হামলা থেকে বাচঁতে ভারতে মাদ্রাসার ভেতরেই মন্দির!

  অনলাইন ডেস্ক ১৫ জুলাই ২০১৯, ২০:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

হামলা থেকে বাচঁতে ভারতে মাদ্রাসার ভেতরেই মন্দির!
ছবি: সংগৃহীত

শিক্ষাকেন্দ্রে সাম্প্রদায়িক ঐক্য বজায় রাখতে ভারতে এবার মাদ্রাসার ভেতর মন্দির নির্মাণ করা হচ্ছে। দেশটির সাবেক উপ-রাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারির স্ত্রী সালমা আনসারি এমন উদ্যোগ নিয়েছেন।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, আলিগড়ে একটি মাদ্রাসা পরিচালনা করেন সালমা আনসারি। তার পরিচালিত ওই মাদ্রাসায় মসজিদের পাশাপাশি মন্দির স্থাপনার উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

সালমা আনসারির এমন ঘোষণার পরই আলিগড়ের চাচা নেহরু মাদ্রাসার ভেতরে পূজা শুরু হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউয়ের তোলা ছবিতে মাদ্রাসার ভেতরে সরস্বতী মূর্তি দেখা গেছে।

মাদ্রাসার অভ্যন্তরে এভাবে মন্দির স্থাপনের বিষয়ে সালমা আনসারি বলেন, ভ্রাতৃত্বের বার্তা দেয়ার পাশাপাশি, এই পদক্ষেপে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তাও নিশ্চিত করা যাবে। প্রার্থনা করতে এখন আর তাদের ক্যাম্পাসের বাইরে যেতে হবে না।

এ পদক্ষেপের মাধ্যমে দেশের অন্যান্য মাদ্রাসাগুলো বিষয়টিতে অনুপ্রাণিত হবে বলে আশা করেন তিনি।

মাদ্রাসার হোস্টেলে যে ছেলেমেয়েরা থাকে, তাদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান সালমা আনসারি।

তিনি বলেন, ‘হোস্টেল থেকে মন্দির বা মসজিদে যাওয়ার পথে যদি কিছু ঘটে, তাহলে আমাদের ওপরই তার দায় বর্তাবে। তাই ভেবেচিন্তে ক্যাম্পাসের মধ্যেই মন্দির এবং মসজিদ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

২০১৭ সালের আগস্টে উপ-রাষ্ট্রপতির পদ থেকে বিদায় নেন হামিদ আনসারি। বিদায়কালে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনা করেছিলেন তিনি।

বিজেপির আমলে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় অস্বস্তিতে রয়েছেন, নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে সেইসময় মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এ নিয়ে বিজেপি নেতাদের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×