‘পানিকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে ভারত’

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০০:১৫:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

ভারতের ভোপালের কালিয়াসত বাঁধ, ছবি: সংগৃহীত

ভারতের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি বাঁধ খুলে দেয়ায় পাকিস্তানের বিস্তীর্ণ এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছে পাকিস্তান সরকার।

মঙ্গলবার কোনো ধরণের ঘোষণা ছাড়াই ওই বাঁধটি খুলে দেয় ভারত। এতে পাকিস্তানের ওই এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

এ কাজটি করে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারত সর্বমুখী যুদ্ধ শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের পানি ও বিদ্যুৎ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোজাম্মিল হোসেন।

তিনি বলেন, ভারত এখন পানিকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে আমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে। তারা পাকিস্তানকে কূটনৈতিকভাবে একঘরে করার চেষ্টা করছে এবং পাক অর্থনীতিকেও ক্ষতিগ্রস্থ করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে। এসবে তেমন কাজ হচ্ছে না দেখে এখন তারা আমাদের বিরুদ্ধে পানিকে ব্যবহার করছে।

তিনি আরও বলেন, পানিবন্টন সংক্রান্ত চুক্তিগুলোকে অমান্য করে বাঁধ খুলেছে ভারতে। এর আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সুস্পষ্টভাবে পাকিস্তানে পানি বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন।

পাকিস্তানের পানি বিষয়ক কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এক পাক গণমাধ্যম জানায়, ভারত হঠাৎ করে উজানে বাঁধ খুলে দেয়ায় পাকিস্তানের সুতলেজ নদীতে পানি প্রবাহ বেড়ে গেছে এবং বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

ভারত বাঁধ খুলে দেয়ার বিষযয়ে পাকিস্তানকে অবহিত করেনি দাবি করে পাঞ্জাবের প্রাদেশিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক খুররম শাহজাদ বলেছেন, এভাবে কোনো কিছু না জানিয়ে বাঁধ খুলে দেয়ার মাধ্যমে পাকিস্তানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত দীর্ঘদিনের চুক্তি লঙ্ঘন করেছে ভারত।

প্রসঙ্গত, গত ৫ আগস্ট ৩৭০ ধারা বিলোপের মাধ্যমে জুম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে ভারত সরকার। এর পর থেকে ভারত পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয়েছে। চির বৈরি দুই দেশের কাশ্মীর সংকটটি আবার প্রকট হয়ে ওঠে। দুই দেশের মধ্যে কুটনৈতিক সম্পর্ক তলানিতে নেমেছে। ইতিমধ্যে ভারতগামী দুটি ট্রেন চলাচলে বন্ধ করে দিয়েছে পাকিস্তান। এমন পরিস্থিতিতেই পাক সীমান্তে নদীর বাঁধ খুলে দিল ভারত।

সূত্র: গালফ নিউজ

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত