মসজিদে হামলা করা সেই খুনির কী শাস্তি হতে পারে?

  অনলাইন ডেস্ক ১৬ মার্চ ২০১৯, ২১:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

সন্ত্রাসী
আদালতে হামলাকারী ব্রেনটন টেরেন্ট। ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলায় অর্ধশতাধিক মুসল্লি নিহত হন।

হামলাকারী ২৮ বছর বয়সী ব্রেনটন টেরেন্ট একজন কট্টর শেতাঙ্গ বর্ণবাদী। সে মুসলমান ও অভিবাসী বিদ্বেষী।

ভয়াবহ এ হামলার কী শাস্তি হতে পারে?

অর্ধশত মানুষ হত্যার ঘটনায় হামলাকারীর কী শাস্তি হতে পারে সে বিষয়ে আইনজীবী ও কৌসুলীদের মধ্যে আলোচনা ও বিতর্ক শুরু হয়েছে। কয়েক মিনিটের মধ্যে বিশাল সংখ্যক মানুষকে হত্যার কারণে তার সর্বোচ্চ শাস্তি (মৃত্যৃদণ্ড) হওয়া উচিৎ বলে মনে করেন অনেক আইনজ্ঞ। কিন্তু নিউজিল্যান্ডে মৃত্যুদণ্ডের বিধান না থাকায় ব্রেনটনের সাজা সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদ- হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

নিউজিল্যান্ডে মৃত্যুদণ্ডের বিধান তুলে দেয়া হয় ১৯৮৯ সালে। দেশটিতে সবশেষ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় যাকে তার নাম ওয়াল্টার বোল্টন। স্ত্রীকে বিষপানে হত্যার দায়ে ১৯৫৭ সালে তাকে এই দ- দেয়া হয়। এর আগ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে ৮৩ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এখানে যত বড় হত্যাকাণ্ডই হোক তার শাস্তি সাধারণত যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। সেই কারাদণ্ডের মেয়াদ কত হবে - ‘সেনটেনসিং অ্যাক্টে’র মাধ্যমে তা ঠিক করেন বিচারক।

হত্যার জন্য দুই ধরনের সাজা হয়ে থাকে। দীর্ঘ মেয়াদে কারাদণ্ড ও স্বল্পমেয়াদে কারাদ-। দীর্ঘ মেয়াদে ৩০ বছর সাজা হয়েছে উইলিয়াম ডোয়েন বেল নামে একজনের, তিনজনকে হত্যার দায়ে। এরপর অনেকের সাজা হয়েছে ১৫ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। আর স্বল্পমেয়াদে সাজা হলে প্যারেল সিস্টেমে সে সাজা ভোগ করতে হয়। যে সব অপরাধারীর অতীত ক্রিমিনাল রেকর্ড নাই, তাদের নির্দিষ্ট একটি সময় কারাগারে রাখার পর ছেড়েও দেয়া হয়। অবশ্য তাদের হাতে ইলেকট্রনিক ডিভাইস লাগানো থাকে।

শনিবার বিকালে রাজধানী ওয়েলিংটনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিউজিল্যান্ড প্রধানমন্ত্রী জানান জাসিন্দা জানান, ব্রেনটনের নামে ৫টি ছোট বন্দুক ও একটি বড় আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স রয়েছে। সর্বশেষ লাইসেন্স ২০১৭ সালের নভেম্বরে নেয়া হয়েছিল। নিউজিল্যান্ডে আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পাওয়ার ন্যূনতম বয়স ১৬ বছর। আর হামলাকারী যে ধরনের স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র ব্যবহার করেছে তার লাইসেন্স পেতে বয়স হতে হয় কমপক্ষে ১৮ বছর। তবে বন্দুক রাখার জন্যে লাইসেন্সের প্রয়োজন পড়লেও, প্রতিটি অস্ত্রের পৃথক রেজিস্ট্রেশনের বাধ্য-বাধকতা নেই। আর সে কারণে নিউজিল্যান্ডে ঠিক কতটি আগ্নেয়াস্ত্র আছে- তার সঠিক হিসাব নেই পুলিশের কাছে।

জাসিন্দা বলেন, ‘লাইসেন্স পাওয়া থেকে শুরু করে এতগুলো অস্ত্র রাখা, এসব ঘটনা ও তার ধারাবাহিকতা নিয়ে কাজ চলছে। তবে এই মুহূর্তে আমি আপনাদের একটি কথা বলতে পারি, আমাদের অস্ত্র আইন পরিবর্তন করা হবে।’

ঘটনাপ্রবাহ : নিউজিল্যান্ডে মসজিদে এলোপাতাড়ি গুলি

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×