জরুরি বৈঠকে শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী, সেনা মোতায়েন

প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:২২ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোসহ অন্যান্য এলাকার তিনটি গির্জা ও তিনটি বিলাসবহুল হোটেলে কয়েক দফা বিস্ফোরণের পর জরুরি নিরাপত্তা হিসেবে দেশটির গির্জা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোয় সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। মর্মান্তিক এ হামলার পর শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে জরুরি বৈঠকে বসেছেন।

ভয়াবহ এ সিরিজ বিস্ফোরণের পর দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে। 

জাতির উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাদের জনগণের ওপর আজ যে কাপুরুষোচিত হামলা চালানো হয়েছে আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এই দুঃখজনক সময়ে আমি শ্রীলংকার নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ ও শক্ত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। দয়া করে যাচাই বাছাই না করে কোনও গুজব ছড়াবেন না। সরকার অবিলম্বে ব্যবস্থা নিচ্ছে।

এদিকে শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা বলেছেন, ইস্টার সানডের সকালে যেসব গির্জায় বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে সেখানে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। 

ভয়াবহ এই বোমা হামলার পর প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা এক বিবৃতিতে সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, নিরাপত্তা বাহিনী এই বোমা হামলার তদন্ত শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে শ্রীলংকায় সিরিজ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।  দেশটির ক্যাথলিক গির্জায় তিনটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া কলম্বোর মূল কেন্দ্রে অবস্থিত তিনটি বিলাসবহুল হোটেল সিন্নামন গ্রান্ড, কিংসবুরি ও শ্যাংরি লা হোটের তিনটি বিস্ফোরণ ঘটে।

তবে হামলার ধরন নিয়ে এখন পর্যন্ত পরিষ্কার ধারনা পাওয়া যায়নি। প্রথম বিস্ফোরণটি ঘটে রাজধানীর একটি গির্জায়। প্রায় আধঘণ্টা পরে পরবর্তী হামলাগুলো ঘটে।

কলম্বোর জাতীয় হাসপাতালের পরিচালকের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, এছাড়াও তিন শতাধিক লোক এ বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন।

এখন পর্যন্ত হামলার ঘটনায় কেউ দায় স্বীকার করেনি। হামলার শিকার তিন হোটেল এবং একটি গির্জা রাজধানীতে হলেও বাকিগুলো নিগমবো ও উত্তর কলম্বোয় অবস্থিত। এসময় হাজার হাজার লোক ইস্টারের প্রার্থনারত ছিলেন।