ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সৌদির হাতিয়ার ফুটবল

  যুগান্তর ডেস্ক ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

মসজিদুল আকসায় সৌদি ফুটবলদলের প্রতিনিধিরা। ছবি: আল আরাবিয়া
মসজিদুল আকসায় সৌদি ফুটবল দলের প্রতিনিধিরা। ছবি: আল আরাবিয়া

ইসরাইলের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্কের উষ্ণতা বাড়ছে। ফিলিস্তিনিদের প্রতিও উপসাগরীয় দেশটির সমর্থনে ভাটা পড়েছে।

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ও তার দুই সহযোগীর জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর মার্কিন সমর্থিত সৌদি- ইসরাইল গোপন সম্পর্কোন্ননে বিপত্তি তৈরি হয়েছিল।

খাশোগি হত্যাকাণ্ডের পর সৌদি যুবরাজের দুই সহযোগী পদ হারানোর পর ইসরাইলের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্কোন্নয়ন এতদিন ব্যাপক বাধার মুখে থাকলেও সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে এখন খেলাধুলাকে হাতিয়ার করছে সৌদি।

সোমবার অধিকৃত পশ্চিমতীরে পা রাখার পরের দিন পূর্ব জেরুজালেম-সংযুক্ত আল-আকসা মসজিদে গিয়ে ফিলিস্তিনিদের ক্ষোভ জাগিয়ে তুলেছেন সৌদি প্রতিনিধিরা।

রামাল্লায় মঙ্গলবার সৌদি ফুটবল দলের সঙ্গে একটি ম্যাচ খেলবেন ফিলিস্তিনিরা। ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপ ও পরের বছরের এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে শহরটিতে।

এর মধ্যে দিয়ে সৌদি প্রতিনিধিরা প্রথমবারের মতো অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে প্রবেশ করলেন। মূলত ইহুদিবাদী রাষ্ট্রটির মৌন সম্মতি নিয়েই ফিলিস্তিনে আসলেন সৌদিরা।

ইসরাইলকে বর্জনে যেসব ক্ষেত্রে আরবদের ঐক্যমত রয়েছে, সেসবকে তুচ্ছ করেই সৌদিরা এই সফরে বলে মনে করেন অধিকাংশ ফিলিস্তিনি। এতে রিয়াদের সঙ্গে তেলআবিবের সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের দিকে যাচ্ছে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা।

ইহুদিদের একটি উৎসবের সময় সৌদিরা আল-আকসা পরিদর্শনে যান। এ সময়ে মসজিদটিতে ফিলিস্তিনিদের প্রবেশ সীমিত করে দেয় ইসরাইলি বাহিনী।

এর আগে ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ ও ২০১৯ সালের এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের জন্য জেরুজালেমে ফিলিস্তিনি জাতীয়দলের সঙ্গে একটি ম্যাচ খেলার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে সৌদি ফুটবল ফেডারেশন। এটা ২০১৫ সালের ঘটনা। ইসরাইলকে বর্জনে আরব লীগের বাধ্যবাধকতা থেকেই রিয়াদকে এমন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছিল।

পরবর্তী সৌদি আরবের নীতিতে অনেক বদল ঘটেছে। ইসরাইল ও ফিলিস্তিনিদের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিতর্কিত ‘শতাব্দির চুক্তিতে’ সমর্থন জানিয়েছে রিয়াদ।

যদিও ইসরাইলের অনুকূলে জোরালো পক্ষপাতমূলক হওয়ায় ফিলিস্তিনি রাজনৈতিক সংগঠনগুলো প্রত্যাখ্যান করেছে চুক্তিটি। ট্রাম্প প্রশাসন প্রণীত ওই চুক্তিতে ফিলিস্তিনিদের সার্বভৌমত্বের কোনো নিশ্চয়তা দেয়া হয়নি।

এক বিবৃতিতে ফিলিস্তিনের বর্জন, পরিত্যাগ ও নিষেধাজ্ঞা জাতীয় কমিটি (বিএনসি) বলছে, ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ভিসা আবেদন করায় সৌদি ফুটবল দলের সফর ইসরাইলকে বর্জনের নীতি পুরোপুরি লঙ্ঘন করেনি।

কিন্তু তা সত্ত্বেও সংস্থাটির দাবি, প্রত্যাখ্যানের চার বছরের মাথায় অধিকৃত ভূখণ্ডে সৌদিদের এ সফর খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। এমন এক সময় তারা এই সফরে এসেছেন, যখন বেশ কয়েকটি আরব দেশের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের দিকে যাচ্ছে।

সৌদিদের এই সফরকে নজিরবিহীন বলে উল্লেখ করা হচ্ছে। ফিলিস্তিনে যেতে হলে সব ধরনের ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের চূড়ান্ত অনুমোদন দরকার পড়ে। তার অর্থ দাঁড়ায়, পশ্চিমতীরে ঢুকতে সৌদিদের পরোক্ষভাবে সবুজ সংকেত দিয়েছে ইসরাইল।

ঘটনাপ্রবাহ : শতাব্দীর সেরা সমঝোতা

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×