‘সৌদি যুবরাজ বিষাক্ত’

  যুগান্তর ডেস্ক ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ২১:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

মোহাম্মদ বিন সালমান
সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ফাইল ছবি

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে বিষাক্ত বলে আখ্যা দিয়েছেন এক মার্কিন সিনেটর। তিনি বলেন, ‘খাসোগি হত্যার নেপথ্যে সৌদির হাত থাকার বিষয় প্রমাণিত হলে তাদেরকে কঠোর সাজা ভোগ করতে হবে।’

গ্রাহাম বলেন, যুবরাজ জানেন না এমন কোনো ঘটনা সৌদি আরবে ঘটে না।

বুধবার ফক্স নিউজের একটি অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘খাসোগিকে হত্যার সরাসরি নির্দেশ দিয়েছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান।’ তাকে ‘দুর্বৃত্ত ক্রাউন প্রিন্স’ বলেও আখ্যা দেন গ্রাহাম।

তিনি আরও বলেন, ‘মার্কিন সিনেটে আমি ছিলাম তাদের (সৌদি আরব) সবচেয়ে বড় সমর্থক। কিন্তু এই লোকটা (যুবরাজ) সব তছনছ করে দিয়েছে। সে-ই খাসোগিকে তুরস্কের কনস্যুলেটের ভেতর হত্যা করিয়েছে।’

গ্রাহাম বলেন, ‘আমার কাছে এ যুবরাজকে বিষাক্ত মনে হয়। সে কখনোই বিশ্বমঞ্চে নেতা হয়ে উঠতে পারবে না।’

রাজপরিবারের পাঁচ রাজপুত্রকে গুম

ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট জানায়, জামাল খাসোগির ‘নিখোঁজ’ নিয়ে রাজবিরোধী কথা বলায় রাজপরিবারের পাঁচ রাজপুত্রকে গুম করেছে সৌদি আরব। জার্মানিতে স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা সৌদি যুবরাজ খালেদ বিন ফারহান আল-সৌদ নতুন এ অভিযোগ তুলেছেন।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবর, সৌদি আরবে রাজপরিবারে বিরুদ্ধে সমালোচনা করলেই গুম, হত্য-অপরহণ, জেল অনিবার্য।

খালেদ বিন ফারহান বলেন, এ পাঁচ রাজপুত্র হলেন আধুনিক সৌদি আরবের প্রতিষ্ঠাতা বাদশাহ আবদুল-আজিজের নাতি। তারা গত সপ্তাহে সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এক বৈঠকে খাসোগির নিখোঁজের বিষয়ে কথা বলেছিল।

তিনি বলেন, তাদেরকে তাৎক্ষণিক আটক করা হয় এবং এখন তাদের অবস্থান সম্পর্কে কেউ কিছুই জানে না। যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচনাকারীদের মুখ বন্ধ করতে নেয়া পদক্ষেপগুলোরই অংশ এসব।

৪১ বছর বয়সী এ রাজপুত্র বলেন, ২ অক্টোবর খাসোগির সঙ্গে যা ঘটেছে, ঠিক এর ১০ দিন আগে আমার সঙ্গেও তাই ঘটতে পারত। আমার অর্থনৈতিক সংকটের বিষয়টি শুনে সৌদি কর্তৃপক্ষ আমাকে সাহায্য করতে চেয়েছিল।

তিনি বলেন, আমার পরিবারকে বলা হয় তারা যেন আমাকে মিসরের কায়রোতে অবস্থিত সৌদি দূতাবাসে ডেকে পাঠায়। আমাকে একটা বড় অঙ্কের চেক এবং সম্পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়।

কিন্তু আমি তাদের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করি। তিনি আরও বলেন, এখন সৌদির অনেক যুবরাজ কারাবন্দি। মাত্র পাঁচদিন আগে তাদের একটি দল বাদশাহ সালমানের সঙ্গে দেখা করে জানায়, তারা আল-সৌদ পরিবারের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভীত।

তারা খাসোগির বিষয়টিও উত্থাপন করে। এসব বিষয়ে জানতে ব্রিটিশ গণমাধ্যমটি সৌদি দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করে কোনো জবাব পায়নি। খ্যাতনামা সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগির অন্তর্ধানে বেকায়দায় পড়ে গেছে সৌদি আরব। ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে তাকে হত্যার বিষয়টি ছায়া ফেলেছে দেশটির বহুল প্রতীক্ষিত ‘দাভোস ইন ডেজার্ট’ সম্মেলনে।

আগামী ২৩ অক্টোবর রিয়াদে তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। প্রথমদিকে বিশ্বের নামকরা প্রতিষ্ঠানগুলো এ নিয়ে আগ্রহ দেখালেও খাসোগি হত্যাকাণ্ডের পর তাতে ছেদ পড়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : সাংবাদিক জামাল খাসোগি নিখোঁজ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter