তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এবার ইসরাইলের শরণাপন্ন হচ্ছে কুর্দিরা

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১৪:২১ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ)। ছবি: এএফপি

এবার তুরস্কের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নিতে ইসরাইলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সিরিয়ার কুর্দিরা। সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ)-এর মুখপাত্রের বরাত দিয়ে এ খবর নিশ্চিত করেছে ইসরাইলের শীর্ষস্থানীয় সংবাদ মাধ্যম দ্য টাইমস অব ইসরাইল।  

প্রতিবেদনে বলা হয়, কুর্দিদের এখন ভরসা-ইসরাইলের ইহুদীরা তাদের অবহেলা করবে না।  তারা বলেছে, তুরস্কের সামরিক অভিযানে নারী ও শিশুদেরও প্রাণহানি হচ্ছে। 

টাইমস অব ইসরাইলের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, অস্ত্রবিরতির মার্কিন ঘোষণার পরও সীমান্ তুরস্কের সঙ্গে কুর্দিদের সামান্য লড়াই চলছে। ওয়াশিংটন মদতপুষ্ট সংগঠন এসডিএফ আইএসের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের লড়াইয়ে যুক্ত ছিল। তবে তুরস্ক ও ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন তাদের জঙ্গী-সন্ত্রাসী সংগঠন মনে করে। 

কুর্দি গেরিলাদের সংগঠন এসডিএফের এক কর্মকর্তা টাইমস অব ইসরাইলকে বলেন, ‘আমার বিশ্বাস ইহুদী জনগণ আমাদের কুর্দি জনগণের ভালোর জন্য বর্তমান বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে এগিয়ে আসবে। আমাদের আশা, তুর্কি ‘সন্ত্রাসীদের’ হাত থেকে আমাদের রক্ষায় তারা কোনো অবহেলা করবেন না।’

এদিকে গত ১০ অক্টোবর কুর্দিদের ওপর সামরিক অভিযানের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিবৃতি দিয়েছেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। সিরিয়ায় কুর্দি অভিযানের ‘মানবিক’ যে কোনো সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। 

নেতানিয়াহু বলেন, সিরিয়ার ভূখণ্ডে কুর্দিদের জাতিগত নিধনে তুরস্ক ও তাদের সহযোগীদের আক্রমণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে ইসরাইল। 

তিনি বলেন, মানবিক সহযোগিতার জন্য সাহসী কুর্দি জনগণের সহযোগিতায় ইসরাইল প্রস্তুত। 

প্রসঙ্গত, সীমান্ত নিরাপদ, সিরিয়ার অখণ্ডতা ও সিরিয়ান শরণার্থীদের নিরাপদে ফিরিয়ে দিতে চলতি মাসের ৯ অক্টোবর থেকে উত্তর সিরিয়ায় অপারেশন পিস স্প্রিং শুরু করেছে তুর্কি সরকার। উত্তর সিরিয়ার পূর্ব ফোরাত নদী পিকেকে/পিওয়াইডি ও ওয়াইপিজে মুক্ত করতে চায় আঙ্কারা।

৩০ বছর ধরে পিকেকে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে তুরস্ক। পিকেকে সংগঠনকে সন্ত্রাসী হিসেবে তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন তালিকাভুক্ত করেছে। ওই সংগঠনটির হাতে এ পর্যন্ত নারী, কিশোর ও শিশুসহ ৪০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন।