তারাবি শেষ হতেই সাহরির সময় হয়ে যায় যে দেশে

  তাওহিদ নুজাইম ২০ মে ২০১৯, ১৬:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

তারাবি শেষ হতেই সাহরির সময় হয়ে যায় যে দেশে
ছবি: সংগৃহীত

সুইডেনের জনসংখ্যার প্রায় ৫ শতাংশ ইসলাম ধর্মের অনুসারী। ১৯৯৮ সালে সুইডেনে ৩ দশমিক ২১ শতাংশ মুসলিম হলেও ২০১৪ সালের মধ্যেই এ সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ পরিণত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, অন্য ধর্মাবলম্বীরা যেভাবে ইসলামের দিকে ধাবিত হচ্ছে, সে ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৩০ সালের মধ্যেই সুইডেনে মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশ হবে মুসলিম।

বাংলাদেশের তরুণ হাফেজ আনাস মুহাম্মদ পরিবারের সঙ্গে স্টকহোমে বসবাস করছেন দীর্ঘদিন ধরে।

সুইডেনের মুসলমানরা কীভাবে রমজানের সময় অতিবাহিত করেন তার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো রমজানে সুইডেনের মুসলমানদের মধ্যেও একটা ভিন্ন আমেজ ও ভালোলাগা কাজ করে। এখানে প্রায় বিশ ঘণ্টা রোজা রাখতে হয়। কিন্তু ক্লান্তি বা অবসাদ তেমন অনুভব হয় না।

বাংলাদেশের মতোই মুসলমানদের বাসায় হরেকরকমের ইফতারের আয়োজন থাকে। রমজানের সময়টুকু সবাই মিলেমিশে অতিবাহিত করেন।

সুইডেনে সরকার অনুমোদিত মসজিদগুলোতেই মাইক ব্যবহার করা যায়। তবে দিন দিন মুসল্লির সংখ্যা বাড়ায় ঘরোয়াভাবে অনেক মসজিদ নির্মিত হয়েছে এবং হচ্ছে। এসব মসজিদে সরকার কর্তৃক অনুমোদন না থাকায় মাইকে আজান হয় না। মসজিদগুলোতে দিন দিন মুসল্লিদের সংখ্যা বাড়ছে বলেও জানান এ বাংলাদেশি তরুণ।

সুইডেনে রাতের সময় খুবই অল্প। হাফেজ আনাস জানান, এখানে রাতের সময় খুব ছোট। অনেক মসজিদে খতম তারাবি হয়। আমিও স্টকহোমের একটি মসজিদে খতম তারাবি পড়াই। ব্যক্তিগত উদ্যোগেই মসজিদটি হয়েছে।

স্বল্পসময়ের রাতে খুব দ্রুতই তারাবি শেষ করতে হয়। তারাবির নামাজ শেষ হতেই সেহরির সময় হয়ে যায়। সে হিসেবে বলা যায়, সুইডেনের মুসলমানদের পুরো রাতটুকুই ইবাদত-বন্দেগিতে অতিবাহিত হয়।

হাফেজ আনাস জানান, রোজা ও ঈদ উপলক্ষে সুইডেনে মুসলিমদের জন্য কোনো বিশেষ ছুটি, পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ কিংবা রেডিও ও টেলিভিশনে কোনো বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার হয় না। তবে অমুসলিম এ দেশে মুসলমানদের ঘরে ঘরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। নিজেদের মধ্যেই ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করেন এখানকার মুসলিমরা।

ঘটনাপ্রবাহ : রমজান ২০১৯

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×