ভারতে প্রশিক্ষণ নিয়েছিল সেই হামলাকারীরা: শ্রীলংকার সেনাপ্রধান

  যুগান্তর ডেস্ক ০৪ মে ২০১৯, ২১:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

লংকান সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল মহেশ সেনানায়েকে
শ্রীলংকার সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল মহেশ সেনানায়েকে। ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলংকায় ঘটে যাওয়া স্মরণকালের বর্বরোচিত হামলার সঙ্গে জড়িতরা এ ঘটনার আগে ভারত সফর করেছিলেন। প্রশিক্ষণ গ্রহণের উদ্দেশে হামলাকারীরা ভারতের কাশ্মীর, বেঙ্গালুরু ও কেরালা গিয়েছিলও বলে জানিয়েছেন লংকান সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল মহেশ সেনানায়েকে।

বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে লংকান সেনাপ্রধান এসব কথা জানান।

মহেশ সেনানায়েকে বলেন, হামলাকারীদের সম্পর্কে আমাদের কাছে তথ্য আছে যে হামলাকারীরা ভারতের কাশ্মীর, বেঙ্গালুরু ও কেরালায় গিয়েছিলেন। তাদের সেখানে যাওয়ার প্রকৃত উদ্দেশ্য কী ছিল, তা জানা যায়নি। সম্ভবত সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে তারা ভারত সফর করেছিল।

হামলার ব্যাপারে গোয়েন্দা তথ্য থাকার পরও কেন আগাম ব্যবস্থা নেয়া হয়নি এ প্রশ্নের উত্তরে লংকান সেনাপ্রধান বলেন, আগাম তথ্যগুলো বিভিন্ন রকমের ছিল। সুনিশ্চিতভাবে কিছু জানানো হয়নি। তাছাড়া সরকারের মধ্যে বোঝাপড়ায় একটা ফারাকও হয়তো ছিল। বিষয়টি সবাই এখন জানেন।

এর আগে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ইস্টার সানডে প্রার্থনার সময় একযোগে বিস্ফোরণে মূল ভূমিকা রাখা জাহরান হাশেম দীর্ঘদিন ধরে ভারতে অবস্থান করেছিলেন। আত্মঘাতী হামলার প্রশিক্ষণসহ ২০১৪ সালে জাতীয় তাওহিদ জামাত গঠনের পরিকল্পনা তিনি ভারতে বসে করেছিলেন বলে জানা গেছে।

শ্রীলংকার প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুয়ান জয়াবর্ধনেও সংসদে বলেছেন, তদন্তে দেখা গেছে স্থানীয় ন্যাশনাল তৌহিদ জামায়াত (এনটিজে) এ ঘটনার পেছনে ছিল। এর সঙ্গে ভারতের ছোট মৌলবাদী ইসলামি গোষ্ঠীর সংযোগ রয়েছে।

সংসদে জয়াবর্ধনে বলেন, এই ন্যাশনাল তৌহিদ জামায়াত গোষ্ঠীর হামলার সঙ্গে (জেএমআই) ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। তিনি বলেন, এখানে উল্লেখ করা যায় জামায়াত-উল-মুজাহিদীন ভারত নামে পরিচিত এ গোষ্ঠীটি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু জানায়, আত্মঘাতী জাহরান হাশেম দীর্ঘদিন দক্ষিণ ভারতে ছিলেন। এ সময় আন্তর্জাতিক বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে তার যোগাযোগ হয়। এরপর ২০১৪ সালে কাট্টানকুডিতে জাতীয় তাওহিদ জামাত গঠন করেন তিনি। চরমপন্থী এ সংগঠনটি পরিচালনার ক্ষেত্রে ভারত থেকেই যাবতীয় সহায়তা পেতেন জাহরান হাশেম।

এর আগে বলা হয়েছিল, শ্রীলংকায় সিরিজ বোমা হামলায় জড়িত একজন দুবার ভারত সফরে গিয়েছিলেন। তবে ভারত ওই আত্মঘাতী হামলাকারীর সফরের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করেনি। নয়জন আত্মঘাতী হামলাকারীর একজন মোহাম্মদ মোবারক আজান। তিনি ২০১৭ সালে দুবার ভারতে এসেছিলেন।

এদিকে জাহরান হাশেমের এক ভক্তকে আটক করে কারাগারে নিয়েছে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী। দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কেরালায় তিনি একটি আত্মঘাতী হামলার চালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।

রিয়াস আবু বকর নামের নামের ২৯ বছর বয়সী ওই ভারতীয় নাগরিককে গ্রেফতার করেছে দেশটির জাতীয় সদন্ত সংস্থা(এএনআই)। পরে স্থানীয় আদালতে হাজির করার পর তাকে বিচারিক আদালতে সমর্পণ করা হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : শ্রীলংকায় গির্জা ও হোটেলে সিরিজ হামলা

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×