শ্রীলংকার ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত কারা?

  যুগান্তর ডেস্ক    ২২ এপ্রিল ২০১৯, ২২:৫৩ | অনলাইন সংস্করণ

শ্রীলংকার ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত কারা?
শ্রীলংকার ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত কারা?

শ্রীলংকায় রোববার ইস্টার সানডের পর্বের মধ্যে দুই দফায় তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলসহ আট জায়গায় বোমা হামলায় নিহত হয়েছেন ২৯০ জন। এ হামলায় আহত হয়েছেন আরও ৫০০ জন। এ হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ২৪ জনকে আটক করেছে।

নিহতদের মধ্যে বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নেতা শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতিও রয়েছে। এছাড়া শেখ সেলিমের জামাতাও আহত হয়েছেন।

এই হামলার জন্য স্থানীয়ভাবে অচেনা একটি জিহাদি গ্রুপ, ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াতকে দায়ী করছে শ্রীলঙ্কার সরকার। ফলে তদন্তকারীরা এখন এই গ্রুপটির প্রতি বিশেষভাবে নজর দিচ্ছেন।

যদিও কোনো গোষ্ঠী এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি।

শ্রীলঙ্কার কর্মকর্তারা বলছেন, এরা স্বল্প পরিচিত নতুন একটি গোষ্ঠী, যাদের সম্পর্কে কিছুদিন আগেও তেমন একটা জানা ছিল না।

কিছুদিন আগে একটি বুদ্ধ ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনার সঙ্গে এই গ্রুপটি জড়িত ছিল বলে ধারণা করা হয়।

বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ছড়ানোর অভিযোগে ২০১৬ সালে গোষ্ঠীটির একজন নেতাকে গ্রেফতারের পর প্রথম এটি আলোচনায় আসে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াত গ্রুপটি ইসলামপন্থী সন্ত্রাসী ধ্যানধারণা লালন করে।

শ্রীলঙ্কার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, এই গ্রুপটি কাট্টাকুডি নামের একটি মুসলিম-অধ্যুষিত শহরে ২০১৪ সালে গঠিত হয়। তবে এর আগে কোনো মারাত্মক হামলা চালানোর সঙ্গে এদের নাম শোনা যায়নি।

তবে দলটি তথাকথিত ইসলামিক স্টেট গ্রুপকে সমর্থন করত বলে জানা যাচ্ছে। শ্রীলংকায় মোট জনসংখ্যার প্রায় ১০ ভাগ মুসলমান বাস করছে।

তবে চার্চে ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াতের হামলার ১০ দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা শ্রীলঙ্কার পুলিশকে সতর্ক করে দিয়েছিল বলে দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে।

এদিকে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা হামলাকারীদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক খুঁজে বের করার জন্য বিদেশি সহায়তা চাইবেন বলে জানানো হয়েছে এক বিবৃতিতে।

সিরিসেনার কার্যালয় বলেছে, স্থানীয় সন্ত্রাসীদের পেছনে বিদেশি সন্ত্রাসী সংগঠন জড়িত বলে গোয়েন্দা প্রতিবেদনে আভাস দেওয়া হয়েছে।এ কারণেই প্রেসিডেন্ট বাইরের দেশগুলোর সহায়তা চাইবেন।

এর আগে রোববার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহ বলেছিলেন, নিরাপত্তা বিভাগ হামলা হওয়ার ব্যাপারে আগেই জানতে পেরেছিল। কিন্তু সে তথ্যের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

সূত্র: বিবিসি

ঘটনাপ্রবাহ : শ্রীলংকায় গির্জা ও হোটেলে সিরিজ হামলা

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×