের সঙ্গে। আখাউড়া চেকপোস্ট সূত্রে জানা যায় , প্রতিদিন আড়াই হাজার থেকে তিন হাজার লোক আগরতলায় যাচ্ছে পূজা দেখার জন্য।

ত্রিপুরা পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল স্মৃতি রঞ্জন দাশ জানান, অত্যন্ত নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে পুরো রাজ্যে দুর্গাপূজা চলছে। আসলে এ রাজ্যবাসীরাই আমাদের সহযোগিতা করছেন। ফলে আমরা খুব নিরাপদে এ উৎসবটি শেষ করতে পারি প্রতিবছরই।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার সূত্রে জানা যায়, এবার শহরে ৯৯৮টি পূজামণ্ডপে পূজা হচ্ছে। শহরের বাইরে ১ হাজার ৫৬৯টি মণ্ডপে পূজা হচ্ছে। মোট ২ হাজার ৫২৭টি মণ্ডপে পূজা হচ্ছে।

পশ্চিম আগরতলা থানার এসআই শিবু রাজন দে যুগান্তরকে জানান, এ থানার আওতায় ১০৭টি পূজামণ্ডপে পূজা হচ্ছে। এ শহরে খুব আনন্দের সঙ্গে পূজা উদযাপন হচ্ছে। শুক্রবার বিকাল থেকে বিসর্জন দেয়া হবে। সব কিছু সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে। কোনো সাউন্ডবাজি ফুটানো হচ্ছে না। রাজ্যবাসী কেউই পটকা ফুটাচ্ছে না। পুরো উৎসবকে সুন্দর করে তুলছে মূলত রাজ্যবাসীরাই।

https://www.facebook.com/shepon.habib/videos/10217356312288880/

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter