‘যরব’ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল পাকিস্তানের নৌবাহিনী
jugantor
‘যরব’ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল পাকিস্তানের নৌবাহিনী

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৬ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:২৫:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্ষেপণাস্ত্র

ভূমি থেকে সাগরে নিক্ষেপযোগ্য একটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে পাকিস্তানের নৌবাহিনী। দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্রটি আরব সাগরে পরীক্ষা চালানো হয়।

দেশটির নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি নিজেই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়টি তদারকি করেছেন বলে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে।

দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি যরব নামের ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে নিখুঁতভাবে আঘাত হেনেছে বলে পাকিস্তান নৌবাহিনী জানিয়েছে।

নির্মাণ থেকে পরীক্ষা পর্যন্ত সকল পর্যায় সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পাকিস্তানের নৌবাহিনী প্রধান।

অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি বলেন, নয়া ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা ৭০০ কিলোমিটার এবং সাগরে শত্রুর জাহাজ ধ্বংসের লক্ষ্যেই এটি তৈরি করা হয়েছে।

কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্যাপক উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তান এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল। এর আগে গজনভি নামে নতুন একটি স্থল ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছিল পাকিস্তান।

মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তানই বিশ্বের একমাত্র পারমাণবিক শক্তিধর দেশ। দেশটির সেনাবাহিনীর সদস্য সংখ্যা প্রায় সাত লাখ। দেশটিতে রিজার্ভ আর্মি আছে আরও পাঁচ লাখের বেশি।

এদিকে ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা বাড়ানোর বদলে ক্ষুদ্র পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির ওপর গুরুত্ব দিয়েছে পাকিস্তান। এ জাতীয় ক্ষেপণাস্ত্র খুব নিচু দিয়ে উড়ে যায় বলে ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি বাবর ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা দফায় দফায় করেছে পাকিস্তান।

‘যরব’ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল পাকিস্তানের নৌবাহিনী

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ক্ষেপণাস্ত্র
ছবি: সংগৃহীত

ভূমি থেকে সাগরে নিক্ষেপযোগ্য একটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে পাকিস্তানের নৌবাহিনী। দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্রটি আরব সাগরে পরীক্ষা চালানো হয়।

দেশটির নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি নিজেই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়টি তদারকি করেছেন বলে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে। 

দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি যরব নামের ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে নিখুঁতভাবে আঘাত হেনেছে বলে পাকিস্তান নৌবাহিনী জানিয়েছে। 

নির্মাণ থেকে পরীক্ষা পর্যন্ত সকল পর্যায় সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পাকিস্তানের নৌবাহিনী প্রধান। 

অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি বলেন, নয়া ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা ৭০০ কিলোমিটার এবং সাগরে শত্রুর জাহাজ ধ্বংসের লক্ষ্যেই এটি তৈরি করা হয়েছে।

কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্যাপক উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তান এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল। এর আগে গজনভি নামে নতুন একটি স্থল ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছিল পাকিস্তান।

মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তানই বিশ্বের একমাত্র পারমাণবিক শক্তিধর দেশ। দেশটির সেনাবাহিনীর সদস্য সংখ্যা প্রায় সাত লাখ। দেশটিতে রিজার্ভ আর্মি আছে আরও পাঁচ লাখের বেশি।

এদিকে ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা বাড়ানোর বদলে ক্ষুদ্র পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির ওপর গুরুত্ব দিয়েছে পাকিস্তান। এ জাতীয় ক্ষেপণাস্ত্র খুব নিচু দিয়ে উড়ে যায় বলে ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।
 

পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি বাবর ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা দফায় দফায় করেছে পাকিস্তান। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট