সঙ্গিনীর জন্য দুই হাতির লড়াই, ভাঙল দাঁত!

  লনলাইন ডেস্ক ২৭ অক্টোবর ২০১৯, ০০:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

দুই হাতির লড়াই

নারী-পুরুষের ত্রিকোণ প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে মারামারি, খুনির উদাহরণ রয়েছে অনেক। কিন্তু বন্যপ্রাণীদের মধ্যে এমন সম্পর্ক থাকে কী না জানি না।

তবে হাতিরাও ত্রিকোণ প্রেমে জড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে। আর সঙ্গিনী নিয়ে লড়াইও করেছে দুটি পুরুষ হাতি! ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ঝাড়গ্রাম জেলার লালগড় রেঞ্জের ঝিটকার জঙ্গলে দুটি হাতির লড়াইয়ের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সম্প্রতি। আর ওই ভিডিও নাকি ত্রিকোণ প্রেমের জন্য লড়াইকে প্রমাণিত করেছে। একটি মহিলা হাতিকে (হস্তিনী) নিয়েই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দুই পুরুষ হাতি।

কলকাতার দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের একটি প্রতিবেদনে জানা গেছে, লালগড় রেঞ্জের বিভিন্ন জঙ্গলে প্রায় ৭০-৮০টি হাতি রয়েছে। হাতিগুলি গত কয়েকদিন ধরে লালগড় রেঞ্জের বিভিন্ন গ্রামের জামিতে ব্যাপক তাণ্ডব চালাচ্ছে। তাতে অতিষ্ঠ স্থানীয়রা। হাতি তাড়ানোর দাবিতে লালগড়ে পথ অবরোধও করেন গ্রামবাসীরা।

কিন্তু হাতিগুলি তাড়াতে পরেনি বনদপ্তর। তারই মাঝে ঝিটকার জঙ্গলে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল দুটি হাতি। কিন্তু কী কারণে সংঘর্ষে জড়াল তারা?

বনকর্মীদের দাবি, একটি হাতি বেশ কয়েকদিন ধরেই একা ঘুরে বেড়াচ্ছিল। সম্প্রতি একটি হস্তিনীর সঙ্গে সম্পর্কও তৈরি হয় তার। এর মধ্যে ঝিটকার জঙ্গল থেকে একটি হাতির দল জামিরকোটা জঙ্গলের দিকে চলে আসে। তার মধ্য থেকে একটি হাতি ওই হস্তিনীর প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ে। আর সঙ্গিনীর উপর কার অধিকার থাকবে, তা নিয়েই দুটি হাতির মধ্যে লড়াই বেঁধে যায়। এর মধ্যে একটি হাতির দাঁত ভেঙে যায়।

হাতির হুংকারে গ্রামের লোকজন ছুটে আসেন। খবর পেয়ে বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হাতিদের লড়াই থামায়। বনদপ্তরের চেষ্টায় হাতিগুলিকে জঙ্গলে পাঠানো হয়।

মেদিনীপুরের ডিএফও সন্দীপ বারোয়াল বলেন, হস্তিনীর অধিকার নিয়ে একটি লোনার হাতির সঙ্গে দলের একটি দাঁতাল হাতির লড়াই হয়েছিল। তবুও আমরা বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×