তেল স্থাপনায় হামলা: ট্রাম্পকে সৌদি যুবরাজের ফোন
jugantor
তেল স্থাপনায় হামলা: ট্রাম্পকে সৌদি যুবরাজের ফোন

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৪৩:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ট্রাম্প-সৌদি যুবরাজ

সরকারি তেল স্থাপনা আরামকোতে ড্রোন হামলার পর উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

সৌদি প্রেস এজেন্সি এসপিএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার টেলিফোনে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে যুবরাজের কথা হয়েছে। এ সময় সন্ত্রাসী হামলা মোকাবিলায় রিয়াদ সক্ষম ও প্রস্তুত রয়েছে বলে ট্রাম্পকে জানান সৌদি যুবরাজ।

যুক্তরাষ্ট্রের সৌদি দূতাবাস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি যুবরাজকে জানিয়েছেন, ড্রোন হামলার পর সৌদি আরবের নিরাপত্তা নিশ্চিতে দেশটিকে সহায়তা করতে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে সরকারি তেল স্থাপনা আরামকোতে ড্রোন হামলার পর থেকে সাময়িকভাবে প্রতিদিন ৫৭ লাখ ব্যারেল তেল উৎপাদন কমিয়েছে সৌদি আরব। এ উৎপাদন দেশটির মোট দৈনিক তেল উৎপাদনের অর্ধেক।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ড্রোন হামলা সৌদির তেল শিল্পে মারাত্মক আঘাত হেনেছে। মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে এ হামলার কারণে সোমবার থেকে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি তিন ডলার থেকে ৫ ডলার বেড়ে যেতে পারে।

এক বিবৃতিতে সৌদি আরবের জ্বালানি মন্ত্রী আব্দুল আজিজ বিন সালমান বলেছেন, এই হামলায় দেশটির দৈনিক তেল উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল হ্রাস পাবে।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি আরামকো বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। প্রতিদিন ৭০ লাখ ব্যারেলেরও বেশি তেল রফতানি করে থাকে দেশটি।

তেল স্থাপনায় হামলা: ট্রাম্পকে সৌদি যুবরাজের ফোন

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ট্রাম্প-সৌদি যুবরাজ
ছবি: সংগৃহীত

সরকারি তেল স্থাপনা আরামকোতে ড্রোন হামলার পর উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। 

সৌদি প্রেস এজেন্সি এসপিএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার টেলিফোনে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে যুবরাজের কথা হয়েছে। এ সময় সন্ত্রাসী হামলা মোকাবিলায় রিয়াদ সক্ষম ও প্রস্তুত রয়েছে বলে ট্রাম্পকে জানান সৌদি যুবরাজ।   

যুক্তরাষ্ট্রের সৌদি দূতাবাস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি যুবরাজকে জানিয়েছেন, ড্রোন হামলার পর সৌদি আরবের নিরাপত্তা নিশ্চিতে দেশটিকে সহায়তা করতে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত রয়েছে। 

এদিকে সরকারি তেল স্থাপনা আরামকোতে ড্রোন হামলার পর থেকে সাময়িকভাবে প্রতিদিন ৫৭ লাখ ব্যারেল তেল উৎপাদন কমিয়েছে সৌদি আরব। এ উৎপাদন দেশটির মোট দৈনিক তেল উৎপাদনের অর্ধেক।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ড্রোন হামলা সৌদির তেল শিল্পে মারাত্মক আঘাত হেনেছে। মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে এ হামলার কারণে সোমবার থেকে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি তিন ডলার থেকে ৫ ডলার বেড়ে যেতে পারে।

এক বিবৃতিতে সৌদি আরবের জ্বালানি মন্ত্রী আব্দুল আজিজ বিন সালমান বলেছেন, এই হামলায় দেশটির দৈনিক তেল উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল হ্রাস পাবে।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি আরামকো বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। প্রতিদিন ৭০ লাখ ব্যারেলেরও বেশি তেল রফতানি করে থাকে দেশটি।