মিসরে একনায়ক সিসির ছবি ছিঁড়ে ফেলছেন বিক্ষোভকারীরা (ভিডিও)
jugantor
মিসরে একনায়ক সিসির ছবি ছিঁড়ে ফেলছেন বিক্ষোভকারীরা (ভিডিও)

  যুগান্তর ডেস্ক  

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:১১:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সিসি বিরোধী বিক্ষোভ
ছবি: সংগৃহীত

মিসরের একনায়ক প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসির বিরুদ্ধে চলা বিক্ষোভে তার ছবি অপসারণ করেছেন বিক্ষোভকারীরা।

শুক্রবার রাত থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভে তাহরির স্কয়ারসহ বিভিন্ন স্থানে বিলবোর্ড ও ব্যানার-ফেস্টুন থেকে সিসির ছবি ছিঁড়ে ফেলা হয়।

২০১১ সালে এই তাহরির স্কয়ারের গণবিক্ষোভে দেশটির তখনকার স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের পতন ঘটে। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ‘আরব বসন্ত’ নামের ওই বিক্ষোভের জের এখনো রয়ে গেছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা আরবি জানায়, হাজার হাজার বিক্ষোভকারী ছবি ছেঁড়ার সময় সিসির বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। এসময় ‘সিসি, তুই সরে যা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে তাহরির স্কয়ারসহ দেশটির গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি শহর।

এমন এক সময় এই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, যখন জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক সফরে গিয়েছেন সিসি।

বিক্ষোভে সিসির ছবি ছেঁড়ার ভিডিওফুটেজ অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি শেয়ার হয়েছে কয়েক লাখেরও বেশি।

টুইটারে গণতন্ত্রপন্থী তৎপরতাকারী আইয়াদ আল-বাগদাদী বলেন, হেই, ডোনাল্ড ট্রাম্প, আপনার প্রিয় একনায়ক এখন নিউইয়র্কের পথে। তাকে সেখানেই রেখে দিন। তিনি ফিরে আসুক, মিসরীয়রা সেটি চান না।

বিক্ষোভের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে অনেক সামাজিকমাধ্যম ব্যবহারকারী তাদের প্রফাইলে পুরাদস্তুর লাল ছবি আপলোড করেছেন।

মিসরের প্রথম গণতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে অভ্যত্থানের মাধ্যমে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করেন তখনকার সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি।

এরপর সব ধরনের বিরোধীদের প্রতি তিনি দমনাভিযান চালিয়েছেন। ষাট হাজার ভিন্নমতাবলম্বীকে তিনি কারাগারে ঢুকিয়েছেন। অনেকের বিচার চলছে।

গত ১৭ জুন বিচার চলাকালে আদালত কক্ষে আকস্মিক পড়ে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেন মোহাম্মদ মুরসি। তার মৃত্যুকে সম্পূর্ণ হত্যাকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেছে মুসলিম ব্রাদারহুড। মানবাধিকারকর্মীরা বলেন, কারাগারে তাকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে।

সংগঠনটিকে সন্ত্রাসীগোষ্ঠী হিসেবে কালোতালিকাভুক্ত করেছেন আল-সিসি। ২০১৩ সালে সামরিক অভ্যুত্থানবিরোধী শত শত বিক্ষোভকারীকে হত্যা করেছেন তিনি।  

মিসরে একনায়ক সিসির ছবি ছিঁড়ে ফেলছেন বিক্ষোভকারীরা (ভিডিও)

 যুগান্তর ডেস্ক 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৪:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সিসি বিরোধী বিক্ষোভ
ছবি: সংগৃহীত

মিসরের একনায়ক প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসির বিরুদ্ধে চলা বিক্ষোভে তার ছবি অপসারণ করেছেন বিক্ষোভকারীরা।

শুক্রবার রাত থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভে তাহরির স্কয়ারসহ বিভিন্ন স্থানে বিলবোর্ড ও ব্যানার-ফেস্টুন থেকে সিসির ছবি ছিঁড়ে ফেলা হয়।

২০১১ সালে এই তাহরির স্কয়ারের গণবিক্ষোভে দেশটির তখনকার স্বৈরশাসক হোসনি মোবারকের পতন ঘটে। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ‘আরব বসন্ত’ নামের ওই বিক্ষোভের জের এখনো রয়ে গেছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা আরবি জানায়, হাজার হাজার বিক্ষোভকারী ছবি ছেঁড়ার সময় সিসির বিরুদ্ধে স্লোগান দেন।এসময় ‘সিসি, তুই সরে যা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে তাহরির স্কয়ারসহ দেশটির গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি শহর।

এমন এক সময় এই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, যখন জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক সফরে গিয়েছেন সিসি।

বিক্ষোভে সিসির ছবি ছেঁড়ার ভিডিওফুটেজ অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি শেয়ার হয়েছে কয়েক লাখেরও বেশি।

টুইটারে গণতন্ত্রপন্থী তৎপরতাকারী আইয়াদ আল-বাগদাদী বলেন, হেই, ডোনাল্ড ট্রাম্প, আপনার প্রিয় একনায়ক এখন নিউইয়র্কের পথে। তাকে সেখানেই রেখে দিন। তিনি ফিরে আসুক, মিসরীয়রা সেটি চান না।

বিক্ষোভের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে অনেক সামাজিকমাধ্যম ব্যবহারকারী তাদের প্রফাইলে পুরাদস্তুর লাল ছবি আপলোড করেছেন।

মিসরের প্রথম গণতান্ত্রিক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে অভ্যত্থানের মাধ্যমে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করেন তখনকার সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি।

এরপর সব ধরনের বিরোধীদের প্রতি তিনি দমনাভিযান চালিয়েছেন। ষাট হাজার ভিন্নমতাবলম্বীকে তিনি কারাগারে ঢুকিয়েছেন। অনেকের বিচার চলছে।

গত ১৭ জুন বিচার চলাকালে আদালত কক্ষে আকস্মিক পড়ে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেন মোহাম্মদ মুরসি। তার মৃত্যুকে সম্পূর্ণ হত্যাকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেছে মুসলিম ব্রাদারহুড। মানবাধিকারকর্মীরা বলেন, কারাগারে তাকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে।

সংগঠনটিকে সন্ত্রাসীগোষ্ঠী হিসেবে কালোতালিকাভুক্ত করেছেন আল-সিসি। ২০১৩ সালে সামরিক অভ্যুত্থানবিরোধী শত শত বিক্ষোভকারীকে হত্যা করেছেন তিনি।