যুবরাজকে অবশ্যই খাশোগির খুনিদের প্রকাশ্যে আনতে হবে: এরদোগান

প্রকাশ : ২৯ জুন ২০১৯, ১৯:০৫ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: এএফপি

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান বলেছেন, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে অবশ্যই সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকারীদের প্রকাশ্যে নিয়ে আসতে হবে।

শনিবার তিনি বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বেশ কয়েকটি দিক এখনো অপ্রকাশিত রয়ে গেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

জাপানে জি২০ সম্মেলনে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ইস্তানবুলে আসা সৌদির ১৫ সদস্যের একটি দল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী। কাজেই অপরাধীদের অন্যত্র খুঁজে লাভ হবে না।

খুনিদের বিচার তুরস্কেই হওয়া উচিত বলে জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান।

এদিকে সৌদি আরবের কাছে মার্কিন সামরিক সরঞ্জাম বিক্রির প্রতি গুরুত্বারোপ করার কথা জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান আমার বন্ধু, যিনি সৌদি আরবের অর্থনীতি ও সামাজিক সংস্কারের প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছেন।

রিয়াদের কাছে ট্রাম্প প্রতিরক্ষাসামগ্রী বিক্রয়ের পরিকল্পনা করলে কংগ্রেস তাতে বাধা তৈরি করেছে। সৌদি আরবের মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় কংগ্রেসের ডেমোক্রেটিক ও কিছু রিপাবলিকান সদস্য নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়েছেন।

বিশেষকরে গত বছরের অক্টোবরে ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ঘটনার রেশ রিয়াদের জন্য এই জটিলতা তৈরি করেছে।

সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠককে সামনে রেখে ট্রাম্প বলেন, সৌদি যুবরাজের সঙ্গে বসতে পারা খুবই সম্মানের। তিনি আমার বন্ধু। সৌদি আরবকে উন্মুক্ত করে দিতে গত পাঁচবছর তিনি বহু কাজ করেছেন।

জি২০ সম্মেলনের ফাঁকে তিনি বলেন, আমি মনে করি নারীদের জন্য আপনি যা করেছেন এবং যা কিছু ঘটছে বলে দেখতে পাচ্ছি, এটা খুবই ইতিবাচক পথে একটি বিপ্লবের মতোই।

মোহাম্মদ বিন সালমান বলেন, আমাদের দেশ সৌদি আরবের দীর্ঘ যাত্রায় সর্বোচ্চ ভালোটিই করার চেষ্টা করছি আমরা।

চলতি মাসে সৌদি আরব, আরব আমিরাত ও অন্যান্য দেশের কাছে কোটি কোটি ডলারের সামরিক সরঞ্জাম বিক্রি বন্ধে ভোট দিয়েছে মার্কিন সিনেট।

ইরানকে কেন্দ্র করে জরুরি অবস্থা ঘোষণার মাধ্যমে সৌদির সঙ্গে অস্ত্র চুক্তির ক্ষেত্রে কংগ্রেসের পর্যালোচনা পাশ কাটিয়ে যেতে ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে সিনেট এই ভোটের আয়োজন করেছে।

সিনেটের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ভেটো দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে ট্রাম্প।

শনিবার যুবরাজের সঙ্গে বৈঠকে সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে কথা বলেছেন কিনা, তা জানাতে অস্বীকার করেছেন ট্রাম্প।