রোহিঙ্গা নিপীড়নে সহায়তাকারী রাখাইন নেতাকে ২০ বছরের কারাদণ্ড

  যুগান্তর ডেস্ক ১৯ মার্চ ২০১৯, ১৩:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

রাষ্ট্রদ্রোহ, রাখাইন নেতাসহ দুজনকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড
ছবি: এএফপি

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় এক নৃতাত্ত্বিক রাখাইন নেতা ও এক লেখককে ২০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন মিয়ানমারের একটি আদালত।

দেশটির নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠী ও সেনাবাহিনীর মধ্যে চলমান লড়াইয়ের মধ্যে মঙ্গলবারের এ রায় ক্ষোভকে আরও তীব্রতর করবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।-খবর এএফপি

আই মোং নামে ওই নৃতাত্ত্বিক নেতা মিয়ানমারে খুবই সুপরিচিত। রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তে যখন রায় ঘোষণা করা হচ্ছিল, তখন তার শত শত সমর্থককে আদালতের বাইরে বিক্ষোভ করতে দেখা গেছে। পুলিশ তাদের শান্ত করার চেষ্টা করছিল।

রোহিঙ্গা মুসলিম সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে কট্টর দৃষ্টিভঙ্গি লালন করা আরাকান ন্যাশনাল পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান আই মোং।

২০১৮ সালের জানুয়ারিতে উসকানিমূলক বক্তব্য ও রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় তাকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। ওই বক্তব্য দেয়ার একদিন পরেই সেখানে প্রাণঘাতী দাঙ্গা হয়েছিল।

সরকারের বিরুদ্ধে নৃতাত্ত্বিক রাখাইনদের দাস হিসেবে ব্যবহার করার অভিযোগ করেছিলেন তিনি। আই মোং বলেন, সশস্ত্র সংঘাতে নেমে যাওয়ার এটিই উপযুক্ত সময়।

ওই দিন সন্ধ্যায় বিক্ষোভকারীরা একটি সরকারি ভবন ঘেরাও করলে পুলিশ প্রকাশ্যে গুলি করে সাতজনকে হত্যা করেছিল।

আই মোং ছাড়াও লেখক ওয়া হিন আউং বক্তৃতা দিয়েছিলেন সেদিন। পরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ওয়া হিন আউংয়ের আইনজীবী বলেন, তাদের দুজনকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। রাষ্ট্রের অবমাননা ও রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় তাদের সাজা দেয়া হয়।

২০১৭ সালের আগস্টের শেষ দিক থেকে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নিধন থেকে বাঁচতে সাড়ে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের কাছ থেকে হত্যা, ধর্ষণ, অঙ্গহানি ও বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগের বিবরণ পাওয়া গেছে।

তবে রোহিঙ্গাবিরোধী অভিযানে সেনাবাহিনীকে সহায়তা করা নৃতাত্ত্বিক রাখাইন জনগোষ্ঠী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ করছে।

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×