সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
jugantor
সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

   

১২ জুন ২০১৯, ১৭:৪৪:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। ছবি: সংগৃহীত

সৌদি আরবের আবহা বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা। এতে নারী-শিশুসহ ২৬ জন আহত হয়েছেন। এ বিমানবন্দরটি দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত। 

দেশটির সামরিক মুখপাত্রের বরাতে জানানো হয়, বুধবার এ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তিনজন নারী ও দুইজন শিশু আহত হয়েছে। 

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট ইয়েমেন সরকারের পক্ষে চার বছর ধরে হুতিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। 

এর আগে সোমবার সৌদি আরবের খামিস শহরের কাছে মুশত্যা এলাকা টার্গেট করে দুটি ড্রোন হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতিরা। তবে সৌদি আরব দাবি করছে তাদের বিমানবাহিনী ড্রোন দুটিকে ধ্বংস করেছে। 

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের মুখপাত্র মঙ্গলবার সৌদি প্রেস এজেন্সিকে দেয়া এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানায়।

হুতি নিয়ন্ত্রিত মাসিরাহ টেলিভিশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি আরবের দিক্ষণ-পশ্চিমে কিং খালিদ বিমানা ঘাঁটির কাছে খামিস শহরের মুশত্যা এলাকায় ইরান সমর্থিতরা হামলা চালায়।

২০১৪ সালে রাজধানী সানা দখলের পর সৌদি সমর্থিত ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল হাদিকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করে হুতিরা। তারপর থেকেই দেশের বাইরে রয়েছে তিনি। 
তাকে ক্ষমতায় ফেরাতে ২০১৫ সালের জুনে ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে হামলা শুরু করে সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট।

সে কারণেই সৌদির বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালাচ্ছে হুতিরা। ইয়েমেনের এই বিদ্রোহীগোষ্ঠী বলছে, তারা সৌদি আরব, ইয়েমেন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৩০০ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাকে টার্গেট করে হামলা অব্যাহত রাখবে।

সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

  
১২ জুন ২০১৯, ০৫:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
সৌদির বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। ছবি: সংগৃহীত

সৌদি আরবের আবহা বিমানবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা। এতে নারী-শিশুসহ ২৬ জন আহত হয়েছেন। এ বিমানবন্দরটি দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত।

দেশটির সামরিক মুখপাত্রের বরাতে জানানো হয়, বুধবার এ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তিনজন নারী ও দুইজন শিশু আহত হয়েছে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট ইয়েমেন সরকারের পক্ষে চার বছর ধরে হুতিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে।

এর আগে সোমবার সৌদি আরবের খামিস শহরের কাছে মুশত্যা এলাকা টার্গেট করে দুটি ড্রোন হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতিরা। তবে সৌদি আরব দাবি করছে তাদের বিমানবাহিনী ড্রোন দুটিকে ধ্বংস করেছে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের মুখপাত্র মঙ্গলবার সৌদি প্রেস এজেন্সিকে দেয়া এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানায়।

হুতি নিয়ন্ত্রিত মাসিরাহ টেলিভিশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি আরবের দিক্ষণ-পশ্চিমে কিং খালিদ বিমানা ঘাঁটির কাছে খামিস শহরের মুশত্যা এলাকায় ইরান সমর্থিতরা হামলা চালায়।

২০১৪ সালে রাজধানী সানা দখলের পর সৌদি সমর্থিত ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল হাদিকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করে হুতিরা। তারপর থেকেই দেশের বাইরে রয়েছে তিনি।
তাকে ক্ষমতায় ফেরাতে ২০১৫ সালের জুনে ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে হামলা শুরু করে সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট।

সে কারণেই সৌদির বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালাচ্ছে হুতিরা। ইয়েমেনের এই বিদ্রোহীগোষ্ঠী বলছে, তারা সৌদি আরব, ইয়েমেন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৩০০ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাকে টার্গেট করে হামলা অব্যাহত রাখবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ইয়ামেনে সংঘাত