প্রিয়াংকা কি পারবেন উত্তরপ্রদেশে বিজেপির দুর্গ ভাঙতে?

  যুগান্তর ডেস্ক ২৪ মার্চ ২০১৯, ১৩:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

প্রিয়াংকা গান্ধী
প্রিয়াংকা গান্ধী। ফাইল ছবি

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের ফল অনেক সময়ই নিয়ামক ভূমিকা পালন করে গোটা নির্বাচনে। গত নির্বাচনেও এমনটি দেখা গেছে। ওই নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের ৮০ আসনের মধ্যে বিজেপি জোট পেয়েছিল ৭৩ আসন, যেখানে কংগ্রেস পেয়েছিল মাত্র দুটি আসন।

মোদি জানেন যে, উত্তরপ্রদেশ কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আর এ কারণেই তিনি এবারও গুজরাটের বাদোদরাসহ বারাণসি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তবে উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেসের তরুণ নেতা প্রিয়াংকা গান্ধীর হঠাৎ আগমন নির্বাচনী হিসাব-নিকাশ অনেকটাই পাল্টে দিতে পারে বলে ধারণা করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

কারণ প্রিয়াংকা রাজনীতিতে নতুন নয়। আর কংগ্রেস থেকে তাকে উত্তরপ্রদেশের পূর্বাঞ্চলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আর উত্তরপ্রদেশে স্টিমার বাহনে গঙ্গায় দীর্ঘ ১৪০ কিলোমিটার জনসংযোগ যাত্রার শেষ পর্বে মোদির বারাণসিতে গিয়ে নোঙর ফেলে তার প্রচার স্টিমার।

রামনগরঘাট থেকে মোটরবোটে অসিঘাট। তার পর দশাশ্বমেধ ঘাটে আরতি। ভিড় করে থাকা উৎসাহী সমর্থকরা তার দিকে ফুল ছুড়তে থাকেন।

বারাণসিতে দাঁড়িয়ে প্রিয়াংকা গত লোকসভা ভোটে বিজেপির ইশতেহার তুলে ধরে বলেন, বারাণসির জন্য মোদিজির দেয়া আটটি প্রতিশ্রুতির কথা এখানে রয়েছে। এর মধ্যে একটি প্রতিশ্রুতিও পূরণ হয়েছে কী- হয়নি?

তিনি বলেন, প্রতিশ্রুতি দিয়ে মোদি একটা কথাও রাখেননি। কারণ প্রচারের রাজনীতি খুব সোজা। কিন্তু তা বাস্তবে রূপ দেয়া অনেক কঠিন। তিনি এই পাঁচ বছরে কোনো উন্নয়নই করেননি। করেছেন শুধু প্রচার, বলেন তিনি।

প্রিয়াংকার এই গঙ্গাযাত্রা নির্বাচনে নতুন মোড় আনতে পারে। কারণ তার এই যাত্রা মিডিয়া অনেক ফলাও করে প্রকাশ করেছে।

এ ছাড়া সন্ত্রাস দমনেও অনেক নাটক করতে গিয়ে ধরা খেয়েছেন মোদি। সর্বশেষ বালাকোটে জঙ্গি দমনের নাটকের পর্দা সবার সামনে ফাঁস হয়ে গেছে।

এ ছাড়া গঙ্গাযাত্রার পূর্বে হনুমান মন্দিরে তার পূজা অর্পণ ভোটারদের মধ্যে কার্যকর ভূমিকা রেখেছে।

তা ছাড়া প্রিয়াংকাকে সবসময় তার দাদি ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে তুলনা করা হয়। যদিও এটি দেখার পালা যে, প্রিয়াংকা তার দাদির মতো সফল নেতা হতে পারেন কিনা। আর ১৯৭৯ সালে ইন্দিরা গান্ধীও গঙ্গাযাত্রা করার আগে হনুমান মন্দিরে গিয়েছিলেন।

প্রিয়াংকাও তার দাদির মতো মাতা নুইয়ে হনুমান মন্দিরে পূজা অর্পণ করেছেন। এ ছাড়া প্রিয়াংকা মহিলা ভোটারদের কাছে অনেক বেশি জনপ্রিয়। আর ভারতে এবার পুরুষ ভোটারদের চেয়ে মহিলা ভোটারদের সংখ্যা বেশি। প্রিয়াংকা সেই সুবিধা কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন।

আর কংগ্রেসও বিশ্বাস করে, তারা যদি তাদের পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে চায়, তবে উত্তরপ্রদেশে তাদের ভতি শক্ত করতে হবে।

আর প্রিয়াংকার আগমন উত্তরপ্রদেশে ভোটের মাঠে নতুন মোড় আনতে পারে। এ ছাড়া উত্তরপ্রদেশে প্রিয়াংকা সেসব দলিতকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছেন, যারা ২০১৪ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন কারণে বিজেপির দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে।

আর প্রিয়াংকা যদি তার কৌশলে সফল হতে পারেন, তা হলে এটি অবশ্যই বিজেপির জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

সূত্র: এনডিটিভির মতামত।

ঘটনাপ্রবাহ : ভারতের জাতীয় নির্বাচন-২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×