‘পাকিস্তানকে শত্রুর চোখে দেখলে ভারতের কোনো মন্দিরে ঘণ্টা বাজবে না’

  যুগান্তর ডেস্ক    ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:০২ | অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদ। ফাইল ছবি
পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদ। ফাইল ছবি

পুলওয়ামায় ভারতীয় আধাসামরিক বাহিনীর ওপর হামলার ঘটনায় ভারত-পাকিস্তান মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ বিষয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে আর কোনও আলোচনা হবে না বলেও জানিয়েছেন। এর জবাবে মঙ্গলবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারতের যে কোনো হামলার কঠিন জবাব দেবে পাকিস্তান। এ উত্তেজনার মধ্যেই বুধবার পাকিস্তানের রেলমন্ত্রীর একটি বক্তব্য পরিস্থিতি আরও উস্কে দিয়েছে।

দেশটির রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদ হুঙ্কার দিয়ে বলেছেন, পাকিস্তানকে শত্রুর চোখ দিয়ে যদি কেউ দেখার চেষ্টা করে তাহলে সেই চোখ উপড়ে ফেলা হবে।

পাকিস্তানি মন্ত্রী বলেন,পাকিস্তানকে শত্রুর চোখ দিয়ে দেখলে সেই চোখ তুলে ফেলা হবে। তখন পাখিরাও ডাকবে না,কোনো মন্দিরেও ঘণ্টা বাজবে না।

রেডিও পাকিস্তানের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে রেলমন্ত্রীর দেয়া হুমকির একটি ভিডিও টুইট করা হয়েছে।

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ হামলার ঘটনায় পাকিস্তানকে অভিযুক্ত করছে ভারত। তবে পাকিস্তান বিষয়টি অস্বীকার করেছে। এ হামলার তদন্তে ভারতকে সহায়তা করারও ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এর আগে ভারতের ১০০টি ওয়েবসাইট হ্যাক করেছে পাকিস্তানের হ্যাকাররা। পুলওয়ামা হামলার পর ভারত-পাকিস্তানের বাকযুদ্ধ অনলাইনেও ছড়িয়ে পড়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম নিউজ১৮ এর খবরে বলা হয়, ১০০ সাইট হ্যাক করা ওয়েবসাইটের মধ্যে বিজেপির নাগপুরের দফ্তর ও গুজরাটের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটও রয়েছে ৷ হ্যাক করা হয়েছে বিজেপি নেতা আইকে জাদেজার ব্লগও ৷

তবে এ ঘটনা প্রথম নয়, এর আগে শনিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটও হ্যাক করার চেষ্টা করা হয়৷ পাকিস্তানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল ওই হ্যাকের পেছনে ছিল ভারতীয় হ্যাকাররা ৷

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট

আরও
আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×