ইরান মধ্যপ্রাচ্য অস্থিতিশীল করে তুলছে: ন্যাটো

  যুগান্তর ডেস্ক ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:১২ | অনলাইন সংস্করণ

ইরান মধ্যপ্রাচ্য অস্থিতিশীল করে তুলছে: ন্যাটো

ন্যাটো সামরিক জোটের প্রধান জেন্স স্টোলেনবার্গ বলেছেন, ইরান গোটা অঞ্চলটাকে অস্থিতিশীল করে তুলেছে।

সৌদি আরবের দুটি তেলক্ষেত্রে হামলার পর মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বাড়ার আশঙ্কায় তিনি প্রচণ্ড উদ্বিগ্ন। খবর বিবিসি ও দ্য ডনের।

এর আগে গত সোমবার সৌদি আরবের দুটি তেল শোধনাগারে হামলায় ক্ষতির পরিমাণ বোঝা যাচ্ছে, স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া এমন কয়েকটি ছবি প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্র।

গত শনিবারের ওই হামলাকে ‘নজিরবিহীন’ উল্লেখ করে এর পেছনে ইরানের সরাসরি সম্পৃক্ততা আছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

অন্যদিকে এ হামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। তিনি এ হামলাকে সৌদি আরবের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ‘ইয়েমেনের জনগণের’ পাল্টা জবাব বলে আখ্যা দিয়েছেন।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় খাতের প্রতিষ্ঠান আরামকো পরিচালিত দুটি তেল উত্তোলন ক্ষেত্রে এ হামলার দায় স্বীকার করেছে ইরানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা।

যদিও যুক্তরাষ্ট্র হুতি বিদ্রোহীদের এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছে। কারও সাহায্য ছাড়া হুতিদের পক্ষে এত বড় হামলা চালানো সম্ভব কিনা, তা নিয়ে সন্দিহান মার্কিন প্রশাসন।

এদিকে ইয়েমেনে হুতিদের সঙ্গে সরাসরি দ্বন্দ্বে জড়িত সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট দাবি করছে, ইরানই এ হামলায় অস্ত্রের জোগান দিয়েছে।

এর আগে ২০০৬ সালে সৌদি নিরাপত্তা বাহিনী আবকাইক তেল পরিশোধনাগারে আল কায়েদার আত্মঘাতী বোমা হামলা চালানোর প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়েছিল।

এদিকে সাম্প্রতিক হামলার ঘটনায় সৌদি আরবে প্রতিদিন ৫৭ লাখ ব্যারেল অশোধিত তেল উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। হামলার পর গত সোমবার বিশ্ববাজারে তেলের দাম ১০ শতাংশের বেশি বেড়ে গেছে।

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-ইরান সংকট

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×