দিল্লি কীভাবে দখল করতে হয়, তৃণমূল জানে: মমতা

  যুগান্তর ডেস্ক    ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ২৩:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, দিল্লি কী ভাবে দখল করতে হয়, তৃণমূল জানে। বিজেপি কিছুতেই ক্ষমতায় ফিরবে না। মুর্শিদাবাদে আরএসএসের সাহায্য নিয়ে লড়ছে কংগ্রেস।আঞ্চলিক দলগুলোকে সঙ্গে নিয়ে তৃণমূলই সরকার গড়বে।

শুক্রবার বহরমপুরের এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

‘বিয়াল্লিশে বিয়াল্লিশ’— এই স্লোগান নিয়েই কয়েকমাস আগ থেকে দলের সভা, মিছিল, পোস্টারে দলটির উপস্থিতি।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায় নির্বাচনী জনসভাগুলোতে মমতা বাংলার সব আসনে তৃণমূলকে জেতানোর আহ্বান জানাচ্ছেন। তৃণমূলই এ বার দিল্লির সরকার গঠনের চাবিকাঠি হয়ে উঠতে চলেছে বলেও গত কয়েক দিন ধরে তিনি দাবি করছেন।

জনসভায় মমতা বলেন, আপনার ভোটটা তৃণমূল কংগ্রেসকে দিন। তার কারণ এ বারের বাংলা সালটা হচ্ছে ১৪২৬। ১৪২৬, বাংলা চায় বিয়াল্লিশে বিয়াল্লিশ। তিনি বলেন, বিয়াল্লিশটা সিট দিন, দিল্লি কীভাবে কাঁপাতে হয় আমরা জানি। দিল্লি কী করে দখল করতে হয় আমরা জানি। দিল্লিতে কীভাবে সরকার গড়তে হয় আমরা জানি।

জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসই সবাইকে নিয়ে সরকার গড়বে। উত্তরপ্রদেশ, বাংলা সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে করব আমরা। কোনো অসুবিধা নেই। তিনি বলেন, সরকার গঠন করতে বিজেপি পারবে না, নিশ্চিন্ত থাকুন। আঞ্চলিক দলগুলো মিলেমিশে সরকার গড়বে।

দেশটির গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী মমতার প্রস্তাবিত ফেডারেল ফ্রন্টযদি সরকার গড়ে, তাহলে তিনিই প্রধানমন্ত্রী হবেন এমন কোনো মন্তব্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করেননি। তৃণমূলকেই প্রধান শাসক দল হিসেবে গ্রহণ করে সরকার গঠন করতে হবে এমন কোনো শর্তও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাখেননি।

কিন্তু এবার সরকার গঠনে বাংলা আর উত্তরপ্রদেশ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মন্তব্য করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ কথাও বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন যে, তৃতীয় শক্তি সরকার গঠন করলে যে দু’তিনটি দল সবচেয়ে বড় ভূমিকা নেবে, তার মধ্যে তৃণমূল অন্যতম।

বাংলা থেকে ৪২টি আসন যদি তৃণমূল জেতে, তা হলে লোকসভায় তৃণমূলই যে তৃতীয় বৃহত্তম শক্তি হবে, তা নিশ্চিত। কারণ বিজেপি ও কংগ্রেসকে বাদ রাখলে অন্য কোনো দল এতগুলো আসনে জিততে পারবে না। সে ক্ষেত্রে সম্ভাব্য ফেডারেল ফ্রন্টের নেতৃত্ব যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতেই থাকবে, তা নিয়ে সংশয়ের অবকাশ কম।

সূত্র: আনন্দ বাজার

ঘটনাপ্রবাহ : ভারতের জাতীয় নির্বাচন-২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×