ক্যান্সারে আক্রান্ত ও নিহত কর্মীদের জন্য ক্ষমা চেয়েছে স্যামসাং
jugantor
ক্যান্সারে আক্রান্ত ও নিহত কর্মীদের জন্য ক্ষমা চেয়েছে স্যামসাং

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ নভেম্বর ২০১৮, ১১:৩৮:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্ষমা চাইছেন কিনাম কিম

কারখানায় কাজ করতে গিয়ে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া কর্মীদের জন্য আনুষ্ঠানিক ক্ষমা চেয়েছে স্যামসাং।

বিশ্বব্যাপী ইলেক্ট্রনিক জায়ান্ট হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ কোরিয়ার এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষে শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চান প্রতিষ্ঠানটির সেমিকন্ডাকটর ব্যবসায়ের প্রধান কিনাম কিম।

কর্মীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা বেশ কয়েকটি সংগঠনের অভিযোগ, স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্সের চিপ ও ক্রিস্টাল ডিসপ্লে ইউনিটে কাজ করা ৩২০ জন কর্মী ক্যান্সারসহ নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত।

এছাড়া বিষাক্ত কেমিক্যালের কারণে এখানে কাজ করতে গিয়ে ১১৮ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

১৯৮৪ সাল থেকে স্যামসাংয়ের কারাখানায় কাজ করা কর্মীরা ক্যান্সার ও গর্ভপাতসহ নানা ধরনের রোগে ভুগছেন। এছাড়া বাবা-মায়ের এরকম সমস্যার কারণে কর্মীদের সন্তানরাও জীনগত নানা রোগে আক্রান্ত হয়েছে।

এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির অনেক কর্মী দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের কাছে এ ব্যাপারে ক্ষতিপূরণ দাবি করে আসছে। তাদের মধ্যে খুব অল্প সংখ্যক কর্মী আদালতের মাধ্যমে বহুদিনের চেষ্টায় সামান্য ক্ষতিপূরণ পায়।

তবে বেশিরভাগ কর্মীর ক্ষতিপূরণের আবেদন বাতিল করে দেয় আদালত। আর কিছু কর্মীর আবেদন এখনও আদালতের বিবেচনাধীন রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটিতে কাজ করা অবস্থায় অনেক কর্মী যখন রোগে আক্রান্ত হয়, তখন তাদেরকে কোম্পানির পক্ষ থেকে কোনোরকম সাহায্য করা হয় না।

অনেক সময় চিকিৎসার জন্য তাদেরকে নিজেদের সঞ্চয়ের টাকা কিংবা বাড়ি বিক্রি করে চিকিৎসার খরচ জোগাতে হয়। তাছাড়া কিছু কর্মী আজীবনের জন্য কাজ করতে অক্ষম হয়ে যান।

আর এসব কারণে কর্মীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন কিনাম কিম।

তিনি বলেন, আমরা রোগে আক্রান্ত কর্মী ও তাদের পরিবারের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করছি। আমরা তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে পারিনি।

তবে চলতি মাসের শুরুতে স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত কর্মীদের ক্ষতিপূরণ হিসেবে এক লাখ তিনহাজার পাউন্ড দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।

ক্যান্সারে আক্রান্ত ও নিহত কর্মীদের জন্য ক্ষমা চেয়েছে স্যামসাং

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ নভেম্বর ২০১৮, ১১:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ক্ষমা চাইছেন কিনাম কিম
ক্ষমা চাইছেন কিনাম কিম। ছবি: সংগৃহীত

কারখানায় কাজ করতে গিয়ে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া কর্মীদের জন্য আনুষ্ঠানিক ক্ষমা চেয়েছে স্যামসাং। 

বিশ্বব্যাপী ইলেক্ট্রনিক জায়ান্ট হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ কোরিয়ার এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষে শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চান প্রতিষ্ঠানটির সেমিকন্ডাকটর ব্যবসায়ের প্রধান কিনাম কিম।

কর্মীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা বেশ কয়েকটি সংগঠনের অভিযোগ, স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্সের চিপ ও ক্রিস্টাল ডিসপ্লে ইউনিটে কাজ করা ৩২০ জন কর্মী ক্যান্সারসহ নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত। 

এছাড়া বিষাক্ত কেমিক্যালের কারণে এখানে কাজ করতে গিয়ে ১১৮ জন কর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

১৯৮৪ সাল থেকে স্যামসাংয়ের কারাখানায় কাজ করা কর্মীরা ক্যান্সার ও গর্ভপাতসহ নানা ধরনের রোগে ভুগছেন। এছাড়া বাবা-মায়ের এরকম সমস্যার কারণে কর্মীদের সন্তানরাও জীনগত নানা রোগে আক্রান্ত হয়েছে। 

এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির অনেক কর্মী দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের কাছে এ ব্যাপারে ক্ষতিপূরণ দাবি করে আসছে। তাদের মধ্যে খুব অল্প সংখ্যক কর্মী আদালতের মাধ্যমে বহুদিনের চেষ্টায় সামান্য ক্ষতিপূরণ পায়। 

তবে বেশিরভাগ কর্মীর ক্ষতিপূরণের আবেদন বাতিল করে দেয় আদালত। আর কিছু কর্মীর আবেদন এখনও আদালতের বিবেচনাধীন রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটিতে কাজ করা অবস্থায় অনেক কর্মী যখন রোগে আক্রান্ত হয়, তখন তাদেরকে কোম্পানির পক্ষ থেকে কোনোরকম সাহায্য করা হয় না। 

অনেক সময় চিকিৎসার জন্য তাদেরকে নিজেদের সঞ্চয়ের টাকা কিংবা বাড়ি বিক্রি করে চিকিৎসার খরচ জোগাতে হয়। তাছাড়া কিছু কর্মী আজীবনের জন্য কাজ করতে অক্ষম হয়ে যান।

আর এসব কারণে কর্মীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন কিনাম কিম। 

তিনি বলেন, আমরা রোগে আক্রান্ত কর্মী ও তাদের পরিবারের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করছি। আমরা তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে পারিনি।

তবে চলতি মাসের শুরুতে স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত কর্মীদের ক্ষতিপূরণ হিসেবে এক লাখ তিনহাজার পাউন্ড দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।