চীনের কোন অস্ত্র নিয়ে উদ্বিগ্ন রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্র?

  যুগান্তর ডেস্ক    ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ২৩:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

চীনের কী অস্ত্র নিয়ে উদ্বিগ্ন রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্র
চীনের কোন অস্ত্র নিয়ে উদ্বিগ্ন রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্র। ছবি: সিনহুয়া

চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া, এ তিনটি দেশই বর্তমান বিশ্বে অস্ত্র প্রতিযোগিতার মধ্যে রয়েছে। অভ্যন্তরীণ সমস্যা আর সমুদ্র সীমা নিয়ে ভৌগলিক দ্বন্দ্বের কারণে নব্বই দশকের শুরু থেকেই সেনাবাহিনীকে ঢেলে সাজাতে মনোযোগী চীন। দেশটি সামরিক বাহিনীকে (পিপলস'স লিবারেশন আর্মি) আধুনিক করে তৈরি করতে ব্যাপক বিনিয়োগ করেছে চীন। ফলে চীন দ্রুত বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশগুলোর একটি হয়ে উঠছে।

নতুন বছরে চীনের সেনাবাহিনী অত্যাধুনিক কয়েকটি মারণাস্ত্রের নাম ঘোষণা করেছে। এর মধ্যে কয়েকটির সফল পরীক্ষাও তারা করেছে। এদিকে গত মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থা স্বীকার করে বলেছে কিছু অস্ত্রপ্রযুক্তিতে চীনই এখন ‘বিশ্বের নেতৃত্বে।

নতুন বছরে চীন বেশ কয়েকটি মারণাস্ত্র তৈরি করে। এগুলোর কয়েকটি হলো:

নৌবাহিনীর সর্বাধিক শক্তিশালী অস্ত্র

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন কিছু ছবি ছড়িয়েছে এতে ধারনা করা হচ্ছে চীন যুদ্ধজাহাজে স্থাপন করার উপযোগী এমন অস্ত্র তৈরি করেছে যেটি শব্দের পাঁচগুণ গতিতে (হাইপারসনিক স্পিড) গুলি ছুড়তে পারে। এদিকে এমন অস্ত্র অনেকদিন ধরেই বিশ্বের অনেক দেশ তৈরির চেষ্টা করছে।

'রেলগান' নামের এই অস্ত্রটি সেকেন্ড আড়াই কিলোমিটার গতিতে গুলি ছুড়তে পারে, যেগুলো দুইশও কিলোমিটার দূরের লক্ষবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।

গত জুন মাসে সিএনবিসির একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই অস্ত্রটি ২০২৫ সালের মধ্যে যুদ্ধের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত হয়ে যাবে। যখন এ ধরণের অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র আর রাশিয়া, এমনকি ইরানেরও এই প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ রয়েছে, তখন হয়তো প্রথম দেশ হিসাবে চীনই তাদের যুদ্ধজাহাজে অস্ত্রটি সংযোজন করবে।

দি মাদার অব অল বম্বস (মবস)

যুক্তরাষ্ট্রের শক্তিশালী বোমা মাদার অব অল বম্বস 'মোয়াব' এর জাবাবে চীনও তৈরি করেছে শক্তিশালী বৃহদায়ন বোমা। এটির নাম দেওয়া হয়েছে 'মাদার অব অল বম্ব' নামে।

চীনের বৃহৎ প্রতিরক্ষা প্রতিষ্ঠান নরিঙ্কো প্রথমবারের মতো চীনের সবচেয়ে বড় এই নন-নিউক্লিয়ার বোমার প্রদর্শনী করেছে বলে জানায় চীনের গ্লোবাল টাইমস পত্রিকা।

পত্রিকাটি জানায়, ব্যাপক বিধ্বংসী ক্ষমতার কারণে এটিকে ‘মাদার অব অল বম্বস’-এর চাইনিজ ভার্সন বলে অভিহিত করেছে।

পরমাণু বোমার পর এটাই সবচেয়ে বিধ্বংসী বোমা। নরিঙ্কোর পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যায়, এইচ-কে যুদ্ধবিমান থেকে বোমাটি ফেলা হলে বিশাল আকারের বিস্ফোরণ ঘটে।

সিনহুয়া জানায়, এটিই প্রথম ধ্বাংসত্মক বোমা যা জনগণের সামনে উন্মুক্ত করা হয়েছে।

২০১৭ সালে আফগানিস্তানে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে লড়াই করার সময় মার্কিন সেনাবাহিনী একটি জিবিইউ ৪৩/বি ম্যাসিভ অর্ডিন্যান্স এয়ার ব্লাস্ট (মোয়াব) ফেলে সন্দেহভাজন আইএসের লক্ষ্যবস্তুতে। এই বোমা ‘মাদার অফ অল বম্বস’ নামেই পরিচিত।

চীন তাদের বোমার জন্যও একই নাম ব্যবহার করলেও এটি যুক্তরাষ্ট্রের বোমাটির চেয়ে ছোট এবং হালকা। বোমাটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৫-৬ মিটার। ওজন বেশ কয়েক টন। আকারে বড় হওয়ায় একবারে একটা বোমাই বহন করতে পারে এইচ-৬কে বোমারু বিমান।

দি আন্ডারগ্রাউন্ড স্টিল গ্রেট ওয়াল

চীনের অজ্ঞাত পার্বত্য এলাকায় ভূগর্ভের নিচে স্থাপিত ইউএসজিডব্লিউ প্রতিরক্ষা স্থাপনা। এটি শত্রুর আক্রমণ থেকে সামরিক ঘাঁটি রক্ষা করবে বলে দাবি করে চীনের সেনাবাহিনী ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)। গত ১৩ জানুয়ারি তাদের ওয়েবসাইটে এ দাবি করা হয়। জাহাজবিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র

চীনা সেনাবাহিনী ডিএফ-২৬ নামের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র। এটি সাগরে মাঝারি ও বড় জাহাজকে ধ্বংস করতে সক্ষম। গ্লোবাল টাইমস বলেছে, ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা ৩ হাজার ৪০০ মাইল।

বোমারু বিমান

দুই আসনবিশিষ্ট স্টিলথ বোমারু বিমান জে-২০ স্টিলথ যুদ্ধবিমানের নতুন সংস্করণ। জে-২০ স্টিলথ যুদ্ধবিমান প্রথমবারের মতো পিএলএর। এটি গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বিমানবাহিনীতে যুক্ত হয়েছে।

দুই ইঞ্জিনের নতুন সংস্করণের বিমানটিতে দ্বিতীয় পাইলটের জন্য আসন থাকতে পারে। বর্তমানে যেসব স্টিলথ যুদ্ধবিমান আছে, সেগুলো এক আসনবিশিষ্ট।

সুপার সোলজারস উইথ ফিউচারিস্টিক ওয়েপনস (বিশেষ ছুরি)

চীন তার বিশেষ বাহিনীগুলোর সদস্যদের ‘সুপার সোলজার’ হিসেবে তৈরি করতে ‘সুপার সোলজারস উইথ ফিউচারিস্টিক ওয়েপনস’ তৈরি করেছে। এটি হাতে ধরার উপযোগী এক ধরনের বিশেষ ছুরি। যা পিস্তল ও অ্যাসল্ট রাইফেলের সমন্বিত বৈশিষ্ট্যসংবলিত। এটি দিয়ে গুলি ছোড়া যাবে আবার গ্রেনেডও ছোড়া যাবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×