সাপ গায়ে জড়িয়ে পুলিশের স্বীকারোক্তি আদায়ের চেষ্টা

  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৯:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

সাপ গায়ে জড়িয়ে পুলিশের স্বীকারোক্তি আদায়ের চেষ্টা
সাপ গায়ে জড়িয়ে পুলিশের স্বীকারোক্তি আদায়ের চেষ্টা। ছবি: সংগৃহীত

সন্দেহভাজন এক চোরকে আটকের পর পুলিশ তাকে ভয় দেখিয়ে কথা বের করার জন্য তার গায়ে সাপ জড়িয়ে দিয়েছে। এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর রীতিমতো হইচই পড়ে যায়। অবশ্য এ ঘটনার পরে ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশ দুঃখ প্রকাশ করেছে।

পুলিশের হাতে আটক ব্যক্তির গায়ে সাপ পেঁচিয়ে দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের একটি ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়লে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে দেখা যায়, পাপুয়া অঞ্চলে পুলিশের একজন কর্মকর্তা আটক এক ব্যক্তির গায়ে একটি সাপ জড়িযে দিচ্ছেন, আর হাতকড়া পরা লোকটি ভয়ে চিৎকার করছে। পুলিশের ধারণা আটক ব্যক্তি একটি মোবাইল ফোন চুরি করেছে।

স্থানীয় পুলিশ বাহিনীর প্রধান জিজ্ঞাসাবাদের সময় সাপ ব্যবহারের কৌশলের পক্ষে বক্তব্য দিয়ে বলেছেন, সাপটি ছিল পোষা এবং নির্বিষ। তবে এই ঘটনাকে তিনি অপেশাদার বলে মন্তব্য করেছেন।

তবে তিনি দাবি করেছেন, পুলিশ ওই ব্যক্তিটিকে মারধর করেনি। স্বীকারোক্তি আদায়ের লক্ষ্যে তারা শুধু তাদের নিজেদের উদ্ভাবিত এক কৌশল কাজে লাগিয়েছেন।

এই ভিডিওটি টুইট করেছেন মানবাধিকারবিষয়ক আইনজীবী ভেরোনিকা কোমন।

তিনি দাবি করেছেন যে সম্প্রতি পুলিশ নাকি পাপুয়ার স্বাধীনতাপন্থী এক আন্দোলনকারীকে আটক করার পর তাকে সাপসহ একটি সেলের ভেতরে রেখেছিলেন।

ভিডিওতে একটি কণ্ঠ সন্দেহভাজন ওই চোরকে নানাভাবে ভয় দেখাতে শোনা যায়। কখনও বলা হচ্ছিল যে তার মুখে বা প্যান্টের ভেতরে সাপ ঢুকিয়ে দেওয়া হবে।

পাপুয়া নিউগিনির সঙ্গে সীমান্তের এই এলাকাটি ১৯৬৯ সালে ইন্দোনেশিয়ার অংশ হয়ে যায়।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×