গরিবের বন্ধু মমতা এতই গরিব?

প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

সাদামাটা জীবনযাপনে অভ্যস্ত মমতা ব্যানার্জি। রাজ্যের সাধারণ মানুষের সঙ্গে তার ওঠাবসা। তার সাদামাটা জীবনের সত্যতা আবারও পাওয়া গেল। সম্প্রতি ২৯টি রাজ্য ও ২টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মুখ্যমন্ত্রীদের সম্পত্তি ও মামলা নিয়ে অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস ও ন্যাশনাল ইলেকশন ওয়াচ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানেই জানা গেলো ভারতের মুখ্যমন্ত্রীদের মধ্যে মমতার অবস্থান দ্বিতীয়। তার সম্পত্তির পরিমাণ ৩০ লাখ রুপি।

ওই তালিকা অনুযায়ী দেশটির সবচেয়ে ধনী মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন অন্ধ্রপ্রদেশের চন্দ্রবাবু নাইডু। তার সম্পত্তির পরিমাণ ১৭৭ কোটি রুপি। আর ২৬ লাখ রুপি সম্পত্তির মালিক ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার সবচেয়ে দরিদ্র মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে ওই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা জম্মু ও কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির সম্পত্তির পরিমাণ ৫৫ লাখ রুপি।

প্রতিবেদনটিতে বলা হচ্ছে, ৩১ জনের মধ্যে ২৫ জনই কোটিপতি। আর দুইজনের সম্পত্তি শতকোটির ওপর। সেখানে আরও বলা হয়েছে, এই মুখ্যমন্ত্রীদের মধ্যে ১১ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা চলছে।

মামলার সংখ্যার দিক দিয়ে শীর্ষে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ। তার বিরুদ্ধে ২২টি মামলা রয়েছে। দুই নম্বরে আছেন কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। তার মামলার সংখ্যা ১১টি। আর দুর্নীতিবিরোধী প্রচারণা চালিয়ে দিল্লিতে ক্ষমতায় আসা অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে আছে ১০টি মামলা। প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ২০ জন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি মামলা নেই। আর শিক্ষাগত যোগ্যতায় সবচেয়ে এগিয়ে সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিং। তার ডক্টরেট ডিগ্রি রয়েছে। আর স্নাতক ডিগ্রি আছে ৩৯ শতাংশ মুখ্যমন্ত্রীর।