গণহত্যায় জড়িত সেনা ও পুলিশের বিচার করবে মিয়ানমার!

  অনলাইন ডেস্ক ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২১:০০ | অনলাইন সংস্করণ

Mayanmar

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ইন দিন গ্রামে ১০ রোহিঙ্গা মুসলমানকে হত্যার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে মিয়ানমার সরকার। সরকারের মুখপাত্র জ হাতেয় রোববার এ তথ্য জানিয়ে বলেন, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সাত সেনা, তিন পুলিশ ও ছয়জন গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া তা স্পষ্ট করেননি তিনি।

এদিকে মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধরা এ পর্যন্ত হাজার হাজার মুসলমানকে হত্যা করলেও এ জন্য কাউকেই বিচারের সম্মুখীন করা হয়নি। এমনকি তারা অপরাধ সংঘটিত হওয়ার কথা স্বীকারই করেনি। এ প্রেক্ষিতে ১০ রোহিঙ্গা মুসলিম হত্যার ঘটনার বিচারের ঘোষণাকে চাপে পড়ে কাবু হওয়া বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। কারণ এ ঘটনাটি ফাঁস হয়ে গেছে এবং প্রামাণ্য প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে। আর রোহিঙ্গারাও বলছেন, সরকার এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে নিজেদের অপরাধ আড়াল করতে চাচ্ছে।

মিয়ানমারে ইনদিন গ্রামে গণহত্যার ওপর একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের কারণে রয়টার্সের সাংবাদিক ওয়া লো এবং চ সো উকে গত কয়েক মাস ধরে মিয়ানমারের কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরেস তাদের মুক্তি দাবি করেছেন।

রয়টার্স শুক্রবার প্রকাশিত অনুসন্ধানি প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এই প্রথমবারের মতো বৌদ্ধ গ্রামবাসীরা রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে, মুসলমানদের হত্যা করে লাশ পুঁতে ফেলার কথা স্বীকার করেছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য, গ্রামবাসী আর রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য মিলিয়ে রয়টার্স বলছে, বৌদ্ধ প্রতিবেশীদের হাতে কবর খোঁড়ার দৃশ্য দেখার অল্প সময় পরই সেই কবরে একসঙ্গেই ঠাঁই হয় ১০ রোহিঙ্গার।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

E-mail: [email protected], [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter