অ্যাম্বুল্যান্সেও ইসরাইলি বাহিনীর পৈশাচিকতা!

প্রকাশ : ২০ মার্চ ২০১৯, ২০:১৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ইসরাইলি সেনার গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনি যুবকদের বহনকারী অ্যাম্বুল্যান্সেও পৈশাচিকতা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। ছবি: সংগৃহীত

অবরুদ্ধ পশ্চিম তীরে ইসরাইলি সেনার গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনি যুবকদের বহনকারী অ্যাম্বুল্যান্সেও পৈশাচিকতা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

দ্যা পেলেস্টাইন ইনফরমেশন সেন্টার জানায়, গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে এম্বুল্যন্সেও ইসরাইলি বাহিনী গুলিবর্ষণ করে।

নির্বিচারে এমন গুলিবর্ষণের প্রতিবাদ জানিয়েছে ফিলিস্তিন।    

মঙ্গলবার রাতে ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর এলাকায় ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে ৩ ফিলিস্তিনি যুবক নিহত হয়। পশ্চিম তীরের নাবলুস নগরীর হযরত ইউসুফ (আ.)-এর কবরের পাশে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

আল জাজিরা আরবি জানায়, ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ২১ বছর বয়সী রাইদ হাশিম  ও ২০ বছর বয়সী জায়িদ আম্মাদ নুরির নিহত হওয়ায় ঘটনায় নাবলুস শহরে বিক্ষোভ চলছে। দোকানপাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি অফিসগুলো বন্ধ রয়েছে।

এ দু’জনের নিহতের বিষয়টি স্বীকার করেছে ইসরাইল সেনাবাহিনী। বুধবার সকালে তাদের মরদেহ রাফিদিয়া সরকারি হাসপাতালে পৌঁছানোর পর ময়নাতদন্ত করা হয়।   

ফিলিস্তিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাতে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো ২ জন নিহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে। তবে বেসরকারি সূত্রের বরাতে  দ্যা পেলেস্টাইন ইনফরমেশন সেন্টার ৩ জন নিহত হওয়ার কথা জানিয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে পশ্চিম তীরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ১৫ ফিলিস্তিনিকে আটক করেছে ইসরাইলি বাহিনী। বিভিন্ন বসতবাড়িতে তল্লাশি করার সময় তাদের আটক করা হয়।

গত রোববার পশ্চিম তীরের এরিয়েল শহরে ইহুদিদের অবৈধ স্থাপনার কাছে এক ফিলিস্তিনি যুবকের হামলায় তিনজন নিহত হওয়ার দাবি করেছে ইসরাইল। উমর আবু লাইলা নামের ওই যুবকের খোঁজে অভিযান চালাচ্ছে ইসরাইলি সেনাবাহিনী।

জাতিসংঘের তথ্যমতে, ২০১৮ সালে ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে  ফিলিস্তিনের ২৯৫ জন নিহত হয়েছে।