আইএসের বার্তায় ধোনির নাম!

প্রকাশ : ০৬ জুন ২০১৯, ০৩:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

ভারতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি

বুধবার ইংল্যান্ডের সাউদাম্পটনে রোহিত শর্মার অনবদ্য সেঞ্চুরিতে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৫ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলটি।

দলের এ জয়ে অসামান্য অবদান রয়েছে সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির। রোহিতের সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে তার ৭৪ রানের জুটি জয়ের দুয়ারে নিয়ে যায় ভারতকে।

ধোনি যখন সাউদাম্পটনে বিশ্বকাপে মজেছেন তখন ভারতে তার ব্যাপারে বের হয়ে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য।

আইএসের (ইসলামিক স্টেটস) ছুঁড়ে দেয়া এক বার্তায় ধোনির নাম পাওয়া গেছে।  

শুধু ধোনিরই নয় অই বার্তায় আরও নাম লেখা হয়েছে দিল্লির মূখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদির।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ সূত্রে প্রকাশ, মঙ্গলবার ভারতের নভি মুম্বাই শহরের কোপ্তা ব্রিজের একটি থামে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রশংসা করে একটি বার্তা লেখা পাওয়া যায়। সেই বার্তার পাশাপাশি লেখা থাকে এই তিনজনের নাম। এছাড়াও সেখানে পোর্ট, এয়ারপোর্ট ও পাইপলাইনের ছবি আঁকা রয়েছে।

ঘটনাটি জন সাধারণে ছড়িয়ে পড়লে শহরটিতে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছে মুম্বাই পুলিশ।

ব্রিজের থামে লেখা সেই আইএসের প্রশংসায় বার্তা, ছবি: সংগৃহীত

এই বিষয়ে নভি মুম্বাই শহরের পুলিশ কমিশনার সঞ্জয় কুমার বলেন, ’ব্রিজে লেখা সেই বার্তাটিতে কেজরিওয়াল, ধোনি এবং বাগদাদির নাম স্পষ্টভাবে লেখা আছে। অই স্থানটি থেকে আমরা বিয়ারের বোতল, মদসহ সম্ভাব্য সব প্রমাণ সংগ্রহ করেছি।’

এ বিষয়ে জোর তদন্ত চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা সম্ভাব্য সব দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়টির তদন্ত করছি।’

তিনি যোগ করেন, ’স্থানীয়দের কাছ থেকে শুনেছি ওই স্থানে সবসময়ই তরুণরা আড্ডা দেয় ও নিরিবিলিতে মদ্যপান করে।’

বার্তাটি বিষয়ে সঞ্জয় কুমার বলেন, ‘আইএসের প্রশংসা করা বার্তাটিতে সময় উল্লেখ করে বিস্তারিত বলা হয়েছে যে কিভাবে লোকদের আক্রমণ করা হবে।’

কোন ঝুঁকি নিতে চাই না জানিয়ে তিনি যোগ করন, ‘ বার্তায় যাদের নাম লেখা হয়েছে সেটা কোড ওয়ার্ডও হতে পারে। তবে কোনো রকম ঝুঁকি নিতে চাই না আমরা। অত সাবধানতার সঙ্গে তদন্তের কাজ পুরোদমে চলছে।’

তবে বিষয়টি স্থানীয় ছেলেদের মশকরা বলে ভাবছেন পুলিশের এক সিনিয়র কর্মকর্তা।

তবুও বিষয়টি হালকাভাবে না নিয়ে ওই স্থানের কাছাকাছি থাকা সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বল জানান তিনি।