৪২ বছর আগে ছাগল চুরির মামলায় গ্রেফতার!

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৪:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

৪২ বছর আগে ছাগল চুরির মামলায় গ্রেফতার!
গ্রেফতার বাচ্চু

৪২ বছর ধরে পুলিশের খাতায় ওয়ান্টেড ছিলেন তিনি। তার অপরাধ- একটি ছাগল চুরি করেছিলেন।

আর ছাগল চুরির অভিযোগের সাড়ে তিন যুগ পর ধরা পড়লেন সেই আসামি।

সম্প্রতি এমন ঘটনা ঘটল ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বোধজং এলাকায়।

মামলার বর্ণনা দিয়ে ত্রিপুরার বোধজং থানার ওসি সুকান্ত সেন চৌধুরী বলেন, ১৯৭৮ সালে আগরতলার নন্দননগর এলাকার কুমুদ ভৌমিকের একটি পাঁঠা ছাগল চুরি হয়। সেই সময় তিনি থানায় মোহন ও তার ছেলে বাচ্চুর নামে অভিযোগ করেন। সম্পর্কে অভিযুক্তরা বাবা-ছেলে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অন্যজনকে কেন গ্রেফতার করা হয়নি, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, মোহনের ছেলে বাচ্চুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বার্ধক্যজনিত কারণে মোহন মারা গেছেন। গ্রেফতার বাচ্চুর বর্তমান বয়স ৫৮ হলেও অপরাধকালীন তিনি ১৬ বছর বয়সী কিশোর ছিলেন।

বাবা-ছেলে মিলে সেই সময় ৪৫ টাকা মূল্যের একটি ছাগল চুরি করেছিলেন বলে মামলার নথিতে লেখা রয়েছে বলে জানান ওসি সুকান্ত সেন।

ইতিমধ্যে গ্রেফতার বাচ্চুকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে ১৪ সেপ্টেম্বর স্থানীয় জিরানিয়া মহকুমার রানিরবাজার নামক এলাকার চা বাগান থেকে গ্রেফতার করে বোধজং থানা পুলিশ। এ বিষয়ে শনিবার মামলার বাদীর স্ত্রী সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধা বিজয় প্রভা ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে জানান, ছাগলের মালিক কুমুদ ভৌমিকের বয়স এখন ৮৬ বছর। তিনি কানে শুনতে পান না আর। কথাও ভালো বলতে পারেন না। ৪২ বছর আগে মোহন ও তার ছেলে তাদের ছাগল চুরি করেছিল। তবে সে মামলা নিয়ে এখন কেন গ্রেফতার করা হলো বুঝতে পারছি না। বিষয়টি বাড়াবাড়ি হয়ে গেল।

এ বিষয়ে ওসি সুকান্ত সেন চৌধুরী বলেন, ২৫ বছর বা তার বেশি সময় ধরে যেসব মামলা ঝুলে আছে তা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন ত্রিপুরা হাইকোর্ট। গত ১২ আগস্ট হাইকোর্ট থেকে জানানো হয় সেসব মামলার আসামিদের গ্রেফতার করতে হবে। তার পরই এ মামলায় মোহন-বাচ্চুর বিরুদ্ধে থানায় গ্রেফতারি পরোয়ানা পাঠান আদালত।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×