পাকিস্তানে হিজড়াদের জন্য বৃদ্ধ নিবাস

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ জুন ২০১৯, ২১:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানে হিজড়াদের জন্য বৃদ্ধ নিবাস।
পাকিস্তানে হিজড়াদের জন্য বৃদ্ধ নিবাস। ছবি সংগৃহীত

পাকিস্তানে তৃতীয় লিঙ্গ বা হিজড়া সম্প্রদায়ের জন্য চালু হয়েছে বৃদ্ধ নিবাস। দেশটিতে হিজড়া সম্প্রদায় নিজেদের 'খাওয়াজা সেহরাস' বলে ডাকে।

তৃতীয় লিঙ্গ নিয়ে জন্ম নেয়ায় বেশিরভাগ সময় তারা পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। তবে তারা অন্য সব মানুষের মতো বৃদ্ধ বয়সে পা রাখে। এ সময় তাদের দেখভালের কেউ থাকে না।খবর বিবিসি বাংলার।

পাকিস্তানের আনুমানিক পাঁচ লাখ হিজরা রয়েছে। এ অসহায় মানুষগুলোর কথা চিন্তা করে তাদেরই সম্প্রদায়েরই একজন সম্প্রতি একটি অবসরকালীন নিবাস প্রতিষ্ঠা করেছেন।

যার নাম দেয়া হয়েছে 'গুরু-চেলা' ব্যবস্থা। গুরু মানে বয়স্ক কেউ, আর চেলা মানে বয়সে তরুণ কেউ। কিন্তু এই ব্যবস্থা সব সময় কাজ করে না। এই সমস্যা নিজের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা দিয়ে অনুধাবন করেছিলেন আশি বাট্।

তিনি বলছেন, একদিন একটা লোক হন্তদন্ত করে আমার কাছে এসে বলল গত সপ্তাহখানেক হল মর্গে তোমাদের একজনের মরদেহ পরে রয়েছে। কেউ সেই মরদেহ দাবি করেনি বলে কোন অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া হয়নি। আমার খুব কষ্ট লেগেছিল। আমি বিষয়টা মেনে নিতে পারিনি।

সেখান থেকেই মাথার মধ্যে একটা ধারনা ঘুরপাক খেতে থাকলো। গত আট বছর ধরে চেষ্টা চালিয়ে গেছেন।

অবশেষে এই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নিজের সম্প্রদায়ের বয়স্কদের জন্য একটি বৃদ্ধ নিবাস বা অবসরকালীন নিবাস চালু করেছেন তিনি।

বিবিসি'র মোবিন আযহার লিখেছেন, সম্মানের সঙ্গে জীবনের শেষ সময়টুকু পার করা এটা তাদের জন্য একটা বড় পাওয়া।

বয়সের সঙ্গে পরিবর্তন হয় তৃতীয় লিঙ্গের এসব মানুষের জীবন। অর্থের বিনিময়ে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের যৌনতা কেনা যায়। তাদের নাচ দেখা যায়।তবে যারা অল্প বয়সীদের তুলনায় যাদের বয়স বেশি তারা কম পয়সায় এসব সেবা দিয়ে থাকেন।

আর যখন বৃদ্ধ হয়ে যায় তখন তাদের জীবিকা নির্বাহ কঠিন হয়ে পরে।

নতুন ধারার পাকিস্তানে মানুষের চিন্তার ধারাও পরিবর্তন হচ্ছে। সেখানে হিজড়া সম্প্রদায়ের সব সময় একটা অবস্থান ছিল। মুঘল আমলে এমনকি তারা রাজদরবারে উপদেষ্টা হিসেবেও নিয়োগ পেতেন।

পাকিস্তানে এখনো অনেকে মনে করেন হিজড়ারা নব দম্পতি ও শিশুদের আশীর্বাদ করলে তা কাজে লাগে।

তাদের প্রতি বৈষম্যও ব্যাপক। এখনো তাদের প্রধান পেশা নাচ, ভিক্ষাবৃত্তি ও যৌনকর্মী হিসেবে কাজ করা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×