যে কারণে ভারতে ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে সৌদি

  যুগান্তর ডেস্ক ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

যে কারণে ভারতে ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে সৌদি
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের বাজারে ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগের চিন্তাভাবনা করছে সৌদি আরব। এসব খাতের মধ্যে রয়েছে- পেট্রোকেমিক্যাল, পরিকাঠামো উন্নয়ন, কৃষি ও খনিসহ বেশ কয়েকটি ক্ষেত্র।

গত ফেব্রুয়ারিতে ভারতে এসে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমনের বার্তা ছিল- দুবছরের মধ্যে অন্তত ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগের সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছেন তিনি। এবার সেই বিনিয়োগের ইঙ্গিত দিয়েছেন ভারতে নিযুক্ত সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত সৌদ বিন মোহাম্মদ আল সউদ ।

সৌদি আরব ভারতে বড় ধরনের বিনিয়োগ কেন করছে? দেশটিতে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত জানালেন, সৌদির কাছে ভারত বিনিয়োগের আকর্ষণীয় একটি দেশ। বিনিয়োগ বৃদ্ধির বিপুল সম্ভাবনা আঁচ করেই ভারতের বাজারকে বেছে নিয়েছেন তারা। গ্যাস, পেট্রোকেমিক্যাল, শোধনাগার থেকে শুরু করে পরিকাঠামো, কৃষি, খনিজ ও খননের মতো ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করতে পারে সৌদি আরব।

সৌদি রাষ্ট্রদূত সউদ বিন মোহাম্মদ আল সউদ এ প্রসঙ্গে বলেন, বিনিয়োগের জন্য ভারত যথেষ্ট আকর্ষণীয় একটি দেশ। তেল, গ্যাস ও খনির মতো বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে নয়াদিল্লির সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি অংশীদারিত্বের পরিকল্পনা চলছে।

এ মুহূর্তে মারাত্মক অর্থনৈতিক সংকটে রয়েছে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। এমন পরিস্থিতিতেই নয়াদিল্লির সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক তৈরির কথা ভাবছে সৌদি। ১০ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগের মাধ্যমে সে সম্পর্কের ভীত মজবুত করতে চান সৌদি যুবরাজ।

ইরান থেকে তেল কেনায় মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জেরে তৈরি হওয়া ঘাটতি পূরণেরও আশ্বাস দিয়েছেন সৌদি রাষ্ট্রদূত। তার মতে, ড্রোন হামলায় রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থা সৌদি আরামকোর উৎপাদন কমলেও ভারতের তেল-গ্যাস ক্ষেত্রে বিনিয়োগের দায়বদ্ধতা পূরণে অনড় তারা।

ভারতীয় অর্থনীতিবিদদের মতে, অবশ্য সৌদির এমন উদ্যোগ প্রত্যাশিতই ছিল। কারণ তেল-গ্যাসের চাহিদা বৃদ্ধির হারে চীনকে টেক্কা দিয়ে ভারত বিশ্বে দ্রুততম অবস্থানে পৌঁছেছে। ফলে এমন সম্ভাবনাময় বাজারকে হাতছাড়া করতে চায় না সৌদি। যে কারণে বারবার তেল শোধন, পেট্রোপণ্যে বিনিয়োগের কথা বলছে রিয়াদ। আগ্রহ দেখাচ্ছে পেট্রলপাম্প খোলায়।

সৌদির রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থা আরামকোও মহারাষ্ট্রে শোধনাগার ও পেট্রোকেমিক্যাল প্রকল্পে অংশীদার হতে চুক্তি করেছে। প্রস্তাব দিয়েছে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের তেল শোধন ও পেট্রোকেমিক্যাল ব্যবসায় থাকতেও। সউদের বার্তা, দুই প্রস্তাবকে পুঁজি করে দুই দেশের সম্পর্ক আরও পোক্ত হবে।

সউদের মতে, এ দুই সংস্থার অংশীদারিত্ব এটি স্পষ্ট করছে যে, ভারতে জ্বালানির বাজার ক্রমবর্ধমান। আর এর মধ্য দিয়েই দুইদেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও মজবুত হবে বলেই মনে করেন সউদ।

তেল, গ্যাসের বাইরেও বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে সৌদির পক্ষ থেকে। পেট্রোপণ্যে সৌদি অর্থনীতির নির্ভরতা কমাতে যে ‘ভিশন ২০৩০’-এর পরিকল্পনা করছেন যুবরাজ, তাতে অন্যান্য ক্ষেত্রেও ভারতকে সঙ্গী করার ইঙ্গিত দিয়েছেন ভারতে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যক্তিগত রসায়নও খারাপ নয়।

কিন্তু এতদিন দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কে তার প্রতিফলন খুব একটা দেখা যায়নি। জ্বালানি থেকে কৃষি— বিভিন্ন ক্ষেত্রে সৌদি থেকে বিনিয়োগ টানার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল নয়াদিল্লি। সম্প্রতি মোদির সৌদি সফরও বেশ তাৎপর্যপূর্ণ ছিল। সেই সফরে দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও প্রতিরক্ষাসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলাপ-আলোচনা হয়।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×