সৌদি-ইরান দ্বন্দ্ব লাঘবে পূর্বসূরিদের মতোই কি ব্যর্থ হবেন ইমরান খান?

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১২:২২ | অনলাইন সংস্করণ

সৌদি-ইরান দ্বন্দ্ব লাঘবে পূর্বসূরিদের মতোই কি ব্যর্থ হবেন ইমরান খান?
ছবি: এএফপি

সৌদি-ইরান দ্বন্দ্ব নিরসনে পূর্বসূরিরা যেখানে ব্যর্থ হয়েছেন, সেখানে ইমরান খান কতটা সফল হবেন- তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

ইরানের সঙ্গে আঞ্চলিক সংঘাত শান্তিপূর্ণ উপায়ে নিরসনে সৌদি আরবের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তবে পাক প্রধানমন্ত্রীর ওই প্রশ্নের জবাবে সৌদি বাদশাহ সালমান কী বলেছেন, তা জানা সম্ভব হয়নি। এর আগে বেশ কয়েকবার পাকিস্তানের নেয়া এমন উদ্যোগে সাড়া দেয়নি সৌদি আরব।

অতীতে চারটি উপলক্ষে এই মধ্যস্থতার চেষ্টা চালিয়েছিল পাকিস্তান। সর্বশেষ ২০১৬ সালে তখনকার প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও সেনাপ্রধান জেনারেল রাহিল শরিফ সৌদি ও ইরান সফরে গিয়েছিলেন।-খবর ডন অনলাইনের।

সৌদি আরবের শিয়া ধর্মীয় নেতা বাকির আল-নিমরকে শিরশ্ছেদে হত্যার পর দুই দেশের উত্তেজনা বাড়ার প্রেক্ষাপটে এমন উদ্যোগ নিয়েছিলেন তারা।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও শান্তির উদ্যোগ হিসেবে ইমরান খান এই সফরে গেছেন।

সৌদি আরব ও ইরানের বৈরিতা ঐতিহাসিক। ২০১৫ সাল থেকে ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলা শুরুর পর তিক্ততা বাড়তে থাকে। সৌদি তেল স্থাপনায় ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার পর সেই উত্তেজনা এখন চরম রূপ নিয়েছে।

কাজেই এ দুই উপসাগরীয় চিরবৈরীর মধ্যে সামরিক সংঘাত প্রতিবেশী ও অঞ্চলটির জন্য মারাত্মক পরিণতি বয়ে আনতে পারে।

এমন এক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে পাকিস্তানসহ আরও বেশ কয়েকটি দেশ উত্তেজনা কমিয়ে আনার চেষ্টা করছে।

গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে সংবাদ সম্মেলনে নিজের উদ্যোগের কথা প্রথম জানিয়েছিলেন ইমরান খান।

তখন তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাকে এমন উদ্যোগ নিতে অনুরোধ করেছেন। এ ছাড়া নিউইয়র্কে ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে বৈঠকেও তিনি এ বিষয়ে আলাপ করেন।

এর আগে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের প্রভাবশালী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অনুরোধে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

পরবর্তী সময়ে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় স্পষ্ট করেছে কারও পরামর্শে ইমরান খান এমন উদ্যোগ নেননি। বরং আঞ্চলিক শান্তির স্বার্থে নিজে উদ্যোগী হয়েই তিনি দেশ দুটিকে আলোচনার টেবিলে আনার চেষ্টা করছেন।

রিয়াদে বাদশাহ সালমান ছাড়াও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইমরান খান ও তার প্রতিনিধি দল। এ সময় আঞ্চলিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে তারা আলোচনা করেন।

দুটি পবিত্র মসজিদের নিরাপত্তায় পাকিস্তানের অনড় সমর্থন ও প্রতিশ্রুতির কথা এ সময় পুনর্ব্যক্ত করেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে একই বার্তা নিয়ে তেহরান সফরে যান সাবেক এই ক্রিকেট কিংবদন্তি। সেখানে আঞ্চলিক উত্তেজনা কমাতে পাকিস্তানের চেষ্টাকে স্বাগত জানিয়েছেন ইরানি নেতারা।

ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, আঞ্চলিক উপায় ও আলোচনার মাধ্যমেই উপসাগরীয় সংকটের সামধান করতে হবে। যেকোনো শুভেচ্ছার নিদর্শনে একইভাবে সাড়া দেয়া হবে।

ধারণা করা হচ্ছে, ইরান-সৌদিকে অচলাবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে ইয়েমেন সংকটে একটি সমাধানে আসতে হবে।

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি সেই কথাই ইমরান খানকে বলেছেন। তিনি জানান, বহু বছর আগেই ইয়েমেন যুদ্ধের অবসানে চার প্রস্তাব দিয়েছিল ইরান। এই যুদ্ধের ইতি টানতে পারলে মধ্যপ্রাচ্যে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

ইরান-মার্কিন সম্পর্কও এখন ইতিহাসের সর্বোচ্চ তলানিতে রয়েছে। ইরানের সঙ্গে সই করা বহুপক্ষীয় পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসার পর তেহরানের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিতে নির্বিচারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

এ অবস্থায় দুই বৈরী দেশের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ইমরান খান। মঙ্গলবার সিএনএনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, ট্রাম্প তাকে বলেছেন- তার উচিত এই অচলাবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে একটি মধ্যস্থতার চেষ্টা করা। মার্কিন প্রস্তাব নিয়ে তিনি হাসান রুহানির সঙ্গেও কথা বলেছেন বলে জানান।

এক প্রশ্নের জবাবে ইমরান বলেন, পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে। তবে তিনি এখন বিস্তারিত বলবেন না। ‘দেখতে থাকেন, একটা অগ্রগতি হচ্ছে। দুপক্ষের কাছ থেকে সাড়া পাওয়ার আগে আমি এখন বিস্তারিত বলতে যাচ্ছি না।’

তবে দুই দেশের সম্পর্ক খুবই জটিল বলে মনে করছেন তিনি। তবে তাদের উপলব্ধি নিয়ে আশাবাদের কথাও বললেন ক্রিকেটে বিশ্বকাপজয়ী এ তারকা।

ঘটনাপ্রবাহ : সৌদি-ইরান সম্পর্কোন্নয়নে ইমরান খান

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×