নারীদের ওই কর্মসূচিটি ‘স্বাভাবিক’ ছিল না: এরদোগান

  যুগান্তর ডেস্ক    ১১ মার্চ ২০১৯, ১৮:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

নারী দিবসের কর্মসূচি পণ্ড করে দেয়ার ব্যাখ্যা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।
নারী দিবসের কর্মসূচি পণ্ড করে দেয়ার ব্যাখ্যা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।

ইস্তাম্বুলে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত মিছিলে টিয়ার গ্যাস ও কুকুর লেলিয়ে দিয়ে কর্মসূচি পণ্ড করে দেয়ার খবর বিশ্ব মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার করা হয়েছে। কেন ওই কর্মসূচিকে পণ্ড করে দেয়া হলো এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।

ইস্তাম্বুলের প্রধান সড়ক ইস্তিকাল অ্যাভিনিউয়ের প্রবেশমুখে সমবেত ওই নারীদের কর্মসূচিটি ‘স্বাভাবিক’ ছিল না বলে জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। খবর আল আরাবিয়াহ।

রোববার আদানা প্রদেশের এক নির্বাচনী জনসভায় এরদোগান বলেন, রিপাবলিকান পিপলস পার্টি এবং ডেমোক্রেটিক পার্টির কিছু নারী সদস্য তাকসিম পয়েন্টে সমাবেত হয়েছিল। তারা আজানের সময়ে মুখ দিয়ে সিটি বাজানোসহ ব্যাপক শোরগোল করেছিল তারা। তাছাড়া বিভিন্ন উসকানিমূলক স্লোগানও দিয়েছিল তারা।

শুক্রবারের ওই নারী সমাবেশের একটি ভিডিও ক্লিপ প্রেসিডেন্ট এরদোগান সমাবেশে প্রদর্শন করেন, যেখানে দেখা যাচ্ছে সমাবেশে নারীরা উচ্চ আওয়াজে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে, পাশেই একটি মসজিদে আজান চলছে।

এ সময় রিপাবলিকান পিপলস পার্টি এবং ডেমোক্রেটিক পার্টিকে আজান ও তুরস্কের সংস্কৃতিবিরোধী বলে অবিহিত করে এরদোগান বলেন, ‘যারা আজানকে সম্মান জানায় না এবং তুর্কি সংস্কৃতিও চর্চা করে না তারা কীভাবে দেশকে সম্মান জানাবে। তাদের হাতে এ দেশের সভ্যতা সংস্কৃতি নিরাপদ নয়।’

এরদোগানের এমন বক্তেব্যর প্রেক্ষিতে ওই র‌্যালিতে অংশ নেয়া নারীরা টুইটারে লিখেছেন, সিটি বাজিয়ে আনন্দোল্লাস করাটা তাদের ঘোষিত কর্মসূচিতে ছিল না। র‌্যালিতে লোকসমাগম বেশি হওয়ায় এমনিতেই অনেকে আনন্দ-উল্লাসে মেতে ওঠে। যা নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা আয়োজকদের ছিল না।

গত শুক্রবার নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালিটি পুলিশ প্রথমে থামিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে পরিস্থিতি সহিংসতায় মোড় নেয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়। এ সময় পুলিশ টিয়ার গ্যাস ছুড়তে শুরু করে। এরপর সমবেতদের তাড়িয়ে দিতে তাদের পেছনে কুকুর লেলিয়ে দেয়া হয়। এতে ভয় পেয়ে বিক্ষোভে অংশ নেয়া অনেক নারীরা আশপাশে ছুটে পালায়।

এ সময় অনেক নারী স্লোগান দেয়, 'আমরা শান্ত হব না, আমরা ভীত নই।'

তুরস্কে বড় ধরনের কোনো সভা সমাবেশের ক্ষেত্রে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কড়াকড়ি করা হয়। বিশেষত ২০১৬ সালে এরদোগানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানচেষ্টার পর বিধিনিষেধ আরও বাড়ানো হয়।

আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনের প্রচারণায় প্রেসিডেন্ট এরদোগান এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন।

আরও পড়ুন
--
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×