মোদির শপথের সময় বিজেপির ওয়েবপেজে গরুর মাংস রান্নার রেসিপি

  ০১ Jun ২০১৯, ১৯:৫৮:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

বিজেপির ওয়েবপেজে গরুর মাংস রান্নার রেসিপি। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদে নরেন্দ্র মোদি যখন শপথ নিচ্ছিলেন তখন তার দল ভারতীয় জনতা পার্টির ওয়েব সাইট হ্যাক করে পেজে গরুর মাংস রান্নার ছয়টি রেসিপি পোস্ট করে দেয়া হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, হ্যাক হওয়ার কিছুক্ষণ পরই বিজেপির ওয়েবসাইটে আর প্রবেশ করা যাচ্ছিল না।

নির্বাচনের আগেও বিজেপির ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়েছিল এবং অনেকদিন ওয়েবসাইটটি ডাউন ছিল।

হ্যাক হওয়ার পর পেজে রেসিপি দেওয়ার পাশাপাশি ‘বিফ ফ্লাই’ ও ‘বিফ কিমার’ ছবি পোস্ট করা হয়। ছবির নিচে লেখা ছিল ‘হ্যাকড বাই ‘শ্যাডো­­ ভি১পি৩আর’।

এছাড়া ‘বিজেপি লিডারশিপ’ পাতার জায়গায় দেখা গেছে ‘বিফ লিডারশিপ’। ওই পাতায় মিটলোফের ছবি ছিল।

মোদির হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গরু নিয়ে বিভিন্ন গুজব তুলে ভারতে মুসলমানদের ওপর নানা নিপীড়ন-নির্যাতন শুরু হয়। এমনকি গরুর মাংস সংরক্ষণ এবং গরু পরিবহনের অভিযোগে গণপিটুনিতে কয়েকজন প্রাণও হারান।

২০১৭ সালের মে মাসে জবাই করার জন্য গরু চুরির চেষ্টা করছিল অভিযোগ তুলে ভারতের আসামে উত্তেজিত জনতা মুসলমান দুই ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে।

ওই সময় প্রকাশিত হিউম্যান রাইটস ওয়াচের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ২০১৫ সালের মে মাস থেকে ২০১৭ সালের মে মাস পর্যন্ত ভারতে অন্তত ১০ জন মুসলমানকে গোরক্ষার নামে উত্তেজিত জনতা পিটিয়ে হত্যা করেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২০১৪ সালে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) সরকার গঠনের পর থেকে দেশটির মুসলিম ও দলিত সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনা অনেক বেড়ে গেছে।

মানবাধিকার কর্মীদের অভিযোগ, গোরক্ষার নামে এ হত্যাকাণ্ড এবং নিপীড়ন বন্ধে মোদী সরকার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে অনিচ্ছুক। ফলে পুলিশও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় না।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত