ইমরান খানের শান্তির উদ্যোগে সৌদির সাড়া ইতিবাচক: কোরাইশি
jugantor
ইমরান খানের শান্তির উদ্যোগে সৌদির সাড়া ইতিবাচক: কোরাইশি

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১৩:১৩:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইমরান খানের শান্তির উদ্যোগে সৌদির সাড়া ইতিবাচক: কোরাইশি
ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরাইশি বলেছেন, উপসাগরীয় অঞ্চলে উত্তেজনা লাঘবে ইমরান খানের চেষ্টায় ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে সৌদি আরব।

শান্তি প্রতিষ্ঠার একটি সুযোগ দিতে রিয়াদ একমত হয়েছে বলেও জানালেন তিনি। পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডনের খবর থেকে এমন তথ্য জানা গেছে।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সৌদি নেতৃবৃন্দ ইতিবাচকভাবে সাড়া দিয়েছেন। তারা একমত পোষণ করেছেন যে কূটনৈতিক পথই বেছে নিতে হবে এবং আলোচনার মাধ্যমে মতপার্থক্য দূর করতে হবে।

সৌদি সফরে দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইমরান খান।

খবরে বলা হয়েছে, রিয়াদে পাকিস্তানি প্রতিনিধিদের আঞ্চলিক সংঘাত নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। ইরানি মানসিকতা ও পরিস্থিতি নিয়ে ইসলামাবাদের দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরা হয়েছে।

গত রোববার ইমরান খান তেহরান সফরে গেলে দেশটির নেতৃবৃন্দ তার চেষ্টাকে স্বাগত জানিয়েছেন। এক সাক্ষাৎকারে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ বলেছেন, সরাসরি কিংবা মাধ্যম ব্যবহার করে সৌদির সঙ্গে আলোচনায় তার দেশ প্রস্তুত।

কোরাইশি বলেন, আলোচনার মূল বক্তব্য তুলে ধরতে চাইলে আমাকে বলতে হবে যে, এ অঞ্চলজুড়ে পুঞ্জীভূত হওয়া যুদ্ধ ও সংঘাতের মেঘ কেটে গেছে।

মূলত আঞ্চলিক সংঘাত এড়াতে ভূমিকা রাখতেই ইমরান খানের এই সফর, জানিয়ে কোরাইশ বলেন, কারণ যে কোনো সংঘাত এ অঞ্চল ও বৈশ্বিক অর্থনীতির জন্য বিপর্যয়কর পরিণতি বয়ে আনবে।

ইয়েমেনে একটি অস্ত্রবিরতির সম্ভাবনাও উজ্জ্বল বলে জানিয়েছেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ইমরান খানের শান্তির উদ্যোগে সৌদির সাড়া ইতিবাচক: কোরাইশি

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইমরান খানের শান্তির উদ্যোগে সৌদির সাড়া ইতিবাচক: কোরাইশি
ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরাইশি বলেছেন, উপসাগরীয় অঞ্চলে উত্তেজনা লাঘবে ইমরান খানের চেষ্টায় ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে সৌদি আরব।

শান্তি প্রতিষ্ঠার একটি সুযোগ দিতে রিয়াদ একমত হয়েছে বলেও জানালেন তিনি। পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডনের খবর থেকে এমন তথ্য জানা গেছে।

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সৌদি নেতৃবৃন্দ ইতিবাচকভাবে সাড়া দিয়েছেন। তারা একমত পোষণ করেছেন যে কূটনৈতিক পথই বেছে নিতে হবে এবং আলোচনার মাধ্যমে মতপার্থক্য দূর করতে হবে।

সৌদি সফরে দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন ইমরান খান।

খবরে বলা হয়েছে, রিয়াদে পাকিস্তানি প্রতিনিধিদের আঞ্চলিক সংঘাত নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। ইরানি মানসিকতা ও পরিস্থিতি নিয়ে ইসলামাবাদের দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরা হয়েছে।

গত রোববার ইমরান খান তেহরান সফরে গেলে দেশটির নেতৃবৃন্দ তার চেষ্টাকে স্বাগত জানিয়েছেন। এক সাক্ষাৎকারে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ বলেছেন, সরাসরি কিংবা মাধ্যম ব্যবহার করে সৌদির সঙ্গে আলোচনায় তার দেশ প্রস্তুত।

কোরাইশি বলেন, আলোচনার মূল বক্তব্য তুলে ধরতে চাইলে আমাকে বলতে হবে যে, এ অঞ্চলজুড়ে পুঞ্জীভূত হওয়া যুদ্ধ ও সংঘাতের মেঘ কেটে গেছে।

মূলত আঞ্চলিক সংঘাত এড়াতে ভূমিকা রাখতেই ইমরান খানের এই সফর, জানিয়ে কোরাইশ বলেন, কারণ যে কোনো সংঘাত এ অঞ্চল ও বৈশ্বিক অর্থনীতির জন্য বিপর্যয়কর পরিণতি বয়ে আনবে।

ইয়েমেনে একটি অস্ত্রবিরতির সম্ভাবনাও উজ্জ্বল বলে জানিয়েছেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সৌদি-ইরান সম্পর্কোন্নয়নে ইমরান খান

আরও খবর