ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র?
jugantor
ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র?

   

২৫ মার্চ ২০১৯, ১৬:০০:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র?

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভেনিজুয়েলার উত্তেজনার মধ্যেই রাশিয়া সেনাবাহিনী পাঠিয়েছে ভেনিজুয়েলায়।

দুটি বিমানে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা ও প্রায় শতাধিক সেনাসদস্য পাঠানো হয়েছে।

শনিবার দেশটির প্রধান বিমানবন্দরে বিমান দুটি অবতরণ করে বলে সোমবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

অর্থনৈতিক সংকট আর কারচুপির নির্বাচন নিঙে ভেনিজুয়েলার জনগণ সরকারবিরোধী বিক্ষোভে জড়িয়ে পড়েছিল।

এ সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। এর পরই তাকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টিরও বেশি দেশ। এমন উত্তেজনার মধ্যেই গত ৮ মার্চ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে ভেনিজুয়েলার অর্ধেকেরও বেশি এলাকা। দেশটির ২৩টির মধ্যে ১৮টি রাজ্যেই অন্ধকারে কাটাতে হয় বাসিন্দাদের।

কর্তৃপক্ষের বলছে, সরকারবিরোধীরা এই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। এর মধ্যেই ভেনিজুয়েলায় সেনা পাঠালো রাশিয়া।

প্রতিবেদনেনর ফ্লাইট ট্র্যাকিংয়ের সঙ্গে যুক্ত একটি ওয়েবসাইটের বরাতে বলা হয়েছে, শুক্রবার রাশিয়ার মিলিটারি এয়ারপোর্ট থেকে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসের উদ্দেশে যাত্রা করে দুটি বিমান। এতে বলা হয়, রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ভেনিজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এতে আরও বলা হয়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকেও আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।


তিন মাস আগে ভেনিজুয়েলার মাটিতে রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়ার পরই ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েনের ঘটনা ঘটল। সে সময় ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রপতি নিকোলাস মাদুরো বলেছিলেন, যৌথ সামরিক মহড়ার মাধ্যমে রাশিয়ার সঙ্গে দৃঢ় সম্পর্কের বিষয়টি প্রকাশিত হলো। কিন্তু এই ঘটনার সমালোচনা করে ওয়াশিংটনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ওই এলাকায় সীমালঙ্ঘনের চেষ্টা করছে রাশিয়া।

ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র?

  
২৫ মার্চ ২০১৯, ০৪:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র?
ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েন, কী করবে যুক্তরাষ্ট্র? ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভেনিজুয়েলার উত্তেজনার মধ্যেই রাশিয়া সেনাবাহিনী পাঠিয়েছে ভেনিজুয়েলায়। 
 
দুটি বিমানে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা ও প্রায় শতাধিক সেনাসদস্য পাঠানো হয়েছে। 

শনিবার দেশটির প্রধান বিমানবন্দরে বিমান দুটি অবতরণ করে বলে সোমবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়। 

অর্থনৈতিক সংকট আর কারচুপির নির্বাচন নিঙে ভেনিজুয়েলার জনগণ সরকারবিরোধী বিক্ষোভে জড়িয়ে পড়েছিল। 

এ সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। এর পরই তাকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টিরও বেশি দেশ। এমন উত্তেজনার মধ্যেই গত ৮ মার্চ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে ভেনিজুয়েলার অর্ধেকেরও বেশি এলাকা। দেশটির ২৩টির মধ্যে ১৮টি রাজ্যেই অন্ধকারে কাটাতে হয় বাসিন্দাদের। 

কর্তৃপক্ষের বলছে, সরকারবিরোধীরা এই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। এর মধ্যেই ভেনিজুয়েলায় সেনা পাঠালো রাশিয়া।

প্রতিবেদনেনর ফ্লাইট ট্র্যাকিংয়ের সঙ্গে যুক্ত একটি ওয়েবসাইটের বরাতে বলা হয়েছে, শুক্রবার রাশিয়ার মিলিটারি এয়ারপোর্ট থেকে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসের উদ্দেশে যাত্রা করে দুটি বিমান। এতে বলা হয়, রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ভেনিজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এতে আরও বলা হয়, রাশিয়ার প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকেও আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।


তিন মাস আগে ভেনিজুয়েলার মাটিতে রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়ার পরই ভেনিজুয়েলায় রুশ সেনা মোতায়েনের ঘটনা ঘটল। সে সময় ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রপতি নিকোলাস মাদুরো বলেছিলেন, যৌথ সামরিক মহড়ার মাধ্যমে রাশিয়ার সঙ্গে দৃঢ় সম্পর্কের বিষয়টি প্রকাশিত হলো। কিন্তু এই ঘটনার সমালোচনা করে ওয়াশিংটনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ওই এলাকায় সীমালঙ্ঘনের চেষ্টা করছে রাশিয়া।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ভেনিজুয়েলায় অচলাবস্থা