পাকিস্তানকে বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ করতে আইসিসিতে চিঠি পাঠাবে ভারত

প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

পাক-ভারত ম্যাচ। ফাইল ফটো

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ সন্ত্রাসবাদী হামলায় ৪৯ জন সিআরপিএফ সদস্য প্রাণ হারানোর ঘটনার পর আসন্ন বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের খেলা উচিত নয় বলে মনে করছেন ভারতীয় সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটাররা।

বিশিষ্টজনেরাও তাতে মত দিচ্ছেন। ধীরে ধীরে সেই দাবি পোক্ত হচ্ছে।

শুধু সেই খেলাই নয় পাকিস্তানকে আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেট তারকা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন দাবির ঝড় তুলেছেন বহু ভারতীয় নেট জনতা।

কিন্তু এতদিন ধরে বিষয়টি নিয়ে চুপ ছিলো ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই।

এবার ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ পর মুখ খুললেন বিসিসিআইয়ের শীর্ষকর্তারা।

ভারতীয় সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটারদের ও দেশব্যাপী ক্রিকেটভক্তদের এমন আবেদন বিষয়ে ভাবছেন বিসিসিআইয়ের শীর্ষকর্তারা।

ভারতের মাটিতে জঙ্গিবাদে সমর্থন ও জঙ্গিগোষ্ঠী দমনে কোনো উদ্যোগ না নেয়ার অভিযোগে পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ করা উচিৎ বলে মনে করছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা।

এ ব্যাপারে গত বুধবার বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম।

জানা গেছে, শুক্রবারে এ চিঠি ভারতের ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে পাঠানো হবে।

তার আগে নিজেদের মধ্যে এ বিষয়ে বৈঠক করবেন ভারতের ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তারা।


ওই চিঠিতে বিসিসিআইয়ের দাবি, পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ করা হোক।

এর কারণ হিসেবে সম্প্রতি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন জইশ-ই-মুহাম্মদের আক্রমণে ৪৯ ভারতীয় সেনা সদস্যের (সিআরপিএফ) মৃত্যুর কথা উল্লেখ করা হয়েছে।


চিঠিটি আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন এবং বিশ্বকাপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্টিভ এলওয়ার্থির উদ্দেশ্যে পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছেন ভারতের ক্রিকেট কমিটি অব এডমিনিস্ট্রেশনের (সিওএ) চেয়ারম্যান ভিনোদ রায়।  

পরে শুক্রবারের বৈঠকে আরও গভীরভাবে আলোচনা করে শেষে চিঠি পাঠানো হবে কি-না সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান সিওএ সদস্য দিয়ানা এডুলজি।

দিয়ানা বলেন, ‘আমরা শুক্রবারের বৈঠকে এ ব্যাপারে আলোচনা করবো এবং ঠিক করবো পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে।

অতীতে এমন পরিস্থিতি কীভাবে সামাল দেয়া হয়েছে সে উদাহরণকে সামনে রেখে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

এজন্য দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গেও বৈঠক করা হবে, জানান দিয়ানা।

এ বিষয়ে আপাতত ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার ভাষ্য, বিশ্বকাপে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল মুখোমুখি হচ্ছেই।

বিশ্বকাপের ১০০দিন কাউন্টডাউন উপলক্ষ্যে লন্ডনে হাজির ছিলেন আইসিসির সিইও ডেভ রিচার্ডসন।

সেখানে ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ওই ঘটনায় আমরা মর্মাহত। এখনও দুই বোর্ডের তরফে কোনও চিঠি পাইনি। বিসিসিআই ও পিসিবির সঙ্গে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি। বিশ্বকাপে ইন্দো-পাক ম্যাচ না হওয়ার কোনও কারণ নেই। যতদূর জানি পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ীই খেলা হবে।